October 25, 2020, 6:54 pm

শিরোনাম :
রংপুরে ডিপ্লোমা ঐক্য পরিষদ এর মানববন্ধন ও র‍্যালী অনুষ্ঠিত রাজশাহীতে জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবসে পুজামন্ডপে নিসচার মাস্ক ও সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ মহিপুরে নৈশ প্রহরী নিয়োগের নামে উৎকোচ গ্রহণ কলাপাড়ায় ইউপি সদস্য হত্যা মামলায় তিনজনকে গ্রেফতার সুন্দরগঞ্জে শারদীয়োৎসবে দুঃস্থ মহিলাদেরকে বস্ত্র বিতরণ রাজশাহীতে তিন দশক পর ‘ঢলন’ প্রথা আজ বিলুপ্ত বৃষ্টিতে অচল জগন্নাথপুর-সিলেট সড়ক রংপুরে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ধর্ষণের চেষ্টা’ থানায় অভিযোগ আদমদীঘিতে ৬০কেজি গাঁজাসহ গ্রেপ্তার- ৩ মোরেলগঞ্জে সাড়ে ৮ লাখ টাকার অবৈধ জাল আটক ও ভস্মিীভূত করেছে নৌবাহিনী চিলমারীতে কাঁচকোল সামাজিক সংগঠনের উদ্দেগে গরীব ও অসহায়দের মাঝে বস্ত্র বিতরণ করা হয়েছে সরিষাবাড়ীতে পিডিবি‘র একটি খুটির মূল্য ৪ হাজার টাকা ঝড়ো আবহাওয়ায় কুয়াকাটা সৈকতে পর্যটকদের ভীড় যাত্রাবাড়ী ও চকবাজার থানা এলাকা থেকে ইয়াবা ও ফেসিডিলসহ আটক ০২ মধ্যনগরে মসজিদ নির্মাণের টাকা আত্নসাদের অভিযোগ র‌্যাব-৫ এর পৃথক দুটি অভিযানে অবৈধ ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার’ দুই মাদক ব্যাবসায়ী অটক ভারতে পাচার ৩ যুবক-যুবতীকে বেনাপোলে হস্তান্তর র‌্যাব-১০ পৃথক পৃথক অভিযানে ঢাকার কেরানীগঞ্জ এলাকা থেকে ইয়াবা ও বিয়ারসহ আটক ০৩ আদমদীঘিতে ১২০বোতল ফেন্সিডিলসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার রংপুরে পুলিশ কর্মকর্তার বাসায় চুরি ও এক লক্ষ পঞ্চাশ হাজার টাকা খোয়া

মাওলানা আব্দুর রাজ্জাক বিন ইউসুফের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ এনে রাজশাহী প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন!

Spread the love
রুহুল আমীন খন্দকার, ব্যুরো প্রধান ::
রাজশাহীর আল-জামিআহ আস-সালাফিয়্যাহ মাদরাসার অধ্যক্ষ, পিস টিভির আলোচক আব্দুর রাজ্জাক বিন ইউসুফের বিরুদ্ধে নানারকম অনিয়মসহ কারণে-অকারণে শিক্ষক-কর্মচারীদের বহিষ্কার করার অভিযোগ উঠেছে। বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর) বেলা ১১টায় রাজশাহী প্রেসক্লাবে এসব অভিযোগ এনে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ভুক্তভোগী শিক্ষক, কর্মচারী ও দাতা সদস্যরা।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন, মাদরাসাটির সদ্য (বহিষ্কৃত) মুহাদ্দিস মাওলানা ইবরাহীম। লিখিত বক্তব্যে অভিযোগ করা হয়, চলতি বছরের গত ২২ জুলাই জেলার পবা উপজেলাধীন জামিয়াহ মাদরাসায় কর্মরত অন্তত ১২ জন শিক্ষক-কর্মচারীকে স্বেচ্ছাচারীতা করে অবৈধভাবে মুঠোফোনে কল দিয়ে বহিষ্কার করেছেন অধ্যক্ষ আব্দুর রাজ্জাক বিন ইউসুফ। যা চরম মানবাধিকার লঙ্ঘন। তারা এর কারন জানতে চাইলে অধ্যক্ষ তার ছেলে ও জামাইয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করতে বলেন। ভুক্তভোগীরা আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে ও জামাইয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তারা ভিন্ন-ভিন্ন উত্তর দেন। তারা কমিটিকে জানালে কমিটির সদস্যরা অধ্যক্ষের সাথে কথা বলার জন্য মাদরাসায় গেলে তিনি কমিটির সদস্যদের সঙ্গে সাক্ষাত না করে উল্টো পুলিশ ডাকেন।
ভুক্তোভোগীরা জানান, তারা আইনের আশ্রয় নিয়ে উকিল নোটিশ পাঠালেও কোনো প্রতিকার পাননি। উল্টো আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে আব্দুল্লাহ বিন আব্দুর রাজ্জাক তাদেরকে বিভিন্ন ধরণের হুমকি ধামকি প্রদান করেন। চাকুরী হারিয়ে বর্তমানে তারা মানবেতর জীবন যাপন করছেন। এব্যাপারে চাকরীতে পুনর্বহাল এবং অধ্যক্ষ্যের অনিয়মের প্রতিকার কামনা করেছেন তারা।
মাদরাসাটির সেক্রেটারী জিয়াউর রহমান বলেন, আব্দুর রাজ্জাক বিন ইউসুফ কমিটির কথা না শুনেই নিজের ইচ্ছেমতো প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করেন। কোনোরকম নোটিশ ছাড়াই মাদরাসার শিক্ষক-কর্মচারীদের ছাটাই করেছেন। এনিয়ে কমিটির সদস্যরা তার সঙ্গে সাক্ষাত করতে গেলে তিনি সাক্ষাতও করেননি।
এ বিষয়ে মাদরাসার অধ্যক্ষ আব্দুর রাজ্জাক বিন ইউসুফের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি গণমাধ্যম কর্মীদের বলেন, আমার বিরুদ্ধে অভিযোগগুলো সঠিক নয়। বহিষ্কার নয় বরং তাদেরকে আমার আরেকটি প্রতিষ্ঠানে স্থানান্তর করা হয়েছে। আমি কাউকেই বহিষ্কার করিনি, এগুলো তাদের মনগড়া কথা
Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ