September 11, 2019, 11:27 pm

শিরোনাম :
পুলিশের সেপ্টেম্বর ২০১৯ ইং মাসের মাসিক কল্যান সভা অনুষ্ঠিত সাংবাদিক রফিকের ওপর হামলার প্রতিবাদে রাজশাহীতে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধন র‌্যাব-৫ এর পৃথক ২টি অভিযানে ৯২৯৫ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেটসহ ২ মাদক ব্যবসায়ী আটক ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষে শিবগঞ্জে ইতিহাস গড়লেন গরিবের পরমবন্ধু সৈয়দ নুরুল ইসলাম পুলিশ সুপার পটুয়াখালীতে আদালতের নকল সীল মোহরে ভুয়া গ্রেফতারী পরোয়ানা তাহিরপুরের ইজারাদারের লাটিয়াল বাহিনীর অতর্কিত হামলায় আহত ৩ জেলে বগুড়া সদর উপজেলা পর্যায়ে ৪৮ তম জাতীয় স্কুল,মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা গ্রীষ্মকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত তালায় বিদ্যুৎ স্পৃষ্টে ইলেকট্রিশিয়ানের মৃত্যু শোকাবহ আগষ্টে মাসব্যাপি কর্মসূচী পালন করেছে বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদ লায়ন মোঃ গনি মিয়া বাবুল হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী স্মৃতি সম্মাননা পেলেন লায়ন গনি মিয়া বাবুল

পটুয়াখালীতে সমবায় ব্যাংকের দেড় শতক জমির দখল নিয়ে পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন

Spread the love

পটুয়াখালী প্রতিনিধিঃ

পটুয়াখালীর কলাপাড়া পৌরশহরের শেখ কামাল ব্রীজের নিচে ফেরিঘাট এলাকায় সমবায় ব্যাংকের দাবীকৃত দেড় শতক জমির দখলকে কেন্দ্র করে শহরজুড়ে চলছে আলোচনা সমালোচনার ঝড়। পাশাপাশি চলছে পরস্পর বিরোধী সংবাদ সম্মেলন। গতকাল মঙ্গলবার বেলা ১১টায় কলাপাড়া প্রেসক্লাবে ওই জমি সংবাদ সম্মেলন করেছেন মো. মাসুম বিল্লাহ। দুইদিন আগে এ জমির অপরাংশে বসবাস করা ব্যবসায়ী আবুল কালামের স্ত্রী মিনারা বেগমও একই অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন করেন।মাসুম বিল্লাহ জানান, তার ছোট ভাই রিয়াজ খান এবং তরিকুল মৃধার নামে সমবায় ব্যাংক থেকে বছরের পহেলা জুলাই দেড় শতক জমি ভাড়া চুক্তিতে লিজ নেন তারা। যেখানে স্থাপনা নির্মাণের জন্য ইতিমধ্যে বেড়া দিয়েছেন। ওই জমির পেছনের অংশে থাকা সমবায় ব্যাংকের অপর ভাড়াটিয়া আবুল কালাম তাদের জমি দখল করে স্থাপনা করতে থাকেন। এনিয়ে থানা পুলিশের সহায়তায় কাজ বন্ধ করতে গেলে দখলদাররা মানছেনা তারা। শালিস বৈঠকে বসতেও রাজি হচ্ছে না। মাসুম বিল্লাহ বলেন, তাদের লীজ কৃত জমিতে কাজ করতে গেলে কালাম গংরা অশ্লীল গালাগালসহ কাজে বাধা দিচ্ছে। উল্টো বসতঘরে হামলা, মেয়েদের গালাগাল করার মতো মিথ্যে বানোয়াট অভিযোগ করছেন তারা।সম্পুর্ণ ঘটনাটি একটি নাটক বলেও দাবি করছেন মাসুম বিল্লাহ। এদিকে সমবায় ব্যাংকের চেয়ারম্যান মঞ্জুরুল ইসলাম জানান, ওই জমি সমবায় ব্যাংকের অনুকূলে ৬১৩ নম্বর দাগ থেকে ৪৭ শতক এবং ৬১৪ নম্বর দাগ থেকে ৭৩ শতক খাস জমি ৭১/৭২ সালে কবুলিয়াতপ্রাপ্ত হন। এনিয়ে মামলা হলে আদালতের নির্দেশে ২০১০ সালে দলিল করে দেয়া হয়। যেখানে আবুল কালাম বসবাস করে আসছেন। অপর একাংশে ব্যবসা করছেন। তার দখলে এখনও সাড়ে তিন শতক জমি রয়েছে। অথচ সমবায় ব্যাংকের জমিকে খাস দাবি করে বর্তমান ভাড়াটিয়াদের উচ্ছেদ করে আবুল কালাম অপপ্রচারে লিপ্ত রয়েছে।ওই দেড় শতক জমির মালিকানা ও দখলকে কেন্দ্র করে ভূমি প্রশাসন এবং থানার রহস্যজনক ভূমিকা নিয়ে সর্বত্র বইছে আলোচনার ঝড়। সংবাদ সম্মেলনে অভিযুক্ত মাসুম বিল্লাহ ছাড়াও মো. সোহাগ, মো. মিরাজ ও ভাড়াটিয়া রিয়াজ খান উপস্থিত ছিলেন।

প্রাইভেট ডিটেকটিভ/০৭ আগস্ট ২০১৯/ইকবাল

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ