June 2, 2020, 12:33 am

শিরোনাম :
করোনার উপসর্গ নিয়ে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) এক শিক্ষকের মৃত্যু যুক্তরাষ্ট্র চীনা স্বার্থের কোনো ক্ষতি করলে সম্মুখ পাল্টা ব্যবস্থা নেয়ার ঘোষণা দিয়েছে বেইজিং ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগ নেতা সোহেল শাহরিয়ার রানার ত্রাণ বিতরণ করোনাভাইরাস মহামারী মোকাবেলায় এবার ব্যাংক আমানতকারীদের বিশেষ সুবিধা দিয়েছে সরকার মহামারী মরন ব্যাধী করোনায় আক্রান্ত সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম এমপি কেশবপুরে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ১৩ জনের সকলেই সুস্থ রসিকের সহকারী প্রকৌশলী বরখাস্ত পাড়ায় পাড়ায় আর কোন বৃদ্ধাশ্রম নয়; ঘরে ঘরে যেনো আনন্দাশ্রম হয়” পীরগঞ্জে আনন্দাশ্রম উদ্বোধন লামা’র ফাইতং খেদারবান ডেভেলপমেন্ট সোসাইটি’র পক্ষ থেকে এসএসসি/দাখিল পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের সংবর্ধনা কেশবপুরে ঘুড়ি উড়াতে যেয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে এক শিশুর মৃত্যু

হাই কোর্টে আটকে গেল ঢাকার সিটি নির্বাচন

Spread the love

হাই কোর্টে আটকে গেল ঢাকার সিটি নির্বাচন

ডিটেকটিভ নিউজ ডেস্ক

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র পদে উপ-নির্বাচন ও সম্প্রসারিত অংশের কাউন্সিলর নির্বাচন তিন মাসের জন্য স্থগিত করে দিয়েছে আদালত। সেই সঙ্গে ওই নির্বাচনের জন্য নির্বাচন কমিশনের ঘোষিত  তফসিল কেন ‘আইনগত কর্তৃত্ব বহির্ভূত’ ঘোষণা করা হবে না- তা জানতে চেয়ে হাই কোর্ট রুল জারি করেছে। দুটি রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে বিচারপতি নাইমা হায়দার ও বিচারপতি জাফর আহমেদের হাই কোর্ট বেঞ্চ গতকাল বুধবার এ আদেশ দেয়। আনিসুল হকের মৃত্যুতে শূন্য হওয়া ঢাকা উত্তরের মেয়র পদে উপনির্বাচন এবং দুই সিটিতে নতুন যুক্ত হওয়া ৩৬টি ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত আসনের কউন্সিলর নির্বাচনের জন্য গত ৯ জানুয়ারি তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। সেখানে ২৬ ফেব্রুয়ারি ভোটের দিন ঠিক করে নির্বাচনের বিস্তারিত সময়সূচি দেওয়া হয়। ওই তফসিলের বৈধতা চ্যালঞ্জ করে এবং তফসিলের কার্যকরিতার ওপর স্থগিতাদেশ চেয়ে মঙ্গলবার হাই কোর্টে রিট আবেদন করেন ভাটারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান ও বেরাইদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম। তাদের মধ্যে আতাউর ভাটারা থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক, আর জাহাঙ্গীর বাড্ডা থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। তাদের দুই ইউনিয়নকে সিটি করপোরেশনের সম্প্রসারণে ওয়ার্ড হিসেবে যুক্ত করে নেওয়া হয়েছে। আতাউর রমানের পক্ষে হাই কোর্টে শুনানি করেন মোস্তাফিজুর রহমান খান ও আহসান হাবিব ভূঁইয়া। আর জাহাঙ্গীর আলমের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী কামরুল হক সিদ্দিকী ও মো. জাহাঙ্গীর হোসাইন সেলিম।  রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. মোখলেছুর রহমান।

রিটকারী পক্ষ শুনানিতে বলে, ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী ১৮ জানুয়ারি মধ্যে মনোনয়নপত্র জমা দিতে বলা হলেও এখন পর্যন্ত চূড়ান্ত ভোটার তালিকাই প্রকাশ করা হয়নি।

আহসান হাবিব ভূঁইয়া যুক্তি দেন, এখন যিনি প্রার্থী হবেন, তিনি কিন্তু জানেন না তিনি ভোটার কিনা। তাছাড়া মনোনয়নপত্রে ৩০০ ভোটারের স্বাক্ষর থাকতে হবে। ভোটার তালিকা প্রকাশ না হলে সেটা কীভাবে সম্ভব?

স্থানীয় সরকার (সিটি করপোরেশন) আইন, ২০০৯ এর ৫ (৩) উপধারায় বলা হয়েছে, মেয়রের পদসহ করপোরেশনের শতকরা পঁচাত্তর ভাগ ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হইলে এবং নির্বাচিত কাউন্সিলরগণের নাম সরকারি গেজেটে প্রকাশিত হইলে, করপোরেশন, এই আইনের অন্যান্য বিধান সাপেক্ষে, যথাযথভাবে গঠিত হইয়াছে বলিয়া গণ্য হইবে। আহসান হাবিব ভূঁইয়া বলেন, উত্তর সিটি করপোরেশনে নতুন যুক্ত হওয়া ১৮টির ওয়ার্ড ধরলে কাউন্সিলরের সংখ্যা পঁচাত্তর শতাংশ হয় না। কারণ নতুন ১৮টিতে তো নির্বাচনই হয়নি। সে হিসাবে মেয়র পদই তো গঠিত হচ্ছে না। তাছাড়া সম্প্রসারিত ৩৬টি ওয়ার্ডে যারা কাউন্সিলর হবেন, তারা পুরো পাঁচ বছর পাবেন না- কেন সে বিষয়েও প্রশ্ন তোলা হয় ওই রিট আবেদনে।

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ