May 30, 2020, 11:49 am

শিরোনাম :
ঘূর্ণিঝড় আম্পানের প্রভাবে দু’দিন বন্ধ থাকার পর ২৮ মে ২০২০ ইং তারিখ বৃহস্পতিবার সকাল থেকে চট্টগ্রাম বন্দরের কার্যক্রম আবার শুরু হয়েছে করোনা মহামারীতে বিপর্যস্ত অর্থনীতি বাঁচাতে দুই মাস পর তুরস্কে ট্রেন চালু মহামারী মরন ব্যাধী করোনা যুক্তরাষ্ট্রের পরেই ব্রাজিল, একদিনে সর্বোচ্চ আক্রান্তের রেকর্ড করোনাভাইরাসের প্রকোপ বাড়তে থাকায় দক্ষিণ কোরিয়ার স্কুলগুলো আবারও বন্ধ করা হয়েছে মহামারী মরন ব্যাধী করোনায় একদিনে আরও ২৮ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৭৬৪ রংপুরে কথিত জিনের বাদশা চক্রের চার সদস্য গ্রেফতার প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত মোবাইল উদ্ধার! রাজশাহী বিভাগে করোনা রোগী একদিনে বেড়েছে ৪৩ পুলিশের অভিযানে রাজশাহীর তানোরে ৪ বছরের সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামী গ্রেফতার! লক্ষ্মীপুরে শিশুর শরীরে ইনজেকশন পুশ করা সেই খুকি বেগম গ্রেফতার বোয়ালমারীতে নতুন করে ৩ জনের করোনা শনাক্ত, উপজেলায় মোট আক্রান্ত ৪৬

সিঙ্গাপুর ২০২২ সালের মধ্যে স্বচালিত বাস নামাবে

Spread the love

সিঙ্গাপুর ২০২২ সালের মধ্যে স্বচালিত বাস নামাবে

ডিটেকটিভ প্রযুক্তি ডেস্ক

২০২২ সালের মধ্যে রাস্তায় স্বচালিত বাসের ব্যবহার শুরু করার পরিকল্পনা করেছে সিঙ্গাপুর।

দেশটির সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয় তিনটি নতুন প্রতিবেশী অঞ্চলে বাসগুলোর পাইলট প্রকল্প চালানো হবে। বাসগুলোর জন্য এ অঞ্চলগুলোতে অপেক্ষাকৃত কম মানুষের ভীড় থাকবে, বলা হয়েছে বিবিসি’র প্রতিবেদনে।

এই অঞ্চলের বাসিন্দাদেরকে এলাকার মধ্যে এবং নিকটবর্তী ট্রেন ও বাস স্টেশনে যাতায়াতে সহায়তা করবে স্বচালিত বাসগুলো।

ঘনবসতিপূর্ণ দেশটির সরকার মনে করে, স্বচালিত প্রযুক্তি তাদের জমি সীমাবদ্ধতার বিষয়টি ঠিক রাখতে ও কর্মশক্তির ঘাটতি কমাতে সহায়তা করবে।

দেশটির পরিবহন মন্ত্রী খও বুন ওয়ান বলেন, “স্বচালিত যান আমাদের জনগণের যাতায়াত ব্যবস্থার সঙ্গে দারুণ সংযোগ তৈরি করবে, বিশেষ করে বয়স্ক এবং শিশু রয়েছে এমন পরিবারের ক্ষেত্রে।”

বর্তমানের মানবচালিত বাস সেবার বিকল্প হিসেবে স্বয়ংক্রিয় বাসগুলো ব্যবহার করা হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। প্রাথমিকভাবে ‘অফপিক আওয়ার’-এ বাসগুলো চালানো হবে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়।

রাস্তায় টোল এবং নীতিমালার কারণে দক্ষিণ এশিয়ার অনেক শহরের চেয়ে ট্রাফিক জ্যাম কম সিঙ্গাপুরে। এবার স্বচালিত প্রযুক্তিতে শীর্ষস্থানে যাওয়ার প্রত্যাশা করছে দেশটি।

বুধবার স্বচালিত যানের একটি পরীক্ষা কেন্দ্র উন্মোচনকালে খও বলেন, “জমির ক্ষেত্রে আমাদের সীমাবদ্ধতা আমাদেরকে শহরের গতিশীলতার সমাধান দিতে বৈশ্বিক খেলোয়াড় হতে সহায়তা করতে পারে। এখানে যা কাজ করবে তা অন্য শহরেও কাজ করবে।”

নতুন এই পরীক্ষা কেন্দ্রে গাড়ি এবং বাসগুলো কীভাবে পথচারী, ভারী বৃষ্টিপাত, আক্রমণাত্মক চালক, সাইক্লিস্ট, স্কুটার এবং অন্যান্য পরিস্থিতি সামাল দেয় তা পরীক্ষা করতে পারবেন স্বচালিত প্রযুক্তির ডেভেলপাররা।

অন্তত ১০টি প্রতিষ্ঠান বর্তমানে সিঙ্গাপুরে স্বচালিত গাড়ির প্রযুক্তি পরীক্ষা করছে বলে জানিয়েছেন খও।

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ