May 26, 2019, 6:58 am

র‌্যাবের পৃথক অভিযান; ৫১০ পিস ইয়াবা উদ্ধার; ৬ কারবারি আটক

Spread the love

আব্দুল্লাহ আল মামুন,বিশেষ প্রতিনিধিঃ

গতকাল ১২ মে র‌্যাব-১০ এর পৃথক দুটি অভিযানে চকবাজার থানা এলাকা থেকে

৫১০ পিস ইয়াবা (মাদক) ট্যাবলেট উদ্ধার ও ৬ মাদক কারবারিকে আটক করা হয়েছে বলে সিপিসি-৩ সূত্রে জানা যায়।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা অনুযায়ী দেশ থেকে সব ধরনের মাদক সমুলে উদ্ধার ও মাদক ব্যবসায়ীদের গ্রেফতারে র‌্যাব মহাপরিচালক কর্তৃক কঠোর নির্দেশনা প্রদানের প্রেক্ষিতে “চলো যাই যুদ্ধে, মাদকের বিরুদ্ধে” স্লোগানকে সামনে রেখে পবিত্র রমজান মাসেও অন্যান্য আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারিবাহিনীর মত র‌্যাবও (র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটলিয়ন) তাদের মাদক বিরোধী অভিযান অব্যাহত রেখেছে। মাদকের বিরুদ্ধে চলমান অভিযানের অংশ হিসেবে র‌্যাব-১০ সিপিসি-৩ লালবাগ ক্যাম্প কোম্পানী কমান্ডার মেজর মোহাম্মদ আনিসুজ্জামান এবং স্কোয়াড কমান্ডার সি. এএসপি মো. রেজাউল করিম পিপিএম. এর নেতৃত্বে একটি আভিযানিক দল গতকাল রাজধানীর চকবাজার থানা এলাকায় মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা করে।
এ সময় দুপুর ১’টার দিকে চকবাজার থানাধীন ৫ নং কাজী রিয়াজ উদ্দিন রোডস্থ (পোস্তার ঢাল) মেসার্স সজিব ষ্টোরের সামনের রাস্তার উপর হতে মো. বজলু লস্কর (২৫) ও মো. ফকরুল ইসলাম @ লিটন (৩৬) নামে দুই মাদক কারবারিকে গ্রেফতার করে র‌্যাব-১০, সিপিসি-৩। আটকদের হেফাজতে থাকা ৪৬০ পিস ইয়াবা (মাদক) ট্যাবলেট, ইয়াবা ক্রয়-বিক্রয়ের বিভিন্ন মূল্যমান নোটের নগদ ৪২৫০/- (চার হাজার দুইশত পঞ্চাশ) টাকা এবং ৪ টি সক্রিয় মোবাইল ফোনসেট জব্দ করা হয় বলে সূত্র জানায়। পরে র‌্যাবের এই চৌকস দলটি গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সন্ধ্যা ৬’টার দিকে একই ধানাধীন আর.এন.ডি রোডস্থ মো. ইকবাল হোসেনের ৫ম তলা বাড়ির ৪র্থ তলার উত্তর পার্শ্বের ফ্লাটে মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা করে। সেখানে অবস্থানরত মো. শাহীন (২০) মো. রুবেল মিয়া (৩১) মো. জুয়েল (৩১) ও মো. রাকিবুল ইসলাম (২০) নামে চার মাদক কারবারিকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয় র‌্যাব-১০, সিপিসি-৩। তাদের দখলে থাকা ১৫০ পিস ইয়াবা (মাদক) ট্যাবলেট, ইয়াবা ক্রয়-বিক্রয়ের বিভিন্ন মূল্যমান নোটের নগদ ১১৫০/- (এক হাজার একশত পঞ্চাশ) টাকা এবং ৩ টি সক্রিয় মোবাইল ফোনসেট জব্দ করা হয় বলে জানা যায়।
রিয়াজ উদ্দিন রোডস্থ পোস্তার ঢাল থেকে আটক ফকরুল ইসলামের পিতার নাম- মৃত সামছুল ইসলাম তালুকদার, সাং- গড়দুয়ারা, থানা- হাটহাজারী, জেলা- চট্টগ্রাম। বজলু লস্করের পিতার নাম- নুরু লস্কর, সাং- সুতারকান্দি, থানা- রাজৈর, জেলা- মাদারীপুর, বর্তমানে সে দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানাধীন চুনকুটিয়া বেবী ষ্ট্যান্ডের ম্যানেজর ফারুকের বাড়ীর ভাড়াটিয়া। এবং আর.এন.ডি রোডস্থ মো. ইকবাল হোসেনের বাড়ি থেকে আটক রাকিবুল ইসলামের পিতার নাম- মো. খলিল আকন্দ, সাং- মুলনা, থানা- জাজিরা, জেলা- শরিয়তপুর, বর্তমানে সে লালবাগ থানাধীন শহীদনগর ৪ নং গলিস্থ লালু ফকিরের বাড়ির ভাড়াটিয়া। রুবেল মিয়ার পিতার নাম- মৃত: শাহজাহান মিয়া, সাং- ঝিটকা, থানা- হরিরামপুর, জেলা- মানিকগঞ্জ, বর্তমানে সে কামরাঙ্গীরচর থানা এলাকার সিলেটী বাজারস্থ মোসলেম উদ্দিনের বাড়ির ভাড়াটিয়া (শশুর বাড়ী)। জুয়েলের পিতার নাম- আব্দুস সামাদ, সাং- ৭০/২ বেগম বাজার, থানা- চকবাজার মডেল, ঢাকা। শাহীনের পিতার নাম- মো. শাহ আলম, সাং- ৩৮/১৯ ইসলামবাগ চেয়ারম্যান গলি, থানা- লালবাগ, ঢাকা মর্মে জানা যায়।
আটক আসামীদের বিরুদ্ধে চকবাজার থানায় নিয়মিত মামলা রুজুর বিযয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে জানান সিপিসি-৩ লালবাগ ক্যাম্প কোম্পানী অধিনায়ক মেজর মোহাম্মদ আনিসুজ্জামান।

প্রাইভেট ডিটেকটিভ/ ১৩ মে ২০১৯/ইকবাল

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ