April 5, 2020, 9:18 am

শিরোনাম :
প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসকে জয় করে সুস্থ হয়ে উঠছেন বলিউডের সেই গায়িকা কেউ যেন ঢাকায় প্রবেশ বা বের হতে না পারে,পুলিশের মহাপরিদর্শক আইজিপি ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারীর নির্দেশ জরুরি সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মহামারী প্রাণঘাতি করোনাভাইরাসের দুর্বলতার খোঁজ পেলেন বিজ্ঞানীরা! কেশবপুরে ভ্রাম্যমাণ আদালতে দু’ব্যাবসায়ীকে জরিমানা সামাজিক দূরত্ব মেনে চৌদ্দগ্রামে চেয়ারম্যান জাফর ইকবালের উদ্যোগে ৪৫০ হতদরিদ্র পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ কক্সবাজার পৌরসভায় আজ রোববার থেকে ১০ টাকা দামের চাল বিক্রি শুরু ভ্রাম্যমান টিসিবির পণ্যসামগ্রী বিক্রয়ের উদ্বোধন করলেন এমপি আলহাজ্ব ওমর ফারুক চৌধুরী কেশবপুরে ওড়নায় ফাঁস দিয়ে এক ছাত্রীর আত্মহত্যা ফোন দিলে ঘরে পৌঁছে যাবে খাদ্য সহায়তা
বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট। ছবি: সংগৃহীত

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার ঘোষিত চূড়ান্ত ফলাফল কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছে হাইকোর্ট

Spread the love

মোহাম্মদ ইকবাল হাসান সরকারঃ

বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট। ছবি: সংগৃহীত

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার ঘোষিত চূড়ান্ত ফলাফল কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছে হাইকোর্ট। রুলে প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক নিয়োগ বিধিমালা ২০১৩ লঙ্ঘন করে ২৪ ডিসেম্বর ঘোষিত ফলাফল কেন আইনগত কর্তৃত্ব বহির্ভূত ঘোষণা করা হবে না এবং একইসঙ্গে ঘোষিত ফলাফল বাতিল করে প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক নিয়োগ বিধিমালা ২০১৩ অনুসরণ করে নতুন ফলাফল কেন ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চেয়েছে হাইকোর্ট।এক রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে বিচারপতি এম ইনায়েতুর ও রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ আজ ১৪ জানুয়ারি ২০২০ ইং তারিখ মঙ্গলবার এ আদেশ দেন।দশ দিনের মধ্যে বিবাদীদের রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মো. কামাল হোসেন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত তালুকদার।গত ২৪ ডিসেম্বর রাতে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় মৌখিক পরীক্ষায় ১৮ হাজার ১৪৭ জন প্রার্থীকে নির্বাচন করে।কামাল হোসেন বলেন, প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক নিয়োগ বিধিমালা ২০১৩ এর ৭ ধারায় বলা হয়েছে, এই বিধিমালার অধীন সরাসরি নিয়োগযোগ্য পদগুলির ৬০ শতাংশ মহিলা প্রার্থীদের দ্বারা, ২০ শতাংশ পোষ্য প্রার্থীদের দ্বারা এবং বাকী ২০ শতাংশ পুরুষ প্রার্থীদের দ্বারা পূরণ করা হইবে। কিন্তু ২৪ ডিসেম্বর ঘোষিত ফলাফলে সেটা অনুসরণ করা হয়নি। তাই ১৬জন নিয়োগপ্রার্থী ওই ফলাফলের বৈধতা নিয়ে রিট করেছেন। আজ আদালত রুল জারি করেছেন।

প্রাইভেট ডিটেকটিভ/১৪ জানুয়ারি ২০২০/ইকবাল

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ