November 13, 2019, 5:54 am

শিরোনাম :
যশোর জেলা আ. লীগের সম্মেলন ২৭ নভেম্বর যশোরের খাজুরায় গরীবের জন্য বরাদ্দ সরকারী চাল উদ্ধার সাদুল্যাপুরে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় এক বৃদ্ধ নিহত গাইবান্ধা রেল স্টেশনে কাঠপট্টি এলাকার রেইন্ট্রি গাছের সাঁরি চিল কাকের অভয়ারণ্য গাইবান্ধায় হজ্ব ওমরাহ ও যিয়ারত সম্পর্কিত বইয়ের মোড়ক উন্মোচন গাবতলীর সরধনকুটি বিদ্যালয়ে ৫ম শ্রেনীর ছাত্র-ছাত্রীদের বিদায় সংবর্ধনা ও শিক্ষা উপকরণ বিতরণ সুন্দরগঞ্জে বিশুদ্ধ পানি সরবরাহের লক্ষ্যে-পাইপ লাইন কাজের উদ্ভোধন কেশবপুরে বিদ্যালয়ের গাছ চুরির অভিযোগে সভাপতির বিরুদ্ধে মামলা! ভোলার মেঘনায় ট্রলার ডুবিতে ১০ জেলের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ ভোলা-ঢাকা রুটে গ্রীন লাইন সার্ভিস নিয়ে লঞ্চ মালিক চক্রের ষড়যন্ত্র!

মিসরে নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানে ১৭ ‘সন্ত্রাসী’ নিহত

Spread the love

মিসরে নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানে ১৭ ‘সন্ত্রাসী’ নিহত

ডিটেকটিভ আন্তর্জাতিক ডেস্ক

মিসরের রাজধানী কায়রোতে গত সপ্তাহের ভয়াবহ গাড়িবোমা বিস্ফোরণের ঘটনায় সন্দেহভাজনদের বিরুদ্ধে গত বৃহস্পতিবার নিরাপত্তা বাহিনীর ব্যাপক অভিযানে ১৭ ‘সন্ত্রাসী’ নিহত হয়েছে বলে দাবি করেছে দেশটির সরকার। কায়রোতে ওই বিস্ফোরণে ২০ জন প্রাণ হারায়।

মিসরের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা এএফপি জানায়, নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানে নিষিদ্ধ ঘোষিত মুসলিম ব্রাদারহুড সংশ্লিষ্ট সশস্ত্র গ্রুপ হাসমের ১৭ সদস্য নিহত হয়েছে।

মিসরের প্রেসিডেন্ট আবদেল ফাত্তাহ আল-সিসি কায়রোতে বিভিন্ন গাড়ির মধ্যে সংঘর্ষকে একটি ‘সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড’ হিসেবে অভিহিত করেন। কেননা, গাড়িগুলোর একটি বিস্ফোরকভর্তি ছিল।

মিসরের রাজধানীতে ন্যাশনাল ক্যানসার ইনস্টিটিউটের বাইরে গত রোববার মধ্যরাতের আগমুহূর্তে এ বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। বিস্ফোরকভর্তি দ্রুতগামী একটি গাড়ি সেখানে অপর তিনটি গাড়িকে ধাক্কা দিলে এ ঘটনা ঘটে।স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানায়, এ গাড়িবোমার বিস্ফোরণে কমপক্ষে ২০ জন নিহত হয়।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়, এ গাড়িবোমার বিস্ফোরণ ঘটানোর পেছনে হাসম গ্রুপের হাত রয়েছে। বিবৃতিতে আরো বলা হয়, গাড়িটির চালক আত্মঘাতী ছিল, তারা এমন তথ্য নিশ্চিত করেছে। এ চালক হাসম গ্রুপের একজন সদস্য।

মন্ত্রণালয় জানায়, নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা হাসমের অবস্থানের ব্যাপারে নিশ্চিত হয়ে কায়রো ও রাজধানীর দক্ষিণের ফায়োমে ব্যাপক অভিযান চালিয়ে তাদের ১৭ জনকে হত্যা করে। এদের মধ্যে আত্মঘাতী গাড়িবোমা হামলাকারীর ভাই রয়েছে।

গত রোববারের গাড়িবোমার বিস্ফোরণের ঘটনায় এই ১৭ জন সরাসরি জড়িত ছিল কি না, তা তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি।

২০১৬ সাল থেকে হাসম গ্রুপ কায়রোতে পুলিশ, সরকারি কর্মকর্তা ও বিচারকদের বিরুদ্ধে চালানো বিভিন্ন হামলার ঘটনায় দায় স্বীকার করে আসছে।

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ