August 7, 2020, 6:29 pm

শিরোনাম :
নবীগঞ্জে মেয়র ছাবির আহমদ ও তার স্ত্রীর করোনা মুক্তিতে ছাত্রদল নেতার উদ্দ্যোগে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত বকশিগ‌ঞ্জে ৪৩ হাজার ৩৫০ টাকাসহ ৮ জুয়ারী গ্রেফতার শাঁখারী বাজারে চোলাই মদসহ কারবারি রুপী রানী আটক কামরাঙ্গীরচরে ইয়াবাসহ কারবারি ইব্রাহীম ও শাহীন গ্রেফতার বঙ্গমাতারজন্মদিনে দুঃস্থদের হুইল চেয়ার দিলেন তথ্য প্রতিমন্ত্রী কলাপাড়ায় দূর্নীতির অভিযোগে পিআইও সাময়িক বরখাস্ত সুন্দরগঞ্জে মাদকসেবীর কারাদন্ড সরিষাবাড়ীতে হত্যা মামলার খুনিদের ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন নবীগঞ্জের সকলের প্রিয়মুখ দিলীপ ভট্টাচার্য্যের পরলোক গমন : বিভিন্ন মহলের শোক দেশে উন্নয়নের নতুন দিগন্ত উন্মোচিত হয়েছে -কৃষিমন্ত্রী ড. মো: আব্দুর রাজ্জাক এমপি

বোয়ালমারীতে খাল দখল নিয়ে মিথ্যা সংবাদ পরিবেশন করায় উত্তেজনা

Spread the love

কামরুল সিকদার, বোয়ালমারী (ফরিদপুর) প্রতিনিধি :

ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার রূপাপাত ইউনিয়নের টুংরাইল খাল দখল নিয়ে সময় টিভির অনলাইন পোর্টালে একটি ভিত্তিহীন  মিথ্যা সংবাদ পরিবেশনকে কেন্দ্র করে এলাকায় ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে।টিভিটির অনলাইন পোর্টালে কাজ করা মাগুরার সাংবাদিক প্রভাষ চৌধুরী তার এক নিকট আত্মীয় টুংরাইলের পুতুল রানী বিশ্বাষের   খালের সরকারী জমি দখল করাকে বৈধতা দিতে উঠে পড়ে লেগেছে। সময় টিভি অনলাইনকে পুঁজি করে প্রভাস  চৌধুরী  সরকারি খালকে ব্যক্তিগত জায়গা বলে প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন। মিথ্যা সংবাদ পরিবেশনের পাশাপাশি সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে বিষয়টি নিয়ে প্রভাব বিস্তারের চেষ্টা করে যাচ্ছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনা জানাজানি হলে স্থানীয়দের মাঝে এ নিয়ে ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে। প্রভাষ চৌধুরী নিজের আত্মীয়কে সুবিধা পাইয়ে দিতে পার্শ্ববর্তী  উপজেলার এক প্রভাবশালী আওয়ামীলীগ নেতাকে ব্যবহার করে এবং মিথ্যা সংবাদ পরিবেশন করে সরকারের বিভিন্ন কর্তা ব্যক্তিকে বিভ্রান্ত করেন। সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, টুংরাইল খালের দক্ষিনপার সড়ক ঘেষা প্রায় ২০ টি দোকান দিয়ে ব্যবসা করছে স্থানীয় গ্রামবাসী। কয়েক মাস আগে খালটি সংস্কারের সময় দোকানগুলো সরিয়ে দেয় স্থানীয় ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান। খাল খনন শেষে অন্যান্য ব্যাবসায়ীরা নিজ স্থানে বসতে পারলেও আনন্দ বিশ্বাষ সহ বেশ কয়েকজনের জায়গা দখল করে নেয়   পুতুল রানী বিশ্বাস। নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্যক্তি জানান, পার্শ্ববর্তী উপজেলা কাশিয়ানীর এক প্রভাবশালী নেতার ছত্রছায়ায়  জায়গাটি দখল করে নেন পুতুল। তবে পুতুল রানীর দাবি খাল পার দিয়ে যাওয়া সড়কটি তার পৈতৃক সম্পত্তির উপর দিয়ে গেছে। বর্তমানে জায়গাটি সরকারিভাবে রাষ্ট্রের সম্পদ হলেও এখানে দোকান তোলায় তার অধিকার বেশি তাই সে এ জায়গায় দোকান দিয়েছে। বেশ কিছুদিন বিষয়টি নিয়ে স্থানীয়দের মাঝে উত্তেজনা বিরাজ করে। স্থানীয়দের অভিযোগের ভিত্তিতে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে খালটি দখলমুক্ত করার উদ্যোগ নেয়া হলে ওই সাংবাদিক জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রীকে ভুল তথ্য দিয়ে বিভ্রান্ত করেন।এ ব্যাপারে রূপাপাত ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আজিজুর রহমান বলেন, “খাল সংস্কারের স্বার্থে দোকানগুলো সরিয়ে দিয়েছিলাম আমি। খাল খননের পর আগে যাদের দোকান ছিল তারা অনেকেই  আর আগের জায়গায় আসতে পারেনি। জায়গা নিয়ে যেহেতু বিরোধ সৃষ্টি হয়েছে তাই ওই জায়গা কারো দখলে না থাকাই ভাল।বনমালীপুর গ্রামের বাসিন্দা এবং বোয়ালমারী উপজেলা রক্ষা কমিটির সভাপতি বদিউজ্জামান খান টুলু বলেন, “পার্শ্ববর্তী উপজেলার এক আওয়ামীলীগ নেতার মদদে খাল দখল নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। আমি স্থানীয়দের বলেছি প্রশাসনের দ্বারস্থ হতে। সেক্ষেত্রে আমি তাদের সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছি।নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জনৈক ব্যক্তি বলেন, “পার্শ্ববর্তী উপজেলার আওয়ামীলীগ নেতা আকরাম খানের ইন্ধনে টুংরাইল খালকেন্দ্রিক উত্তেজনা বিরাজ করছে। এটির সমাধান না হলে ভবিষ্যতে অপ্রীতিকর ঘটনার আশঙ্কা রয়েছে।”এ ব্যাপারে আওয়ামীলীগ নেতা আকরাম খান বলেন, “বোয়ালমারী উপজেলা প্রশাসন খালটি দখলমুক্ত করার উদ্যোগ নিলে ওই গ্রামের লোকজন আমার কাছে আসে। মানবিক দৃষ্টিকোন থেকে এই করোনাকালীন সময়ে এবং নিম্নাঞ্চল প্লাবিত থাকায় আমি জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রীকে দিয়ে উচ্ছেদ অভিযানটি স্থগিত করিয়েছি। সরকার শুকনো মৌসুমে সাধারণ মানুষের কল্যানে যেটা সেটা করলে আমার আপত্তি থাকবে না।টুংরাইল গ্রামের বাসিন্দা নিত্য গোপাল দাস বলেন, পরিবেশ রক্ষা ও এলাকায় শান্তি বজায় রাখার আমরা চাই খালটি দখলমুক্ত হোক।

প্রাইভেট ডিটেকটিভ/৩০ জুলাই ২০২০/ইকবাল

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ