September 18, 2019, 10:02 pm

শিরোনাম :
অতিরিক্ত যানজট ও দূর্ঘটনা কমাতে পরিবেশ সুন্দর রাখতে তানোর থানার মোড়ে ওসি খাইরুল ইসলামের উদ্যোগ ছুটে চলেছেন পর্বতারোহী তরুণ শাহাদাত নবীগঞ্জে এক হিন্দু পরিবারের ইসলামধর্ম গ্রহণ রংপুরের পীরগঞ্জের চন্ডিপুরে জঙ্গল থেকে ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রীর মরদেহ উদ্ধার রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অধ্যক্ষসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে দুদক কর্তৃক ৪ কোটি ৪৮ লাখ টাকা আত্মসাতের মামলা পিরোজপুরের স্বরূপকাঠী প্রেসক্লাবের সাথে উপজেলা ও পুলিশ প্রশাসনের মত বিনিময় মৌলভীবাজারে পেঁয়াজের দাম লাগামহীন, বিপাকে নিন্ম আয়ের মানুষ নাটোরে বাবু শংকর গোবিন্দ চৌধুরীর ২৪তম মৃত্যু বার্ষিকী পালিত পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলামের সভাপতিত্বে কুমিল্লায় জেলা পুলিশের মাসিক কল্যান সভা অনুষ্ঠিত মোংলা বন্দর রুপ নিতে যাচ্ছে গোল্ডেন বন্দরে

সিয়াচেনে মাইনাস ৬০ ডিগ্রি তাপমাত্রা, হাতুড়ির ঘায়েও ভাঙছে না ডিম

Spread the love

সিয়াচেনে মাইনাস ৬০ ডিগ্রি তাপমাত্রা, হাতুড়ির ঘায়েও ভাঙছে না ডিম

ডিটেকটিভ আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ঠাণ্ডা, জনশূন্য এক এলাকায় বয়ে যাচ্ছে বরফশীতল বাতাস; তার মধ্যেই তিনজন মানুষ বরফের মতো শক্ত হয়ে যাওয়া জুসের বাক্স, ডিম ও সবজির বরফ গলাতে প্রাণপণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। দুর্গম চড়াইয়ে টিকে থাকার চ্যালেঞ্জে জিততে কথা বলতে বলতেই হাতুড়ি দিয়ে হিমায়িত ওই খাদ্যদ্রব্যগুলোকে একের পর এক আঘাত করেও ফল মিলছে না।

কোনো ‘সার্ভাইভ্যাল ড্রামা’ চলচ্চিত্রের দৃশ্য নয়; সিয়াচেনে বৈরি প্রকৃতির সঙ্গে প্রতি মুহুর্তে লড়াই করা ভারতীয় সৈন্যদের বেঁচে থাকার এমন একটি ভিডিও ভারতজুড়ে আলোড়ন তুলেছে বলে জানিয়েছে এনডিটিভি। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হওয়া ওই ভিডিওতে ভূপৃষ্ঠ থেকে কয়েক হাজার ফুট উচ্চতার ঘাঁটিতে থাকা তিন সেনাকে সরবরাহকৃত হিমায়িত খাদ্য খাওয়ার উপযুক্ত করতে লড়তে দেখা গেছে। ভিডিও শুরুতে এক সৈন্য হিমায়িত একটা জুসের বাক্স কেটে ভেতর থেকে ইটের মতো শক্ত হয়ে যাওয়া জুস বের করে আনেন। সঙ্গে থাকা অপর এক সৈন্য হাতুড়ি দিয়ে বেশ কয়েক বার আঘাত করলেও জুসের ওই ‘ইট’ ভাঙেনি। তিন সেনা এরপর পাথরের মতো শক্ত হয়ে যাওয়া ডিমগুলোকে হাতুড়ি দিয়ে ভাঙার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন। সৈন্যদের একজন পাথরের ফলকে আছাড় দিয়েও ডিমগুলো ফাটাতে পারেননি। “হিমবাহে আপনি এ ধরনের ডিমই পাবেন,” সৈন্যদের একজনের এমন কৌতুকে সহকর্মীরাও হেসে উঠেন। ভিডিওতে এরপর তিন সৈন্যকে পেঁয়াজ, টমোটো, আদা ও আলু ভাঙতেও দেখা গেছে। “তাপমাত্রা এখানে মাইনাস ৭০ ডিগ্রিতেও নেমে যায়। জীবন এখানে নরক,” বলেন এক সৈন্য; পেছনে বিস্তৃত সাদা ক্যানভাসে দেখা যাচ্ছিল তাদের ক্যাম্পটি।

তিন সৈন্যের এ ভিডিও টুইটারে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ে; সেখানে হাজার হাজার মানুষ সৈন্যদের মনোবল ও সহনশীলতার ভূয়সী প্রশংসা করেন। “সিয়াচেনের জীবন যে এত কঠিন হতে পারে, তা সবারই ধারণা বাইরে। তাপমাত্রা মাইনাস ৩০ বা মাইনাস ৪০ এ নেমে গেলে চাল কিংবা ডাল রান্নাই কঠিন হয়ে যায়,” বলেছেন এক টুইটার ব্যবহারকারী। “সিয়াচেনের হিমবাহে সৈন্যদের জীবন: ফ্রোজেন জুস হয়ে যায় ইট, ডিম ভাঙতে লাগে হাতুড়ি, কিন্তু এমন ভয়ানক পরিস্থিতিও তাদের (সৈন্য) হাসি মুছতে পারেনি,” লিখেছেন নীরজ রাজপুত নামে এক ব্যবহারকারী। পূর্ব কারাকোরাম পবর্তমালায় ভারত-পাকিস্তান সীমান্তের ভূপৃষ্ঠ থেকে প্রায় ২০ হাজার ফুট উচ্চতার সিয়াচেন বিশ্বের অন্যতম শীতল যুদ্ধক্ষেত্র হিসেবে পরিচিত। বৈরি প্রতিপক্ষের পাশাপাশি এখানে সৈন্যদের ফ্রস্টবাইট ও হিমবাতাসের সঙ্গেও লড়তে হয়। তাপমাত্রা ৬০ এর নিচে নেমে এলে ওই হিমবাহ এলাকায় বরফধস ও ভূমিধসের ঘটনাও নিয়মিতই ঘটে।

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ