August 21, 2019, 11:09 pm

শিরোনাম :
মানুষের কল্যাণে কাজ করতে গিয়ে বারবার মৃত্যুর সম্মুখীন হয়েছি: প্রধানমন্ত্রী গ্রেনেড হামলার দায় খালেদা জিয়া এড়াতে পারেন না: তথ্যমন্ত্রী জন্মাষ্টমী ঘিরে কঠোর নিরাপত্তা পরিকল্পনা ডিএমপি’র একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলায় নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা উচ্চ আদালতে তারেকের সর্বোচ্চ সাজার আবেদন করা হবে: ওবায়দুল কাদের চট্টগ্রামে কাভার্ড ভ্যান থেকে ৫০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার, আটক ৩ গ্রেনেড হামলা মামলার আপিল শুনানি ২-৪ মাসের মধ্যে: আইনমন্ত্রী গ্রেনেড হামলায় জড়িতদের বিচারে উদ্যোগ নেবে সরকার: মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী গ্রেনেড হামলার সুষ্ঠু তদন্ত হয়নি, জোর করে তারেকের নাম বলানো হয়েছে: রিজভী ডেঙ্গুতে আক্রান্তের সংখ্যা কমলেও আতঙ্ক কমছে না

রাজশাহীতে কারা একাডেমীর সাইনবোর্ড সরিয়ে ফেলা হলো, হেরিটেজ অঞ্চল ঘোষণা না করা পর্যন্ত আন্দোলন অব্যাহত

Spread the love

রুহুল আমীন খন্দকার, ব্যুরো প্রধান :

 

প্রায় মাসব্যাপী পদ্মার অভ্যন্তরে জেগে ওঠা চরের জমি অধিগ্রহণ করে কারা প্রশিক্ষণ একাডেমী নির্মাণেরউদ্যোগ বন্ধ, নদীর অভ্যন্তরের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদসহ ৬ দফা দাবিতে লাগাতার আন্দোলন কর্মসূচি পালনকরে আসছে পরিবেশবাদী স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন রাজশাহী বাসী, স্বাধীনতা চর্চা কেন্দ্র, তারুণ্যের শক্তি ওপরিচ্ছন্ন রাজশাহী।এরই মধ্যে রোববার ৯ জুন ২০১৯ ইং  কারা  প্রশিক্ষণ  একাডেমীর  সাইন বোর্ড  সরিয়ে ফেলেছে কর্তৃপক্ষ।বিষয়টিকে  প্রাথমিক  বিজয়  হিসেবে  উল্লেখ  করেছেন  আন্দোলনকারীরা। তারা কারা কর্তৃপক্ষের এই উদ্যোগকেসাধুবাদ জানান। সে  সাথে  নদীর তীরবর্তী ও নদীর বুকের সকল অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ এবং হেরিটেজ অঞ্চলঘোষণা না করা পর্যন্ত আন্দোলন অব্যাহত রাখার ঘোষণা দিয়ে বিবৃতি প্রদান করে। পদ্মা বাঁচাও আন্দোলনরতসংগঠন রাজশাহী বাসী, স্বাধীনতা চর্চা কেন্দ্র , তারুণ্যের শক্তি ও পরিচ্ছন্ন রাজশাহীর প্রাথমিক বিজয়শিরোনামে প্রেরিত যৌথ বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়, গত ১৯ শে মে থেকে পদ্মা নদী কে বাঁচানোর লক্ষ্যকেসামনে রেখে, কারারক্ষী প্রশিক্ষণ একাডেমী সহ নদীর বুক থেকে সকল অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ ও শহর কেন্দ্রিকপদ্মা তীরবর্তী এলাকা কে হেরিটেজ অঞ্চল ঘোষণা ছয় দফা দাবিতে আন্দোলন করে আসছি।আন্দোলনের  এই  পর্যায়ে  আমরা  অবগত  হয়েছি  এবং  সরে জমিন  পরিদর্শন করে দেখেছি যে রাজশাহী কারাগারকর্তৃপক্ষ আজ পদ্মার বুক থেকে কারারক্ষী প্রশিক্ষণ একাডেমীর সাইন বোর্ড সহ তাদের সকল অস্থায়ী স্থাপনা ওপাহারা সরিয়ে ফেলেছে। আমরা  মনে  করি  কারা  কর্তৃপক্ষ  রাজশাহী  বাসির  চাওয়া পাওয়ার  প্রতি সম্মানজানিয়ে সঠিক ভূমিকা রেখেছেন। একই  সাথে  আমরা  সুস্পষ্ট ভাবে  ঘোষণা  করতে  চাই  যে  কারারক্ষী  প্রশিক্ষণ একাডেমী  নদীর  বুক  থেকে  অন্যত্র  স্থানান্তরের  যে  প্রক্রিয়া  কারা  কর্তৃপক্ষ  শুরু  করেছেন,  তা  এই  আন্দোলন  নিয়ে রাজশাহী বাসীর প্রাথমিক বিজয় অর্জন। একই  সাথে  আমরা  এটিও  নিশ্চিত  করতে  চাই যে  , নদীর  তীরবর্তী  ওনদীর  বুকের  সকল  অবৈধ  স্থাপনা  উচ্ছেদ  এবং হেরিটেজ অঞ্চল ঘোষণা না করা পর্যন্ত আমাদের আন্দোলনঅব্যাহত থাকবে।পরিবেশবাদীদের সাথে রাজশাহীবাসীর এই আন্দোলন ইনশাআল্লাহ বিজয়ের লক্ষ্যে এগিয়েযাবে।

প্রাইভেট ডিটেকটিভ/ ১০ জুন ২০১৯/ইকবাল

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ