January 21, 2020, 6:42 am

শিরোনাম :
রংপুর নগরীর দেওডোবায় ভাতিজার হাতুড়ির আঘাতে চাচার মৃত্যু রংপুরে শীতে আগুন পোহাতে গিয়ে দগ্ধ যুবক নূর ইসলাম চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন খাগড়াছড়ি গণপূর্ত বিভাগ ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের কাজের বিল পরিশোধ না করার,শিশু একাডেমি ভবনে ঠিকাদারের ঝুলছে তালা কুমিল্লায় নারীসহ ডাকাত দলের ১১ সদস্যকে গ্রেফতার,অস্ত্র উদ্ধার রাজধানী ঢাকার খিলক্ষেতে র‍্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী নিহত র‌্যাব-১০ এর পৃথক মাদক বিরোধী অভিযানে ইয়াবা ও বিয়ারসহ আটক ৫ ঝিকরগাছার চুরি হওয়া প্রাইভেটকার নড়াইল থেকে উদ্ধার পুলিশ ৩ জনকে আটক করে আদালতে প্রেরণ টাঙ্গাইলে সংবাদ সংগ্রহের কথা বলে “দৈনিক মাতৃজগত পত্রিকা ও টিভি”র স্টাফ রিপোর্টার নিখোঁজ যশোরে ১১ কেজি স্বর্ণসহ আটক – ৩ সারিয়াকান্দিতে বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মান্নানের লাশ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন সম্পন্ন
একটি শট খেলছেন আফিফ হোসেন। ছবি : সংগৃহীত

বঙ্গবন্ধু বিপিএলে চট্টগ্রামকে ৮ উইকেটে হারিয়েছে রাজশাহী

Spread the love

ডিটেকটিভ স্পোর্টস ডেস্কঃ

একটি শট খেলছেন আফিফ হোসেন। ছবি : সংগৃহীত

বঙ্গবন্ধু বিপিএলে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সকে ৮ উইকেটে হারিয়েছে রাজশাহী রয়্যালস। প্রথমে ব্যাট করে নির্ধারিত ২০ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৫৫ রান করে চট্টগ্রাম। জবাবে ১৭.৪ ওভারে ২ উইকেট হারিয়েছে জয়ের লক্ষে পৌঁছে যায় রাজশাহী।১১ জানুয়ারি ২০২০ ইং তারিখ শনিবার মিরপুর শেরে  বাংলা  জাতীয়  ক্রিকেট  স্টেডি য়ামে  অনুষ্ঠিত ম্যাচে টস জিতে  প্রথমে ফিল্ডিং  করার  সিদ্ধান্ত  নেয়  রাজশাহী রয়্যালস।সপ্তম  ওভারে  চট্টগ্রামের  উদ্বোধনী  জুটি  ভাঙ্গেন  রাজশাহীর স্পিনার  পাকিস্তানের শোয়েব মালিক। ২টি চার  ও  ১টি  ছক্কায়  ২৩  বলে  ২৩  রান  করা  জুনায়েদ সিদ্দিককে বিদায় দেন মালিক।নিজের  দ্বিতীয়  ম্যাচে ও বড়  ইনিংস  খেল তে পারেননি ক্রিস গেইল। ১টি  চার ও ২টি  ছক্কায় ২১  বলে ২৩ রান করেন  গেইল। তাকে শিকার করেন আফিফ। ভালো শুরুর ইঙ্গিত  দিয়ে  থামেন  ইনফর্ম  ইমরুল  কায়েস। ১৮ বলে ৩টি চারে ১৯ রান করেন ইমরুল।এ অবস্থায়  উইকেটে গিয়েই  মারমুখী হয়ে উঠেন উইকেটরক্ষক নুরুল হাসান।দলের  রানের  চাকা  দ্রুত  ঘুড়াতে  থাকেন তিনি। ১৭ বলে ৪টি চার ও ১টি ছক্কায় ৩০ রান করেন নুরুল।তার পর ও  দলের স্কোর তেমনটা বাড়েনি। নুরুল  যখন  ফিরেন,  তখন  দলের  স্কোর ১৩১  রান। ইনিংসের মাত্র ৯ বল বাকী ছিল। শেষ  ৯  বলে  ব্যাট  হাতে  ঝড়  তুলেছেন  মাহমুদুল্লাহ ও জিয়াউর রহমান। যোগ করেন অবিচ্ছিন্ন ২৪ রান। তাতেই  ৫ উই কেটে ১৫৫ রানের লড়াকু সংগ্রহ পায় চট্টগ্রাম।জয়ের জন্য ১৫৬ রানের লক্ষে খেলতে নেমে আফিফ হোসেন ও লিটন দাস ভাল সূচনা এনে দেন। দলীয় ৮৮ রানে নাসুম আহমেদের বলে বিদায় নেন আফিফ। আউট হওয়ার আগে ৩১ বলে ৩২ রান করেন তিনি। আফিফের বিদায়ের পর শোয়েব মালিকের সঙ্গে জুটি গড়েন লিটন। তারা দুজনে দলকে জয়ের কাছাকাছি নিয়ে যান। কিন্তু দলীয় ১৩৮ রানে বিদায় নেন লিটন। ৪২ বলে ৭৫ রান করে এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়েন তিনি। শোয়েব মালিক ৪৩ রানে অপরাজিত থেকে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়েন।

প্রাইভেট ডিটেকটিভ/১১ জানুয়ারি ২০২০/ইকবাল

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ