June 1, 2020, 5:20 pm

শিরোনাম :
ভোলায় ডিবি পুলিশের অভিযানে ১০ পিচ ইয়াবাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী আটক কলাপাড়ায় ঈমাম মোয়াজ্জিনদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর সানুগ্রহ নগদ অর্থ বিতরণ আদমদীঘিতে দেশীয় অস্ত্রসহ তিন ডাকাত সদস্য গ্রেফতার চাকুরী জীবনে ২০ বছরে পদার্পণ করায় সৈয়দ নুরুল ইসলাম এসপি’কে বিভিন্ন মহলের অভিনন্দন! টানা ৭৩ দিন পর রাজশাহীর রাস্তায় দূরপাল্লার বাস! শিবগঞ্জে মানবতার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত হয়ে করোনায় আক্রান্ত রোগির পাশে দাড়ালেন সৈয়দ নুরুল ইসলাম এসপি! কলাপাড়ায় জীবানু মুক্তকরন টার্নেল স্থাপণ কলাপাড়া খাদ্যবান্ধব কর্মসূচীর চাল আত্মসাতের অভিযোগে দূদকের মামলা আলফাডাঙ্গায় কৃষকদের কাছ থেকে ধান কেনার জন্য উন্মুক্ত লটারি রাজাপুরে গ্রামে এসে ঢাবি শিক্ষার্থীর লঙ্কাকান্ড,আতঙ্কে এলাকাবাসী !

রিফাত হত্যা মামলার পলাতক ৮ আসামির মালামাল জব্দের নির্দেশ

Spread the love

রিফাত হত্যা মামলার পলাতক ৮ আসামির মালামাল জব্দের নির্দেশ

ডিটেকটিভ নিউজ ডেস্ক

বরগুনায় আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলার পলাতক আট আসামির মালপত্র জব্দের নির্দেশ দিয়েছে আদালত। বাদীপক্ষের আইনজীবী মুজিবুল হক কিসলু জানান, গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টায় বরগুনার জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আদালতের বিচারক মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম গাজী এ আদেশ দেন। মালপত্র জব্দ করা হল কি না তা আগামি ১৬ অক্টোবর আদালতকে জানাতে বলেছেন বিচারক। এই আট আসামির মধ্যে মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাত অভিযোগপত্রের ৩ নম্বর এবং মো. মুসা ৬ নম্বর আসামি। বাকি ছয়জন অপ্রাপ্তবয়স্ক। এ মামলায় জামিনে থাকা রিফাতের স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি ও আরিয়ান এদিন আদালতে হাজিরা দেন। আসামি রাকিবুল হাসান, রিফাত ফরাজী, রেজওয়ান আলী খান ওরফে টিকটক হৃদয়ের পক্ষে জামিন আবেদন করা হলে বিচারক তা নাকচ করে দেন। কারাগারে থাকা আরও সাত আসামিকে এদিন আদালতে হাজির করে পুলিশ। শুনানি শেষে তাদের আবার কারাগারে ফেরত পাঠানো হয়। গত ২৬ জুন বরগুনা জেলা শহরের কলেজ রোডে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা করা হয় রিফাতকে। ওই ঘটনার একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়লে দেশজুড়ে সমালোচনা হয়। ওই ঘটনায় রিফাতের বাবা দুলাল শরীফ বাদী হয়ে ১২ জনকে আসামি করে বরগুনা থানায় হত্যা মামলা করেন। মামলায় রিফাতের স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নিকে মামলায় ১ নম্বর সাক্ষী করা হয়। কিন্তু মিন্নির শ্বশুরই পরে হত্যাকাণ্ডে পুত্রবধূর জড়িত থাকার অভিযোগ তোলেন। এরপর ১৬ জুলাই মিন্নিকে বরগুনার পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে ডেকে নিয়ে দিনভর জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ। পরে সেদিন রাতে তাকে রিফাত হত্যা মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়। পরে হাই কোর্ট থেকে শর্তসাপেক্ষে জামিন পান মিন্নি। আর হত্যাকাণ্ডের প্রধান সন্দেহভাজন সাব্বির আহম্মেদ ওরফে নয়ন বন্ড গত ২ জুলাই পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হন। তদন্ত শেষে পুলিশ যে অভিযোগপত্র দেয়, সেখানে রিফাতের স্ত্রী মিন্নিসহ ২৪ জনকে আসামি করা হয়। সেই অভিযোগপত্র আমলে নিয়ে আদালত গত ১৮ সেপ্টেম্বর পলাতক নয় আসামির বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে। নয়জনের মধ্যে অপ্রাপ্তবয়স্ক একজন গত বুধবার বরগুনার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে আত্মসমর্পণ করলে বিচারক তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ