November 9, 2019, 6:47 am

শিরোনাম :
মনিরামপুরে সন্তানের পিতৃপরিচয় ও স্ত্রীর স্বীকৃতি পেতে আদালতে মামলা সাংবাদিক নূরে ইসলাম মিলনের বড় চাচার মৃত্যুতে রাজশাহী প্রেসক্লাবসহ বিভিন্ন মহলের শোক প্রকাশ পঞ্চগড়ে বাসের ধাক্কায় ইজিবাইকের চালকসহ নিহত ৭ সুন্দরবনের দিকে ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’, ৪ নম্বর সংকেত সম্মেলন ঘিরে অসুস্থ প্রতিযোগিতা বরদাশত করা হবে না: ওবায়দুল কাদের ১৬ ডিসেম্বরের মধ্যে রাজাকারদের তালিকা ঘোষণা করা হবে: মোজাম্মেল হক এ সরকারের পতনের আগে যেন আমার মৃত্যু না হয়: রব নিজেদের দুর্নীতিই সরকারের পতন ডেকে আনবে: মওদুদ আর প্রেস ক্লাব নয়, যা হবে রাস্তায়: গয়েশ্বর ভিসিকে রক্ষা করতে দুর্নীতির পক্ষে সাফাই গেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী: রিজভী

সরকার ভয় পেয়েছে: ফখরুল

Spread the love

সরকার ভয় পেয়েছে: ফখরুল

ডিটেকটিভ নিউজ ডেস্ক

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের চট্টগ্রামের সমাবেশে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, সরকার ভয় পেয়েছে। সভা করতে দেয় না। রাস্তার অর্ধেক দিয়েছে। লালদীঘি মাঠ চেয়ে পাইনি। পুলিশ ২৫টি শর্ত জুড়ে দিয়েছে। রাস্তায় অনুমতি দিয়েছে। ফলে মানুষের কষ্ট বেড়েছে। গতকাল শনিবার দুপুরে চট্টগ্রাম নগরীর কাজীর দেউরির নাসিমন ভবনের সামনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট আয়োজিত সমাবেশে মির্জা ফখরুল এসব কথা বলেন। ১৪ শর্তে সিলেটে সমাবেশ হওয়ার পর চট্টগ্রামের লালদীঘির ময়দানে সমাবেশের অনুমতি চেয়েছিল জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। পরে সেই ময়দানে সমাবেশের অনুমতি না দিয়ে ২৫ শর্তে নাসিমন ভবন ও বিএনপি দলীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশের অনুমতি দেয় চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশ (সিএমপি)। গতকাল শনিবার সমাবেশে বক্তব্য দিতে গিয়ে মির্জা ফখরুল এ বিষয়েই কথা বলেন। এ সময় সাত দফা দাবি আদায় না করে ফিরবেন না বলেও জানান বিএনপির মহাসচিব। মির্জা ফখরুল বলেন, কারো কাছে মাথা নত করব না, পরাজিত হব না। গায়ের জোরে বন্দুকের নলের মুখে কেউ কোনোদিন টিকে থাকতে পারেনি, পারবে না। জনগণের অধিকার ফিরিয়ে আনতে লড়াই চলছে। আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরীকে (বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য) আটক করে নিয়ে গেলেন, এরপর কারাগারে পাঠালেন। এত ভয় কেন? আপনাদের ভয়ের কারণ, আপনারা জানেন যে, যদি ভোট দেওয়ার সুযোগ পায় আপনাদের ভাঙা নৌকায় জনগণ আর উঠবে না। আমরা অন্যায়ের কাছে মাথা নত করব না। মির্জা ফখরুল ইসলাম আরো বলেন, জনগণকে বাধা দিয়ে বিশ্বের কোনো সরকার ঠিকে থাকতে পারেনি। বাংলাদেশেও পারবে না। এখন নতুন লড়াই শুরু হয়েছে। অধিকার ফিরিয়ে আনার লড়াই। দেশে নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে জনগণ আর ভাঙায় নৌকায় উঠবে না। গত ১০ বছরে আমাদের দলের অনেক নেতাকর্মীকে হারিয়েছি। অনেক মা-বাবা তাদের সন্তান হারিয়েছে। হাজার হাজার মানুষ কারাগারে বন্দী। সরকারকে ইঙ্গিত করে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, নৌকা নিয়ে লাফালাফি করিয়েন না। এ ভাঙা নৌকায় জনগণ উঠবে না। ফখরুল ইসলাম বলেন, এ সরকারের ওপর জনগণের আস্থা নেই। তারা মামলা দিয়ে জনগণের আন্দোলন বন্ধ করতে চায়। জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আন্দোলন জনগণের মুক্তির আন্দোলন।এ আন্দোলন তখনই থামবে যখন এ সরকার পতন হবে। বিএনপি নাকি নাশকতা করে অথচ নাশকতার মূল কারিগর তারা। বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান বলেন, বিএনপি জনগণের দল। আজকের জনসভা জানান দিচ্ছে জনগণ কার পক্ষে। জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের দাবি না মানলে নির্বাচনে যাওয়ার প্রশ্নই ওঠে না। বিভাগীয় সমাবেশ কর্মসূচির অংশ হিসেবে গতকাল শনিবার চট্টগ্রামে সমাবেশ করেছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। দুপুরে নগরীর কাজীর দেউরি নাসিমন ভবনের সামনে সমাবেশটি শুরু হয়। চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেনের সভাপতিত্বে এই সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক ও গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল হোসেন। সমাবেশে আরো বক্তব্য দেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, মির্জা আব্বাস, জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রব, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, আওয়ামী লীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক, ডাকসুর সাবেক ভিপি সুলতান মো. মনসুর প্রমুখ।

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ