December 1, 2019, 8:50 pm

রংপুরে কোরবানী কেন্দ্র করে ব্যস্ত সময় পার করছেন কামারপল্লীর কর্মকাররা

Spread the love

রুবেল ইসলাম,মিঠাপুকুর (রংপুর) প্রতিনিধিঃ

আগুনের ফুলকিতে গরম লোহায় রাতভর হাতুড়ির পিটুনি। কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে রংপুরে দম ফেলার সময় নেই দা, বঁটি, চাকু, চাপাতি, কুড়ালসহ লোহার যন্ত্র তৈরির কারিগরদের। মুসলিম সম্প্রদায়ের দ্বিতীয় বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসব ঈদ-উল-আযহা দিন যতই ঘনিয়ে আসছে ততই ব্যস্ততা বাড়ছে কামার পল্লীতে। যেন দম ফেলার ফুসরত নেই কামারপাড়ায়।পশু কোরবানির মধ্যদিয়ে ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভের আশায় শেষ মুহূর্তে প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে। আর কোরবানির এসব পশু কাটাকাটিতে চাই ধারালো দা, বঁটি ও ছুরি। ঈদকে কেন্দ্র করে রংপুরের কামারপল্লীগুলো এখন ব্যস্ত সময় পার করছেন। কয়লার চুলোয় দগদগে আগুনের ফুলকি আর গরম লোহায় ওস্তাত-সাগরেদের ছন্দময় পিটাপিটিতে মুখর হয়ে উঠেছে কামারশালাগুলো। দিন শেষে রাতেও বিরাম নেই এসব কারিগরদের। দিন রাত বিরামহীন পরিশ্রম করে কারিগররা তৈরী করছে দা, বঁটি, চাকু, ছুরি, চাপাতি ও কুড়াল। তাইতো অন্যান্য সময়ের তুলনাই ঈদ-উল-আযহার এ সময়ে কর্মব্যস্ততাও অনেকাংশে বেড়ে গেছে।কোরবানি সংশ্লিষ্ট কাজের অর্ডারই এখন বেশি বলে জানান কারিগররা । এছাড়া এ শিল্পে ব্যবহৃত কয়লাসহ অন্যান্য কাঁচামালের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। কিন্তু সে অনুযায়ী বাড়েনি তাদের তৈরি জিনিসপত্রের দাম।এ পেশায় পরিশ্রমের চেয়ে পারিশ্রমিক কম। তাইতো সময়ের বির্বতনে কোন কোন কর্মকার জীবিকার তাগিদে পূর্ব-পুরুষের পেশা ছেড়ে অন্য কাজে ঝুকে পড়ছেন। সারাদিন আগুনের পাশে বসে কাজ করতে হয়। তবুও পূর্ব-পুরুষের রেখে যাওয়া এই পেশাই উৎসাহের কমতি নেই কামার পল্লীর এসব কর্মকারদের।

প্রাইভেট ডিটেকটিভ/০৮ আগস্ট ২০১৯/ইকবাল

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ