July 19, 2019, 2:18 pm

শিরোনাম :
সিরাজগঞ্জের ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে দুই গাজা সেবীর কারাদণ্ড সিরাজগঞ্জের ঘোড়াচড়ায় অনুমোদন বিহীন সিএনজি স্টেশনকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা সিরাজগঞ্জের কাজিপুরের বানবাসীদের পাশে সিরাজগঞ্জের এসপি টুটুল নবদিগন্ত সমাজ কল্যাণ সংঘ ও যুবসংঘের বন্যার্ত মধ্য ত্রাণ বিতরণ ঢাকাগামী জয়ন্তিকা এক্সপ্রেস লাইনচ্যুত রামপালে তিন দিন ব্যাপী ফলদ বৃক্ষ মেলার উদ্বোধন বগুড়ায় যমুনার পানি ১’শ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ জিপিএ-৫ না পাওয়ায় বগুড়ায় ফ্যানের সঙ্গে ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করলেন ছাত্রী মোরেলগঞ্জে একটি ভাঙ্গা পুলই ৭ গ্রামের মানুষের ভরসা শেখ হাসিনা স্বপ্ন দেখিয়েছে উন্নত বাংলাদেশের – কৃষিমন্ত্রী ড.মো: আব্দুর রাজ্জাক এমপি

মূল সড়কে কোনো রিকশা চলবে না, সার্ভিস লেন দিয়ে শুধু বৈধ রিকশা চলতে পারবে: আতিকুল

Spread the love

মূল সড়কে কোনো রিকশা চলবে না, সার্ভিস লেন দিয়ে শুধু বৈধ রিকশা চলতে পারবে: আতিকুল

ডিটেকটিভ নিউজ ডেস্ক

রিকশাচালক ও মালিকদের বিক্ষোভের পরও রাজধানীর কুড়িল বিশ্বরোড থেকে মালিবাগ পর্যন্ত প্রগতি সরণিতে রিকশা চলাচল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্তে অনড় রয়েছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন। গতকাল বুধবার ঢাকা উত্তরে নগর ভবনে রিকশা মালিক ও শ্রমিক প্রতিনিধিদের নিয়ে সভার পর মেয়র আতিকুল ইসলাম এ সিদ্ধান্তের কথা জানান। আতিকুল বলেন, কুড়িল থেকে মালিবাগ পর্যন্ত প্রগতির সরণির মূল সড়কে কোনো রিকশা চলাচল করবে না। তবে এ সড়কের পাশে কোথাও কোথাও বিদ্যমান সার্ভিস লেন দিয়ে শুধু বৈধ রিকশা চলতে পারবে। এক্ষেত্রে রিকশায় চলাচলে ইচ্ছুক যাত্রীদের পথ বাতলে দিয়ে মেয়র বলেন, কেউ কুড়িল থেকে রামপুরা যেতে চাইলে ‘নর্দ্দা পর্যন্ত ভেতরের সড়ক’ ব্যবহার করবে। ‘নর্দ্দা থেকে কালাচাঁদপুর’ (সুবাস্তুর আগে) পর্যন্ত সার্ভিস লেন ব্যবহার করবে। সেখান থেকে ভেতরের সড়ক দিয়ে রামপুরা ব্রিজের আগে মূল সড়কে উঠে ব্রিজ পার হবে। প্রগতি সরণিতে রিকশা চলাচল বন্ধ হলে চালকরা খুব একটা সমস্যায় পড়বেন না দাবি করে আতিকুল বলেন, উত্তর সিটি করপোরেশন এলাকার দুই হাজার ৩০০ কিলোমিটার সড়কের মাত্র ১৫ কিলোমিটার এলাকায় রিকশা বন্ধ করা হয়েছে। আর বাকি সড়কে রিকশা চলাচল করবে। যান্ত্রিক ও অযান্ত্রিক যানবাহন একসঙ্গে চলাচল করলে দুর্ঘটনার আশঙ্কা থাকে বলে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এর আগে সভায় কুড়িল থেকে সায়েদাবাদ পর্যন্ত মূল সড়কে রিকশা চলাচলের অনুমতি দিতে মেয়রের কাছে অনুরোধ জানান রিকশা মালিক ও শ্রমিক কমিটির প্রতিনিধিরা। বাড্ডা থানা রিকশা মালিক সমিতির সভাপতি জয়নাল আবেদীন মামুন সভায় বলেন, বৈধ রিকশা চলাচল করলে ওই সড়কে যানজট হবে না। ইতিমধ্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী রিকশার জন্য আলাদা লেন তৈরি করে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। লেন তৈরির আগে পর্যন্ত এই সড়কে রিকশা চলাচলের অনুমতি দিন। আমরা আশ্বস্ত করছি, সড়কে কোনো বিশৃঙ্খলা হবে না। তবে মেয়র রিকশা মালিক ও শ্রমিকদের এ অনুরোধ রাখেননি। মোহাম্মদ টিপু মিয়া নামে একজন রিকশা মালিক বলেন, আমরা আশাবাদী ছিলাম যে মেয়র রিকশার জন্য আলাদা লেন করে দিবেন। কিন্তু তিনি তো আমাদের কোনো কথাই রাখেননি। সরকারের বিরুদ্ধে আমরা আন্দোলন করতে পারব না। যা বলেছেন তাই মেনে নিতে হবে। ‘ঢাকা মহানগরীর অবৈধ যানবাহন দূর/বন্ধ, ফুটপাত দখলমুক্ত ও অবৈধ পার্কিং বন্ধে গঠিত’ কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী রোববার থেকে রাজধানীর কুড়িল-সায়েদাবাদ, গাবতলী-আজিমপুর ও সায়েন্সল্যাব-শাহবাগ রুটে রিকশা চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়। এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে প্রথম দিন রিকশাচালক ও মালিকদের তৎপরতা চোখে না পড়লেও সোমবার থেকে রাস্তায় বিক্ষোভ করছেন তারা। গত মঙ্গলবার সকালেই কুড়িল, বাড্ডা, রামপুরা ও মালিবাগ চৌধুরীপাড়ার বিভিন্ন স্থানে সড়কে নেমে আসেন কয়েক হাজার রিকশাচালক ও মালিক। সড়ক অবরোধ করে দিনভর বিক্ষোভ করেন করেন তারা। তাদের অবরোধে প্রগতি সরণি, ডিআইটি রোড, ফারুক ইকবাল-তসলিম সড়ক, অতীশ দীপঙ্কর সড়ক দিয়ে চলাচলে বিপাকে পড়েন সাধারণ মানুষ। ডিএনসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবদুল হাই, ঢাকা মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার (ট্রাফিক) মফিজ উদ্দিন আহমেদ, গুলশান বিভাগের উপকমিশনার মোসতাক আহমেদ ও ট্রাফিক (উত্তর) বিভাগের উপকমিশনার প্রবীর কুমার রায় এ সময় সেখানে ছিলেন। বিভিন্ন ওয়ার্ডের কাউন্সিলর, পরিবহন মালিক ও শ্রমিক কমিটির প্রতিনিধিরাও সভায় উপস্থিত ছিলেন।

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ