August 15, 2020, 8:44 pm

শিরোনাম :
বঙ্গবন্ধুর শাহাদত বার্ষিকী উপলক্ষে সোনার বাংলা আদর্শ ক্লাবের আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্টিত জাতীয় শোক দিবসে কোতয়ালী থানা ছাত্রলীগের উদ্যোগে মিলাদ ও গণভোজ যশোরের বাঁকড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত জামালপুরে নানা কর্মসূচির মধ্যদিয়ে জাতীয় শোক দিবস পালিত বক‌শিগ‌ঞ্জে জাতীয় শোক দিব‌সে রিকসা পেলেন সাত্তার বকশিগঞ্জে যথাযোগ্য মর্যাদায় বঙ্গবন্ধুর শাহাদাত বার্ষিকী পালন জাল সনদ প্রস্তুতকারী চক্রের সক্রিয় তিন সদস্য আটক কেরানীগঞ্জে ২৩৩ পিস ইয়াবাসহ কারবারি রাকিব আটক বঙ্গবন্ধুর ৪৫তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবসে খুনিদের দেশে ফিরিয়ে এনে বিচারের দাবী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫ তম শাহাদত বার্ষিকীতে তানোর থানা মসজিদে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

মিসরে নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানে ১৭ ‘সন্ত্রাসী’ নিহত

Spread the love

মিসরে নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানে ১৭ ‘সন্ত্রাসী’ নিহত

ডিটেকটিভ আন্তর্জাতিক ডেস্ক

মিসরের রাজধানী কায়রোতে গত সপ্তাহের ভয়াবহ গাড়িবোমা বিস্ফোরণের ঘটনায় সন্দেহভাজনদের বিরুদ্ধে গত বৃহস্পতিবার নিরাপত্তা বাহিনীর ব্যাপক অভিযানে ১৭ ‘সন্ত্রাসী’ নিহত হয়েছে বলে দাবি করেছে দেশটির সরকার। কায়রোতে ওই বিস্ফোরণে ২০ জন প্রাণ হারায়।

মিসরের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা এএফপি জানায়, নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানে নিষিদ্ধ ঘোষিত মুসলিম ব্রাদারহুড সংশ্লিষ্ট সশস্ত্র গ্রুপ হাসমের ১৭ সদস্য নিহত হয়েছে।

মিসরের প্রেসিডেন্ট আবদেল ফাত্তাহ আল-সিসি কায়রোতে বিভিন্ন গাড়ির মধ্যে সংঘর্ষকে একটি ‘সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড’ হিসেবে অভিহিত করেন। কেননা, গাড়িগুলোর একটি বিস্ফোরকভর্তি ছিল।

মিসরের রাজধানীতে ন্যাশনাল ক্যানসার ইনস্টিটিউটের বাইরে গত রোববার মধ্যরাতের আগমুহূর্তে এ বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। বিস্ফোরকভর্তি দ্রুতগামী একটি গাড়ি সেখানে অপর তিনটি গাড়িকে ধাক্কা দিলে এ ঘটনা ঘটে।স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানায়, এ গাড়িবোমার বিস্ফোরণে কমপক্ষে ২০ জন নিহত হয়।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়, এ গাড়িবোমার বিস্ফোরণ ঘটানোর পেছনে হাসম গ্রুপের হাত রয়েছে। বিবৃতিতে আরো বলা হয়, গাড়িটির চালক আত্মঘাতী ছিল, তারা এমন তথ্য নিশ্চিত করেছে। এ চালক হাসম গ্রুপের একজন সদস্য।

মন্ত্রণালয় জানায়, নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা হাসমের অবস্থানের ব্যাপারে নিশ্চিত হয়ে কায়রো ও রাজধানীর দক্ষিণের ফায়োমে ব্যাপক অভিযান চালিয়ে তাদের ১৭ জনকে হত্যা করে। এদের মধ্যে আত্মঘাতী গাড়িবোমা হামলাকারীর ভাই রয়েছে।

গত রোববারের গাড়িবোমার বিস্ফোরণের ঘটনায় এই ১৭ জন সরাসরি জড়িত ছিল কি না, তা তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি।

২০১৬ সাল থেকে হাসম গ্রুপ কায়রোতে পুলিশ, সরকারি কর্মকর্তা ও বিচারকদের বিরুদ্ধে চালানো বিভিন্ন হামলার ঘটনায় দায় স্বীকার করে আসছে।

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ