August 18, 2019, 9:47 pm

পুরান ঢাকা রাজ করে বেড়াচ্ছে বাহাদুর শাহ পরিবহন

Spread the love

শাহীন আহম্মেদ,কেরানীগঞ্জ প্রতিনিধিঃ

বাহাদুর শাহ পার্ক (ভিক্টোরিয়া পার্ক) হলো পুরান ঢাকার  ঐতিহ্যবাহী স্থান গুলোর মধ্যে একটি।এই নাম ভাঙিয়েই চালানো হচ্ছে ফিটনেস বিহীন এসব মিনিবাস রাজধানীর সদরঘাটে বাংলাবাজার মোড়,বাবুবাজার ও জগন্নাথ এর সামনে থেকে বাহাদুর শাহ পরিবহনের মিনি বাস গুলো যাত্রাবাড়ী, ডেমরা ও জুরাইন রুটে চলাচল করে।প্রতিদিনই এসব রোডে ১০০ থেকে ১২০ টি গাড়ি চলাচল করে।২৫ জনেরই  বসা কষ্টকর তার মধ্যে জোর করে ৩৫ জন যাত্রী  নিয়ে পাগলা ঘোড়ার গতিতে চলে এই বাস গুলো।এসব বাসের মেয়াদ ১৭ বছর দেয়া থাকলেও অধিকাংশ  বাসের মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে প্রায় ৫ থেকে ৬ বছর আগেই। তবে ঢাকা মেট্রোপলিটন এলাকায় বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথোরিটি অনুমদিত রুটে গাড়ির তালিকায় বাহাদুর শাহ পরিবহনের নাম খুজে পাওয়া যায়নি । নির্দিষ্ট কোন রুট অনুমতি না থাকা সত্ত্বেও পুরান ঢাকার অপ্রসস্থ সড়ক গুলোতে রাজ করে বেড়ায় এই গাড়ি গুলো।
ঘন্টার পর ঘন্টা লেগে থাকে জ্যাম, যার ফলে দুর্ভোগ পোহাতে হয় শিক্ষার্থী সহ সাধারণ যাত্রীদের।ইলিয়াস নামে এক চালকের ড্রাইভিং লাইসেন্স দেখতে চাইলে রেগে যান তিনি।নাম প্রকাশে নারাজ একজন হেলপার জানান, চালকের পরিবর্তে মাঝে মাঝে ড্রাইভিং করেন  তিনি নিজেও।আরো জানতে চাইলে তিনি বলেন,এসব বাসের অধিকাংশ চালকেরই নেই ড্রাইভিং লাইসেন্স।বেশিরভাগ সময়  হেলপারই পান ড্রাইভিং করার সুযোগ।পূরান ঢাকার প্রায় সব এলাকার সড়কই অপ্রসস্থ।সেখানে দুইটি বাস একসাথে চলাচল করা খুবই কঠিন।এছাড়াও অদক্ষ চালক ও ফিটনেস বিহীন এসব গাড়ি  বেপরোয়া ভাবে চালানোর জন্য প্রায়ই ঘটছে নানা রকম  দূর্ঘটনা। ২৬ জুন ২০১৭, বেলা ১২ টার দিকে যাত্রাবাড়ীতে বাহাদুর শাহ পরিবহনের একটি বাসের ধাক্কায় এক শিশু আহত হয়।১৬ আগস্ট ২০১৭, বিকাল ৫ টার দিকে শ্যামপুর মুন্সিবাড়ি এলাকায় বাহাদুর শাহ পরিবহনের একটি বাস দয়া গঞ্জে যাওয়ার সময় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে আইল্যান্ডের উপর উঠে যায়।এতে আব্দুল মমিন (৩০)নামে একজন পিকআপ চালক গুরুতর আহত হন।পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক ৬ টায় তাকে মৃত ঘোষণা করেন।এছাড়াও, বেপরোয়া ভাবে গাড়ি চালানোর জন্য ঘটেছে  আরো অনেক প্রাণঘাতী দূর্ঘটনা।সাধারণ যাত্রীরা জানান,তাদের থেকে মাঝে মাঝে দিগুণ  ভাড়া আদায় করা হয়।
স্টুডেন্ট ভাড়াও রাখতে নারাজ  তারা,বললেন  মুসলিম গভ. হাইস্কুলের এক শিক্ষার্থী।এই এলাকায় কবি নজরুল সরকারি কলেজ সহ বিভিন্ন ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান  থাকায় যেকোনো সময় ঘটতে পারে নানা রকম দূর্ঘটনা।তাই ফিটনেস বিহীন এসব পরিবহনের বিরুদ্ধে দ্রুত কার্যকর পদক্ষেপ নিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান কবি নজরুল সরকারি কলেজ সহ অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা।
এ ব্যাপারে মালিক পক্ষের কেউই কথা বলতে রাজি হয়নি।
প্রাইভেট ডিটেকটিভ/ ১৪ মে ২০১৯/ইকবাল
Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ