November 10, 2019, 10:38 am

শিরোনাম :
অর্থাভাবে বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি হতে পাচ্ছেন না চিলমারীর মেধাবী শিক্ষার্থী আবু হাসান শৈলকুপায় নগদ টাকাসহ ৭ জুয়াড়ী আটক ঝিনাইদহের শৈলকুপায় যাত্রীবাহি বাস উল্টে আহত ২৫ সেবা মিলছে না চিলমারীর চরাঞ্চল এলাকার কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোতে শার্শার বাগআঁচড়া কলেজ রোডটি জনগনের জন্য হয়ে দাড়িয়েছে মরন ফাঁদ পূর্ণিমার চাঁদের চেয়েও সুন্দর আমার আপনার নবীজি (সঃ) সিংড়ায় বিয়ের দু’দিন না পেরোতেই যুবকের মরদেহ উদ্ধার সড়ক আইন ২০১৮ কার্যকর করতে তানোর থানা পুলিশের জন-সচেতনতা মূলক লিফলেট বিতরণ আদর্শ সন্তান গড়তে মাদরাসা শিক্ষার বিকল্প নেই; চেয়ারম্যান ফারুক আহমদ ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের মোকাবেলায় প্রস্তুত আ’লীগ – সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রীওবায়দুল কাদের

হামলা হবে বাংলাদেশে, সতর্ক করছে ভারতীয় গোয়েন্দারা!

Spread the love

হামলা হবে বাংলাদেশে, সতর্ক করছে ভারতীয় গোয়েন্দারা!

ডিটেকটিভ আন্তর্জাতিক ডেস্ক

বাংলাদেশে উগ্র হিন্দুত্ববাদী সংগঠন ইসকনের মন্দিরে হামলার পরিকল্পনা করছে আরেক উগ্রবাদী সংগঠন আইএস। তবে সরাসরি আইএস নয়, তাদের ভাবধারায় বিশ্বাসী বা উৎসাহী হয়ে বা মদতে নব্য জেমবির মতো সংগঠন এ হামলা চালাতে পারে। আবার সংগঠিত কোনো হামলা নয় বরং লোন উল্ফ বা ব্যক্তি পর্যায়ে আলাদাভাবে এ হামলা হতে পারে, যাতে গোয়েন্দা সংস্থাগুলো বুঝতে না পারে। গত কয়েক মাসে সংগ্রহ করা বিভিন্ন তথ্য বিশ্লেষণ করে ভারতীয় গোয়েন্দারা এমন আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন বলে দেশটির গণমাধ্যমে বলা হয়েছে।

 

খবরে বলা হয়েছে, সাম্প্রতিক সময়ে লন্ডন, প্যারিস, নিউ ইয়র্কের মতো জায়গায় এ রকমই বেশ কয়েকটি হামলা হয়। হামলা পরবর্তী সময়ে আইএস তার দায় নিয়েছে বটে, কিন্তু হামলাকারীর সঙ্গে তাদের সাংগঠনিক কোনো সরাসরি যোগাযোগ পাওয়া যায়নি।

 

ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর সূত্রের বরাত দিয়ে আনন্দবাজার বলছে, গত কয়েক মাস ধরে আইএসের মতো সংগঠনের বিভিন্ন প্রচার শাখা ইন্টারন্যাশনাল সোসাইটি ফর কৃষ্ণ কনসাসনেস (ইসকন)-কে ‘হিন্দুত্বের প্রতীক’ হিসেবে প্রচার শুরু করেছে। সম্প্রতি ‘উম্মাহ নিউজ’ নামে আইএসের একটি প্রচার চ্যানেলেও ইসকনকে ‘হিন্দুত্বের প্রতীক’ হিসেবে তুলে ধরে আক্রমণ করা হয়েছে।

 

ভারতীয় গোয়েন্দাদের দাবি, আইএস মনোভাবাপন্ন বিভিন্ন জঙ্গি গোষ্ঠীর যে সব নথি তারা পেয়েছেন, তা থেকে স্পষ্ট— ওই সংগঠনের ওপর হামলার ছক কষা হয়েছে।

 

এক গোয়েন্দার কথায়, ‘সামগ্রিকভাবে ইসকন ওদের টার্গেট। এখনও পর্যন্ত পাওয়া বিভিন্ন তথ্য যা ইঙ্গিত দিচ্ছে, তা থেকে আমাদের ধারণা, বাংলাদেশে ইসকনের কোনো মন্দিরে হামলার পরিকল্পনা করা হচ্ছে।’

 

অন্য এক গোয়েন্দা কর্মকর্তা স্বীকার করেন, এখনও পর্যন্ত পাওয়া বিভিন্ন তথ্য সে রকমই ইঙ্গিত দিচ্ছে। তার ব্যাখ্যা, ভারত এবং বাংলাদেশে জিহাদিরা ক্রমাগত কোণঠাসা হচ্ছে। অন্যদিকে, ইরাক এবং সিরিয়াতেও একের পর এক ঘাঁটি হারিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে আইএসের।

 

তিনি বলেন, ‘নব্য জেএমবিকে সামনে রেখে বাংলাদেশে নিজেদের সংগঠিত করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে আইএস। কিন্তু ঢাকা হোলি আর্টিজান কাফে অ্যাটাক ছাড়া বড় কোনো হামলায় সাফল্য পায়নি নব্য জেএমবি। উল্টে গত দুই বছরে তাদের সংগঠন ক্রমাগত দুর্বল হয়েছে, লাগাতার পুলিশি অভিযানে।’

 

প্রসঙ্গত, ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থা ও গোয়েন্দাদের বরাতে আনন্দবাজার এ প্রতিবেদন প্রকাশ করলেও কোনো সুনির্দিষ্ট গোয়েন্দা সংস্থা বা কোনো গোয়েন্দা কর্মকর্তার নাম উল্লেখ করা হয়নি।

 

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইসকনের অন্যতম মুখপত্র রাধারমন দাসের সঙ্গে এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘একটা আশঙ্কা আমাদের মধ্যেও তৈরি হয়েছে।’

 

বাংলাদেশে তাদের ১৯টি মন্দির রয়েছে জানিয়ে রাধারমন বলেন, ‘গত কয়েক মাস ধরে আমরাও নিরাপত্তার অভাব বোধ করছি।’

 

ইসকনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, বাংলাদেশে বিভিন্ন জায়গায় তাদের সংগঠন প্রত্যন্ত গ্রামে ছাত্রছাত্রীদের মিড-ডে মিল সরবরাহ করে। ফলে তাদের সদস্যদের প্রত্যন্ত গ্রামেও নিয়মিত যাতায়াত। সে বিষয়টি মেনে নিতে পারছে না কিছু জিহাদি সংগঠন।

 

রাধারমন দাসের দাবি, তারা ইতিমধ্যেই নিরাপত্তাহীনতার বিষয়টি ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্করকে অবহিত করেছেন। সেইসঙ্গে বাংলাদেশ সরকার এবং ভারতীয় দূতাবাসকেও বিষয়টি জানানো হয়েছে।

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ