June 23, 2019, 1:47 pm

শিরোনাম :
পুলিশ এসল্ট ও বিস্ফোরক মামলা ছাতকের মেয়র ভ্রাতা সেই শামীম আহমদ চৌধুরী অবশেষে কারাগারে সুনামগঞ্জ এলজিইডি টানা ১৭ বছর কর্মরতএক কর্মস্থলেই চাকুরি ! বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের ৭০-তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী টুঙ্গিপাড়ায় জাতির জনকের সমাধিতে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের শ্রদ্ধা যশোরের শার্শায় ট্রাক ও মোটর সাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে শিশু বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক মোস্তফা নুর মোহাম্মাদ এর মৃত্যু ন্যায় বিচার চেয়ে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা সাংবাদিক মেহেদী হাসান শ্যামলের ৪৫ তম জন্ম দিনে বিভিন্ন মহলের শুভেচ্ছা রংপুর নগরীর তাজহাট এলাকায় ইয়াবা ও ফেনসিডিলসহ মাদক ব্যবসায়ী শহিদুল আটক র‌্যাব-৫ এর অভিযানে বিপুল পরিমান দেশী মদসহ ১ মাদক ব্যবসায়ী আটক র‌্যাব-৫ এর অভিযানে ৫৯৪ পিচ ইয়াবাসহ ২ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার ইসলামপুরে মটর সাইকেল প্রতিযোগিতায় নিহত ১

পলাশবাড়ীতে মাদকাসক্ত আনিছুরের হামলায় কলেজ ছাত্রী ও তার ছোট বোন এবং চাচাকে কুপিয়ে গুরুত্বর আহতের ঘটনায় পলাশবাড়ী থানায় মামলা হলেও পুলিশ এখন পযন্ত কোন আসামী গ্রেফতার করতে পারেনি

Spread the love

সরদার মোঃতোজাম্মেল হক, পলাশবাড়ী (গাইবান্ধা) প্রতিনিধিঃ

পলাশবাড়ীতে মাদকাসক্ত আনিছুরের হামলায় কলেজ ছাত্রী ও তার ছোট বোন এবং
চাচাকে কুপিয়ে গুরুত্বর আহতের ঘটনায় পলাশবাড়ী থানায় মামলা হলেও পুলিশ
এখন পযন্ত কোন আসামী গ্রেফতার করতে পারেনি।জানাযায়, উপজেলার মনোহরপুর ইউনিয়নের বিরামের ভিটা গ্রামের আব্দুল জলিলের মেয়ে কলেজ ছাত্রী ও ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মী দিপা আক্তার তার বোন স্কুল ছাত্রী  জেমি  হরিনাথপুর ইউনিয়নের কিশামত কেওয়াবাড়ী গ্রামের ভিতর তাদের জমিতে পোটল উঠাতে যায়। এসময় জমির পার্শ্বের বাড়ীর মৃত আবুল হোসেনের ছেলে মাদকাসক্ত আনিছুর (৪০) তাদের আজে- বাজে কথা বলে এবং পোটল তুলতে বাধা প্রদান করে। আনিছুরের বাধা উপেক্ষা করে তারা দুই বোন পোটল উঠাতে থাকে। এসময় মাদকাসক্ত আনিছুর তার কোমরে থাকা চাকু বের করে দুই বোনকে হত্যার উদ্দেশ্য চোট মারিলে চোটটি বাম হাত দ্বারা ঠেকাইলে আঙ্গুলটি কাটিয়ে পরিয়া গিয়া গুরুত্বর রক্তাক্ত হাড়কাটা অঙ্গহানি হয়। এরপর  মাটিতে পড়িয়া গেলে তার হাতে থাকা একটি লাইনের রশি দিয়ে গলায় প্যাচ দিয়ে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যার চেস্টা করে। পরে তার ছোট বোন এগিয়ে এলে তাকেও ডান পায়ে চোট মারিয়া গুরুতর কাটা রক্তাক্ত জখম করে। এসব দেখে আহতের চাচা মৃত কফিল উদ্দিনের ছেলে নুরুল ইসলাম (৬০) এগিয়ে এলে তাকেও চাকু দিয়ে মাথার মাঝামাঝি স্থানে চোট দিয়ে হাড়কাটা রক্তাক্ত জখম করে। উক্ত স্থানে ৯ টি সেলাই দেওয়া হয়েছে।  এসময় তাদের উদ্ধারে আহত নুরুলের স্ত্রী হাসিনা বেগম (৫৫) ও মৃত ইছাহাকের স্ত্রী মঞ্জু মনোয়ারা বেওয়া (৫০) আহত হয়। স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে ৮ এপ্রিল গাইবান্ধা আধুনিক সদর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করায়। বর্তমানে তারা এ হাসপাতালেই চিকিৎসাধীন রয়েছে বলে জানাযায়। এঘটনায় ওইদিন কলেজ ছাত্রীর পিতা মোঃ আব্দুল জলিল পলাশবাড়ী থানায় একটি ইজাহার দায়ের করে। পলাশবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ হিফজুল আলম মুন্সি ইজাহারটির সত্যাতা যাচাই করতে হরিনাথপুর তদন্ত কেন্দ্রের এস আই কামালকে ঘটনাটি তদন্ত করার দায়িত্ব দেন। হরিনাবাড়ী তদন্ত কেন্দ্রের এস আই কামাল  ঘটনাটির সত্যাতা পাওয়া যায় বলে প্রতিবেদন দেন। পলাশবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ ( ওসি) হিফজুল আলম মুন্সি মামলাটি গত ১০ এপ্রিল  রেকর্ডভুক্ত করেন। এ ঘটনায় মাকদাসক্ত আনিছুর ও তার সহযোগীরা কলেজ ছাত্রী ও তার পরিবারের সদস্যদের গুম, খুনের হুমকি দিচ্ছে। এমনকি কলেজ ছাত্রী ও তার ছোট বোন স্কুল ছাত্রীকে পুড়িয়ে মারার হুমকি প্রদর্শন অব্যাহত রেখেছেন এবং কলেজ ছাত্রীর পরিবার নিরাপত্তাহীনতায় ভুকছেন। এব্যাপারে কলেজ ছাত্রীর পরিবার জেলা – উপজেলা প্রশাসনসহ র্যাব, ডিবির জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করছেন। উল্লেখ্য, এ জমি নিয়ে দীর্ঘদিন থেকে মামলা চলে আসছিল। মামলায় আনিছুর গংরা হেরে যায়। এ হার মেনে নিতে না পেরেই এরকম ন্যাক্কার জনক ঘটনাটি সে ঘটায় বলে জানাযায়।
প্রাইভেট ডিটেকটিভ/ ১৪ এপ্রিল ২০১৯/ইকবাল
Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ