November 14, 2019, 9:35 am

সন্তান ও স্ত্রীকে অস্বীকৃতি, গাঁয়ে কিরোসিন ঢেলে আত্মহত্যার চেষ্টা

Spread the love

 

গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি।।
গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় বিবাহিত স্ত্রী ও সন্তানকে অস্বীকৃতি জানায় গাঁয়ে কিরোসিন ঢেলে স্বামীর বাড়িতে আত্মহত্যার চেষ্টা গৃহবধূর। স্থানীয়রা অসুস্থ্য ওই নারীকে উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ণ ইউনিটে ভর্তি করেছে। গতকাল ২ নভেম্বর শনিবার দিবাগত রাতে উপজেলার বামনডাঙ্গা ইউনিয়নের রামধন গ্রামে ঘটনাটি ঘটেছে।

স্থানীয়দের নিকট থেকে জানা গেছে, গত এক বছর পূর্বে মোবাইল-ফোনে কুঁড়িগ্রামের সদর উপজেলার আদুরী বেগমের সাথে পরিচয় হয় উপজেলার রামধন গ্রামের জহুরুল ইসলামের ছেলে মিজানুর রহমানের। মিজানুর রহমান আগের স্ত্রী ও সন্তানের কথা গোপন রেখে আদুরী বেগমকে বিয়ে করে। বেশ কিছুদিন আদুরীর বাবার বাড়িতে যাওয়া আসা করে মিজানুর।

এরপর থেকে আদুরীর সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয়। আদুরী খোঁজ নিয়ে জানতে পারে মিজানুর রহমানের স্ত্রী ও সন্তান রয়েছে। এরই মধ্যে আদুরী একটি সন্তান প্রসব। সন্তান ও স্ত্রীর দাবি নিয়ে শনিবার রাতে মিজানুরের বাড়িতে আসে আদুরী। মিজানুর ও তার পরিবারের লোকজন আদুরী এবং তার সন্তানকে মেনে নিতে অস্বীকৃতি জানায় এমনকি তাদের বাড়ি থেকে বের করে দেয়ার চেষ্টা করে। এরই একপর্যায় আদুরী গাঁয়ে কিরোসিন ঢেলে আগুন লাগিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে।

পর স্থানীয়রা আদুরীকে উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করায়। বর্তমানের তার অবস্থা আশঙ্কাজনক। গতকাল রোববার থানা অফিসার ইনচার্জ এস.এম আব্দুস সোবহান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত স্থানীয় এবং আদুরীর পরিবারের পক্ষ হতে কোন প্রকার লিখিত অভিযোগ পাওয়া যায়নি এমনকি আদুরীর পরিবারের ঠিকানাও পাওয়া যায়নি।

যোগাযোগ অব্যাহত রয়েছে। পরিবারের লোকজন আসলেই মামলা রুজু করা হবে এবং আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। মিজানুরসহ তার পরিবারের লোকজন পলাতক রয়েছে। বামনডাঙ্গা ইউপি চেয়ারম্যান নজমুল হুদা জানান, মিজানুর ভালোবেসে আদুরীকে বিয়ে করে এবং তার একটি সন্তানও রয়েছে।

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ