April 2, 2020, 2:13 pm

শিরোনাম :
প্রতি উপজেলার দুজনের নমুনা পরীক্ষার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে না আসায় সাধারণ ছুটিতে ব্যাংক লেনদেনের সময় বাড়ল প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের সঙ্গে যুদ্ধ করুন,আমাদের সঙ্গে নয়-মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ইরান কাশ্মীরের বাসিন্দাদের সংজ্ঞা বদলে দিল নরেন্দ্র মোদির সরকার যুক্তরাষ্ট্রে মহামারী করোনাভাইরাসে একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড  প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস- পুলিশ সদস্যদের বিনয়ী হতে বললেন আইজিপি ড. জাবেদ পাটোয়ারী দেশে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত বেড়ে ৫৬ রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ভলান্টিয়ার দিয়ে কাজ চালানোর নির্দেশ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কেশবপুরের সড়ক দূর্ঘটনায় আহত আওয়ামীলীগ নেতা সাবেক চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম হাসপাতালে ২৫ দিন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে অবশেষে মৃত্যুর কাছে হার মানলেন একটি জরুরী ঘোষনা

মেলেনী রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি ৪৯ বছর পর মুজিব শতবর্ষে সংবর্ধনা পেলেন লালপুরের দুই বীরাঙ্গনা

Spread the love

নাহিদ হোসেন,লালপুর(নাটোর) প্রতিনিধি:

স্বাধীনতার ৪৯ বছর পর মুজিব শতবর্ষে সংবর্ধনা পেলেন নাটোরের লালপুর উপজেলার দুই বীরাঙ্গনা নারী। এদর একজন উপজেলার গোপালপুর পৌর এলাকার গুচ্ছগ্রামের সোহগী (৬৭) ও অপরজন রামকৃষ্ণপুর গ্রামের রোকেয়া বেগম (৬০)। ১৯৭১ সালে পাকহানাদার বাহিনীর হাতে তাদের নির্যাতিত হওয়ার ঘটনা স্থানীয় সকলের জানা। ব্যক্তিগতভাবে দু-একজন সহনুভুতি জানালেও রাষ্ট্রীয়ভাবে তাদের বীরাঙ্গনা হিসেবে কোন স্বীকৃতি নেই তাদের। বর্তমানে বীরঙ্গনা সোহাগী মানুষের দোয়ারে দোয়ারে ভিক্ষে করে এবং রোকেয়া বেগম ইটভাটায় কাজ করে জীবন চালায়।
মঙ্গলবার মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে নাটোর-১ (লালপর-বাগাতিপাড়া) আসনের সংসদ সদস্য শহিদুল ইসলাম বকুল বীরঙ্গনা সোহগী (৬৭) ও রোকেয়া বেগমকে (৬০) সংর্বধনা প্রদান করেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার উম্মুল বানীন দ্যুতির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা চেয়ারম্যান ইসাহাক আলী, যুগ্ম সম্পাদক মাহমুদুল হক মুকুল, সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক আছিয়া জয়নুল বেনু প্রমুখ।
স্থানীয়রা জানান, বীরঙ্গনা সোহাগী সে সময় গৃহবধু ছিলেন। পাকহানদার বাহিনী বাড়ি থেকে তাকে তুলে নিয়ে ক্যাম্পে নিয়ে আটকে রেখে নিয়ে নির্যাতন চালায়। ঘটনার পর থেকে তিনি মানষিক ভারসম্য হারিয়ে ফেলেন। এখনো তিনি স্বাভাবিক হতে পারেননি। স্বামী মারা যাওয়ার পর প্রায় ২০ বছর ধরে তিনি ভিক্ষা করে জীবন ধারন করছেন।
অপর দিকে পাকহানদার বাহিনীর ক্যাম্পে নির্যাতিত যুবতি রোকেয়া বেগমের দেশ স্বাধীনের পর বিয়ে হলেও ঘটনা জানতে পেরে স্বামী তাকে তালাক দিয়ে দেন।
বীরঙ্গনা সোহাগী ও রোকেয়া বেগমের বীরঙ্গনা হিসেবে রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি প্রদানের আহবান জানান বক্তারা।

প্রাইভেট ডিটেকটিভ/১৮ মার্চ ২০২০/ইকবাল

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ