May 29, 2020, 4:23 am

শিরোনাম :
১ দিনে শরীয়তপুর জেলায় নতুন করে করোনা সনাক্ত ৩৬ জন রংপুরের গঙ্গাচড়া উন্নয়ন পরিষদের কার্যনির্বাহী কমিটি গঠন হামরকোনা বয়েজ ক্লাবের সার্বিক সহায়তায়” লোটন ইউ.কে প্রবাসীদের পক্ষ থেকে খাদ্য সামগ্রী বিতরন আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্থ্যদের পাশে সেনাবাহিনী মাঠ পরিক্রমা বিশ্বব্যাপী করোনা মহামারিতে নিরবে মানবতার সেবায় কাজ করে যাচ্ছেন নৌকার সর্মথক গোষ্ঠীর সদস্য সচিব হারুনুর রশীদ রবি কুয়াকাটায় মেয়েকে বাল্যবিয়ে দিতে বাবার চাপ সৃষ্টি বোয়ালমারীতে আ’লীগের মধ্যে পৃথক ৫টি সংঘর্ষে ভাংচুর লুটপাট আহত ৫০ আটক ১০ “জাগো মানবতা” ফাউন্ডেশনের সভাপতি মোঃ হাছান ও সাধারন সম্পাদক মোঃ ফয়সাল নির্বাচিত চৌদ্দগ্রামের এক ব্যক্তির করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু স্বামীর নির্যাতনের শিকার হয়ে স্ত্রী হাসপাতালে ভর্তি,অভিযোগ যৌতুকের দাবী !

রাজশাহীতে ঘূর্ণিঝড় আম্পান এর তাণ্ডবে আম বাগান ও বিদ্যুৎসহ বিভিন্ন অবকাঠামোর ব্যাপক ক্ষতি!

Spread the love

রুহুল আমীন খন্দকার, ব্যুরো প্রধান :

দেশের অন্যান্য অঞ্চলের ন্যায় ঘূর্ণিঝড় আম্পানের ভয়াল থাবায় রাজশাহীতে আমের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে মাথায় হাত পড়েছে আমচাষীদের। সরণ কালের সবচেয়ে মারাত্মক ঘূর্ণিঝড় প্রবাহিত হওয়ার ফলে ইতোমধ্যেই বিদ্যুৎ এর লাইনের বেহাল দশা, গাছপালা ভেঙ্গে পড়েছে, ফসলি জমির ব্যাপক ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে।এবার এমনিতেই আমের দাম নিয়ে শঙ্কায় ছিলেন আমচাষীরা। এর মধ্যে ঝড়ে আমের অনেক ডাল-পালাও ভেঙে গেছে, ঝরে পড়েছে গাছের আম। বাগানগুলোতে বৃহস্পতিবার (২১ মে) ২০২০ ইং সকালে ঝরে পড়া আমের স্তূপ পড়ে থাকতে দেখা যায়। রাজশাহী তথা বিভিন্ন উপজেলার আমচাষীরা বলছেন, গাছের বড় আম সব ঝরে গেছে। গাছের দিকে তাকালে মনে হচ্ছে গাছে আমই নেই। বাগানে গিয়ে মনে হচ্ছে এবার ব্যাপারীই আসবেন না।রাজশাহী কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক শামসুর হক গণমাধ্যম কর্মীদের জানান, আমরা ঝড়ের পর বিভিন্ন অঞ্চল ঘুরে দেখেছি। আম্পানের ফলে রাজশাহীতে মোট আমের ১২ থেকে ১৫ শতাংশ ঝরে গেছে। তবে এবার আমের উৎপাদনের যে লক্ষ মাত্র ধরা হয়েছে তা এই ১২ থেকে ১৫ শতাংশ ঝরে পড়ার পরও লক্ষ্য মাত্র পূরণ হবে।এদিকে রাজশাহী মহানগরীসহ তানোর, গোদাগাড়ী, পুঠিয়া, দুর্গাপুর, বাঘা, চারঘাট, পবা, বাগমারা ও মোহনপুরেও ঝড়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে জেলার বাঘা-চারঘাট, পুঠিয়া ও দৃর্গাপুরের আমচাষিদের। এই ৪টি উপজেলাতেই আমচাষ সাধারণত বেশি হয়ে থাকে।এবার জেলায় ১৭ হাজার ৬৮৬ জমিতে ২ লাখ ১০ হাজার ৯ শত ৪৭ মেট্রিক টন আমের লক্ষ্য মাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। বাম্পার ফলন না হলেও লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হবে বলে জানান এই প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা।এ বিষয়ে রাজশাহী জেলা প্রশাসক (ডিসি) মো. হামিদুল হক বৃহস্পতিবার গণমাধ্যম কর্মীদের বলেন, সকাল থেকে বিভিন্ন উপজেলায় ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নিরুপণে উপজেলা প্রশাসনকে নির্দেশনা দিয়েছি। তাদের সাথে কথা বলে এখনও যেটুকু ধারণা, তাতে ঝড়ে রাজশাহীর বাগানগুলোর ১২ থেকে এলাকা ভেদে সর্বোচ্চ ২০ শতাংশ আম ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তবে বিস্তারিত ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ পরে জানা যাবে।জেলা প্রশাসক হামিদুল হক আরও বলেন, জেলায় আম-লিচু ছাড়াও বোরো ধান, পানসহ অন্যান্য কৃষি ফসল ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। গ্রামাঞ্চলের কিছু বাড়িঘর ভেঙে পড়ার খবরও পেয়েছি। ইউএনও ও কৃষি কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্টরা খোঁজ-খবর নিয়ে প্রতিবেদন তৈরী করছেন। এছাড়াও ঝড়ের মধ্যে বাড়ি থেকে বেরিয়ে মোহনপুর উপজেলায় এক নারীর মৃত্যু হয়েছে বলেও জানান জেলা প্রশাসক।এদিকে, বুধবার (২০ মে) দিবাগত রাত সাড়ে  থেকে রাজশাহীতে আম্পানের প্রভাবে ঝড়ো হাওয়া ও বৃষ্টি শুরু হয়। রাত বাড়ার সাথে সাথে বাড়তে থাকে ঝড়ের গতিবেগও। রাত ১১টা থেকে গোটা রাজশাহীতে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে।রাজশাহী আবহাওয়া অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, রাজশাহীতে  বুধবার সন্ধার পর থেকেই ঝড়ো বাতাস ও গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টিপাত শুরু হয়। রাত ১০টা থেকে ভোর ৬টা পর্যন্ত ৩০ থেকে ৪০ কিলোমিটার বেগে ঝড় হয়েছে। এর মধ্যে ২টা ৫৫ মিনিট থেকে ২টা ৫৮ মিনিট পর্যন্ত ৫৯ কিলোমিটার বেগে ঝড় হয়েছে। ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে বুধবার বিকেল থেকে বৃহস্পতিবার ভোর পর্যন্ত ৮১ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়। এই ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে বুধবার রাত্রি থেকে গোটা রাজশাহীতে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে।এদিকে, বৃহস্পতিবার সকাল ৯টার দিকে রাজশাহী নগরীর বিভিন্ন স্থানে বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু করা হয়েছে। তবে রাত্রি ১১টায় সর্বশেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত উপজেলা পর্যায়ের সকল জায়গায় এখনও বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করা সম্ভব হয়নি।

প্রাইভেট ডিটেকটিভ/২২ মে ২০২০/ইকবাল

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ