August 18, 2019, 9:53 pm

বোয়ালমারীতে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শ্রেণী কক্ষে কোচিং বানিজ্য

Spread the love

কামরুল সিকদার, বোয়ালমারী (ফরিদপুর) থেকে ঃ

ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার পরমেশ্বরদী ইউনিয়নের হাট-পরমেশ্বরদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ধুলজোড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে স্কুল বন্ধের মধ্যে টাকা নিয়ে কোচিং করানো হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত ৫মে হতে ১৩ জুন পর্যন্ত সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে রোজা ও ঈদুল ফিতরের সরকারি বন্ধ ঘোষণা থাকলেও কতিপয় অর্থলোভী শিক্ষক সরকারি নির্দেশনা অমান্যকরে কোচিং বানিজ্য চালিয়ে যাচ্ছে।সরেজমিন গিয়ে গত ১৪.০৫.১৯ সোমবার দেখা যায়, উপজেলার হাট-পরমেশ্বরদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হরেন্দ্রনাথ সরকার ও সহকারী শিক্ষক চন্দ্র রানী হোড় সকাল ৯টা হতে স্কুলের দুটি শ্রেণী কক্ষে শিক্ষার্থীদের কোচিং করাচ্ছেন। ৫ম শ্রেণীর ২০-২৫জন শিক্ষার্থীদের কোচিং করান প্রধান শিক্ষক ও ৪র্থ শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের কোচিং করান সহকারী শিক্ষক। উপস্থিত দুই শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বললে তারা বলে, কোচিং ক্লাসের জন্য মাসে দুইশত টাকা স্যারকে দিতে হয়।হাট-পরমেশ্বরদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেণীর শিক্ষার্থী পরমেশ্বরদী গ্রামের তাসফিয়া জাবিন নিদ্রা জানায়, কোচিং বাবদ হেড স্যারকে (প্রধান শিক্ষক) মাসে দুই শত টাকা দিতে হয়।অপরদিকে ধুলজোড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক অসিত দাস স্কুলের শ্রেণী কক্ষে প্রায় ৫মাস যাবৎ ৩য়,৪র্থ ও ৫ম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের কোচিং করাচ্ছেন। সকাল ৮টা হতে ৯টা ৩য় ও ৪র্থ শ্রেণীর প্রায় ৩০জন এবং ৯টা হতে ১০টা ৫ম শ্রেণীর ২৫জন শিক্ষার্থীদের কোচিং করান। প্রত্যেক শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে কোচিং ফি বাবদ মাসে দুই শত টাকা করে নেন বলে উপস্থিত শিক্ষার্থীরা জানায়। মালিখালী গ্রামের জুনায়েদ ফকিরের ৪র্থ শ্রেণীর পড়–য়া ছেলে জানায়, কোচিং বাবদ অসিত স্যারকে মাসে দুই শত টাকা দিতে হয়।হাট-পরমেশ্বরদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হরেন্দ্রনাথ সরকার বলেন, শিক্ষার্থীদের পরীক্ষায় ভালো ফলাফলের জন্য অতিরিক্ত ক্লাস নিচ্ছি। আমরা কোন টাকা নেই না।ধুলজোড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক অসিত দাস বলেন, স্কুলের অমেধাবী শিক্ষার্থীদের অতিরিক্ত পাঠদান করাই। তাদের কাছ থেকে কোন টাকা নেয়া হয় না। বোয়ালমারী উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার নার্গিস জাফরী বলেন, শিক্ষা মন্ত্রনলায়ের নির্দেষ অনুযায়ী কোন প্রকার কোচিং করানো যাবে না। খোঁজ নিয়ে এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট শিক্ষকের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

প্রাইভেট ডিটেকটিভ/ ১৪ মে ২০১৯/ইকবাল

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ