August 23, 2019, 7:21 am

শিরোনাম :
তোয়াকুল ছাত্র জমিয়তের প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত বগুড়ার মহাস্থান উচ্চ বিদ্যালয়ে ডেঙ্গু প্রতিরোধে শিক্ষার্থীদের নিয়ে জনসেচনতামূলক র‌্যালী ও লিফলেট বিতরন বোয়ালমারীতে প্রাইম ব্যাংক কর্মকর্তার বিদায় বরণ অনুষ্ঠান সারিয়াকান্দিতে বজ্রঘাতে মানুষ সহ গরুর মৃত্যু তাহিরপুর প্রেসক্লাব সাংগঠনিক সম্পাদকসহ ৩ সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলার প্রতিবাদে তাহিরপুর প্রেসক্লাবের নিন্দা ও প্রতিবাদ দেশে সত্যিকারের হিরো কৃষক- কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক এমপি এলাকায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া তালায় এক বৃদ্ধ রহস্যজনকভাবে আত্নহত্যা আলফাডাঙ্গায় ভাতিজার হাতে চাচী খুন কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারীতে কিশোরীকে ধর্ষণ শেষে হত্যার অভিযোগ জননেতা আতাউর রহমান স্মৃতি পরিষদের সাথে নার্সিং শিক্ষার্থীদের মত বিনিময় সভা

মিসরে নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানে ১৭ ‘সন্ত্রাসী’ নিহত

Spread the love

মিসরে নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানে ১৭ ‘সন্ত্রাসী’ নিহত

ডিটেকটিভ আন্তর্জাতিক ডেস্ক

মিসরের রাজধানী কায়রোতে গত সপ্তাহের ভয়াবহ গাড়িবোমা বিস্ফোরণের ঘটনায় সন্দেহভাজনদের বিরুদ্ধে গত বৃহস্পতিবার নিরাপত্তা বাহিনীর ব্যাপক অভিযানে ১৭ ‘সন্ত্রাসী’ নিহত হয়েছে বলে দাবি করেছে দেশটির সরকার। কায়রোতে ওই বিস্ফোরণে ২০ জন প্রাণ হারায়।

মিসরের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা এএফপি জানায়, নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানে নিষিদ্ধ ঘোষিত মুসলিম ব্রাদারহুড সংশ্লিষ্ট সশস্ত্র গ্রুপ হাসমের ১৭ সদস্য নিহত হয়েছে।

মিসরের প্রেসিডেন্ট আবদেল ফাত্তাহ আল-সিসি কায়রোতে বিভিন্ন গাড়ির মধ্যে সংঘর্ষকে একটি ‘সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড’ হিসেবে অভিহিত করেন। কেননা, গাড়িগুলোর একটি বিস্ফোরকভর্তি ছিল।

মিসরের রাজধানীতে ন্যাশনাল ক্যানসার ইনস্টিটিউটের বাইরে গত রোববার মধ্যরাতের আগমুহূর্তে এ বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। বিস্ফোরকভর্তি দ্রুতগামী একটি গাড়ি সেখানে অপর তিনটি গাড়িকে ধাক্কা দিলে এ ঘটনা ঘটে।স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানায়, এ গাড়িবোমার বিস্ফোরণে কমপক্ষে ২০ জন নিহত হয়।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়, এ গাড়িবোমার বিস্ফোরণ ঘটানোর পেছনে হাসম গ্রুপের হাত রয়েছে। বিবৃতিতে আরো বলা হয়, গাড়িটির চালক আত্মঘাতী ছিল, তারা এমন তথ্য নিশ্চিত করেছে। এ চালক হাসম গ্রুপের একজন সদস্য।

মন্ত্রণালয় জানায়, নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা হাসমের অবস্থানের ব্যাপারে নিশ্চিত হয়ে কায়রো ও রাজধানীর দক্ষিণের ফায়োমে ব্যাপক অভিযান চালিয়ে তাদের ১৭ জনকে হত্যা করে। এদের মধ্যে আত্মঘাতী গাড়িবোমা হামলাকারীর ভাই রয়েছে।

গত রোববারের গাড়িবোমার বিস্ফোরণের ঘটনায় এই ১৭ জন সরাসরি জড়িত ছিল কি না, তা তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি।

২০১৬ সাল থেকে হাসম গ্রুপ কায়রোতে পুলিশ, সরকারি কর্মকর্তা ও বিচারকদের বিরুদ্ধে চালানো বিভিন্ন হামলার ঘটনায় দায় স্বীকার করে আসছে।

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ