July 10, 2019, 4:18 pm

বোয়ালমারীতে মাদক ব্যবসায়ীর প্ররোচণায় তরুণীর আত্মহত্যা থানায় অভিযোগ

Spread the love

কামরুল সিকদার, বোয়ালমারী (ফরিদপুর) থেকেঃ

ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলায় এক তরুণের বিরুদ্ধে এক কিশোরীকে আত্মহত্যার প্ররোচণা দেওয়ার অভিযোগ করেছেন ওই তরুণীর বাবা। গত ২৬ জুন বিকেলে শারমিন আক্তার (১৪) নামে ওই তরুণীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয় তার বাড়ির গোয়ালঘর থেকে। শারমিন আক্তার উপজেলার পরমেশ্বরদী ইউনিয়নের পরমেশ্বরদী গ্রামের ইকরাম আকনের মেয়ে। সে স্থানীয় ময়েনদিয়া রহমানিয়া মহিলা মাদ্রাসার শিক্ষার্থী ছিল। ওই কিশোরীর অপমৃত্যুর পিছনে একই এলাকার সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ী সুমন শেখ (২৫) নামে এক যুবকের প্ররোচণা ছিল বলে গত ৩০ জুন বোয়ালমারী থানায় এক লিখিত অভিযোগে জানান কিশোরীর বাবা ইকরাম আকন। ইকরাম আকন বোয়ালমারী থানায় দেওয়া ওই লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করেন, প্রতিবেশি সুমন শেখ নানা সময় তার মেয়েকে উত্যক্ত করতো। গত এক বছর আগে তার মেয়েকে জোরপূর্বক প্রকাশ্যে জড়িয়ে ধরে প্রতিবেশি কাদের তালুকদারের ছেলে সবুর তালুকদারকে (১৪) দিয়ে মোবাইলে ছবি তোলেন সুমন। বিষয়টি এলাকার মাতব্বর কুদ্দুস আকন ও ওই তরুণের বাবা মান্নান শেখকে জানালেও তারা কোন বিচার করেনি। লিখিত অভিযোগে আরও জানা যায়, তার মেয়ে মাদ্রাসায় যাতায়াতের পথে সুমন প্রায় উত্ত্যক্ত করতো। মোবাইলে তোলা ছবি ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে তার সাথে শারীরিক মেলোমেশা করতে বাধ্য করতো বলে তিনি জানতে পারেন। এ সব ঘটনা জানাজানি হলে তার মেয়ে গত ২৬ জুন দুপুরে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে। ইকরাম আকন এ ব্যাপারে তথ্য প্রমাণের জন্য সুমনের দেয়া সিমসহ একটি মোবাইল সেট বোয়ালমারী থানায় জমা দেন।এ ঘটনা ছাড়াও সুমন পরমেশ্বরদী গ্রামের মোশারফের ছেলে শামীম শেখকে কুপিয়ে আহত করার ঘটনায় বোয়ালমারী থানায় গত ১৩/০৭/১৫ ইং তারিখে দায়েরকৃত মামলার আসামি। অন্যদিকে গত ১১/০৭/১৮ ইং তারিখে উপজেলার ময়েনদিয়া চিতারবাজার সড়কের মন্টু বিশ্বাসের বাড়ির সামনে থেকে সুমনকে ১১০ পিস ইয়াবাসহ আটক করে থানা পুলিশ। ওইদিনই এসআই সুকান্ত দত্ত বাদী হয়ে বোয়ালমারী থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে একটি মামলা করেন সুমনের বিরুদ্ধে। বর্তমানে মামলা দু’টি আদালতে বিচারাধীন রয়েছে। এ অভিযোগের ব্যাপারে সুমনের সাথে কথা বলা সম্ভব হয়নি। তবে মুঠোফোন কথা হয়েছে তাঁর বাবা মান্নান শেখের সাথে।এ ব্যাপারে মান্নান শেখ বলেন, আমি তো আমার ছেলের পক্ষে সাফাই গাইবো। আপনারা এলাকায় এসে খোঁজখবর নেন। বোয়ালমারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম শামীম হাসান বলেন, ইকরাম আকনের লিখিত অভিযোগ তিনি পেয়েছেন। মৃতের ময়না তদন্ত করা হয়েছে। ময়না তদন্তের প্রতিবেদন এখনও পাওয়া যায়নি। তিনি আরো বলেন, তবে এলাকায় লোক মুখে সুমন ও ওই ছাত্রীর মধ্যে সম্পর্কের কথা শোনা গেছে। তদন্তে এ মৃত্যুর পিছনে কারো বিরুদ্ধে প্ররোচনার প্রমাণ পাওয়া গেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

প্রাইভেট ডিটেকটিভ/৭জুলাই ২০১৯/ইকবাল

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ