September 17, 2019, 12:51 am

প্রতিকি ছবি

মিঠাপুকুরে স্বামীর নেশার টাকা যোগান দিতে না পারায় স্ত্রীকে গলায় ছুরিকাঘাত করে হত্যার চেষ্টা স্বামী আটক

Spread the love

মিঠাপুকুর (রংপুর) প্রতিনিধিঃ

প্রতিকি ছবি

নেশার টাকা যোগান দিতে না পারায় স্ত্রীর গলায় ছুরিকাঘাত করে হত্যাচেষ্টা করেছে মদ্যপ হারুন মিয়া। প্রতিবেশিরা স্ত্রী রহিমাকে আশঙ্কাজন অবস্থায় উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করিয়েছে। বর্তমানে ওই গৃহবধূ হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে লড়ছেন। এ ঘটনায় পুলিশ মদ্যপ স্বামীকে আটক করে জেলহাজতে পাঠিয়েছে। গতকাল শনিবার ভোররাতে মিঠাপুকুর উপজেলার রাণীপুকুর ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে।এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানাযায়, উপজেলার রাণীপুকুর ইউনিয়নের নাসিরাবাদ গ্রামের অটোভ্যান চালক হারুন মিয়ার সাথে দেওডোবা গ্রামের আ. রহিমের মেয়ে রহিমা বেগমের বিয়ে হয় প্রায় বারো বছর আগে। তাদের দাম্পত্য জীবনে ২ জন সন্তানও রয়েছে। বিয়ের পর থেকেই হারুন মাদকদ্রব্য সেবন করত। পেশায় ব্যাটারিচালিত চার্জার ভ্যান/রিক্সা চালক স্বামী প্রায়ই গীর রাতে মদ্যপ অবস্থায় বাড়ি ফিরে রহিমাকে মারধর করত। প্রতিদিনই নেশার টাকা যোগান দিতে হতো রহিমাকে। সম্প্রতি, টাকাযোগান দেওয়া বন্ধ করে দেন স্ত্রী। এ কারণে স্বামী-স্ত্রীর মাঝে পারিবারিক কলহ লাগত। এর জের ধরে শনিবার ভোররাতে ঝগড়ার এক পর্যায়ে হত্যার উদ্দেশ্যে ছুরি দিয়ে রহিমা বেগমের গলায় আঘাত করে হারুন। চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন রহিমাকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করায়। বর্তমানে রহিমা হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে লড়ছেন। প্রতিবেশিরা হারুনকে আটক রেখে পুলিশে খবর দেয় এলাকাবাসী। দুপুরে ঘটনাস্থলে এসে ঘাতক স্বামীকে আটক করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ।মিঠাপুকুর থানার ওসি জাফর আলী বিশ^াস বলেন, স্ত্রীকে হত্যার চেষ্টার ঘটনায় হারুন মিয়াকে আটক করা হয়েছে। গুরুতর আহত অবস্থায় চিকিৎসাধীন রয়েছেন স্ত্রী রহিমা বেগম। এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি।

মিঠাপুকুরে সাংবাদিক হাবিবুর
রহমান সোনার চাচার ইন্তেকাল
মিঠাপুকুর (রংপুর) প্রতিনিধিঃ
দৈনিক সমকাল ও যুগের আলোর মিঠাপুকুর উপজেলা প্রতিনিধি এবং মিঠাপুকুর প্রেসক্লাবের কোষাধ্যক্ষ সাংবাদিক হাবিবুর রহমান সোনার চাচা মোসলেম উদ্দিন খন্দকার (৬০) গতকাল শনিবার ভোররাতে হৃদযন্ত্রের ক্রীয়া বন্ধ হয়ে ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তিনি গোপালপুর ইউনিয়নের শাল্টিপাড়া গ্রামের মরহুম আব্দুল মোন্নাফ খন্দকারের ছেলে। মৃত্যুকলে তিনি ৩ ছেলে ও ২ মেয়ে সহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। শনিবার দুপুরে জানাজা নামাজ শেষে বর্তমান বাসস্থান কাফ্রিখাল ইউনিয়নের খোর্দ্দ কাশিনাথপুর গ্রামে পারিবারিক কবরস্থানে মরহুমের লাশ দাফন করা হয়। যানাজায় অসংখ্য মুসল্লী অংশগ্রহন করেন। তাঁর মৃত্যুতে মিঠাপুকুর প্রেসক্লাবের সভাপতি প্রদীপ কুমার গোস্বামী, সাধারন সম্পাদক শেখ সাদী সরকার ও সকল নেতৃবৃন্দ, স্থানীয় সুধী সমাজ, গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও সমাজের বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ শোক প্রকাশ করেছেন।

প্রাইভেট ডিটেকটিভ/১৮ আগস্ট ২০১৯/ইকবাল

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ