November 17, 2019, 4:37 am

রংপুর-৩ উপনির্বাচনে জাতীয় পার্টির মনোনীত লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে এরশাদ পুত্র জয়ী

Spread the love

 

আবুল হোসেন বাবলুঃ 

রংপুর-৩ উপনির্বাচনে সকাল ৯টা থেকে ভোট গ্রহণ শুরু হয়ে চলে একটানা বিকেল ৫টা পর্যন্ত। ভোটগ্রহণ শেষে জাতীয় পার্টি ও মহাজোট প্রার্থী হিসেবে প্রয়াত সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রেসিডেন্ট হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের ছেলে রাহগির আল-মাহি সাদ এরশাদ -কে বেসরকারি ভাবে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়েছে। পাঁচ অক্টোবর শনিবার বিকাল সাড়ে ৬টায়  নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে রংপুরের পুলিশ হলে বেসরকারি ভাবে এই ফলাফল ঘোষণা করা হয়।

রংপুর আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং অফিসার জি.এম. সাহাতাব উদ্দিন রাত ৭টা ১০ মিনিটে পুলিশ হলে নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা করেন।

চুড়ান্ত ফলা ফলে ৫৮৮৭৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন (মহাজোট মনোনীত) জাতীয় পার্টির প্রার্থী সাদ এরশাদ। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দী বিএনপি মনোনীত প্রার্থী রিটা রহমান পেয়েছেন ১৬৯৪৭ ভোট। এছাড়া স্বতন্ত্র প্রার্থী (সাবেক সাংসদ) এরশাদের ভাতিজা হোসেন মকবুল শাহরিয়ার আসিফ পেয়েছেন ১৪৯৮৪ ভোট।

এছাড়াও বাকি তিন প্রার্থীর মধ্যে গণফ্রন্টের কাজী মো. শহীদুল্লাহ্ বায়েজিদ (মাছ) ১ হাজার ৬৬২ ভোট, খেলাফত মজলিসের তৌহিদুর রহমান মন্ডল (দেওয়াল ঘড়ি) ৯২৪ এবং এনপিপির শফিউল আলম রাকু (আম) প্রতীক ৬১১ ভোট পেয়েছেন। এবার প্রদত্ত ভোট ২১ দশমিক ৩১ শতাংশ।

রংপুর (আরপিএমপি) পুলিশ কমিশনার আবদুল আলীম মাহমুদ বলেন- র‌্যাব, বিজিবি, পুলিশ, আনসারসহ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সমন্বয়ে একটি মডেল নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রংপুর অঞ্চলের আঞ্চলিক নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে- রংপুর সেনানিবাস, রংপুর সদর উপজেলা এবং রংপুর সিটি করপোরেশনের ৩৩টি ওয়ার্ডের মধ্যে ৮টি ওয়ার্ড ছাড়া বাকি ২৫টি ওর্য়াড নিয়ে এই সদর আসন। ১৭৫টি কেন্দ্রের জন্য ১৭৫ জন প্রিজাইডিং অফিসার, ১ হাজার ২৩জন সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার, দুই হাজার ৪৬ জন পোলিং অফিসার ভোট গ্রহণে দায়িত্ব পারন করেছেন।

এ আসনে মোট ভোটার সংখ্যা চার লাখ ৪২ হাজার ৭২ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার দুই লাখ ২১ হাজার ৩১০ জন এবং নারী ভোটার দুই লাখ ২০ হাজার ৭৬২ জন। উল্লেখ্য যে, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এ আসনটিতে ১ লাখ ৪২ হাজার ৯২৬ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছিলেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি প্রার্থী রিটা রহমান পেয়েছিলেন ৫৩ হাজার ৮৯ ভোট। ভোট পড়েছিল ৫২ দশমিক ৩১ শতাংশ।

হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ গত ১৪ জুলাই চিকৎসাধীন অবস্থায় রাজধানীর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে মারা গেলে।  সংসদ সচিবালয়ের সচিব (রুটিন দায়িত্ব) আ. ই. ম গোলাম কিবরিয়া মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) রংপুর-৩ আসনটি শূন্য হওয়ার গেজেট প্রকাশ করেন। পরবর্তীতে পহেলা সেপ্টেম্বর উপ-নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন।

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ