October 15, 2019, 6:44 pm

নারী আসনের মেয়াদ বাড়াতে সংবিধান সংশোধনের উদ্যোগ

Spread the love

প্রাইভেট ডিটেকটিভ ডেস্কঃ

জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত নারী আসনের মেয়াদ বাড়াতে সংবিধান সংশোধনের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এবার মেয়াদ ২০ বছর বাড়ানোর প্রস্তাব রেখে ‘সংবিধান (সপ্তদশ সংশোধন) আইন-২০১৮’-এর খসড়া তৈরি করা হয়েছে। আজ সোমবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে সেটি অনুমোদনের জন্য তোলা হতে পারে।

রবিবার সরকারের উচ্চপর্যায়ের একটি এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ সূত্র জানায়, এ-সংক্রান্ত প্রস্তাব চূড়ান্ত করে ইতিমধ্যে তা মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে পাঠানো হয়েছে। তবে সেটি সোমবারের বৈঠকে উঠবে কি না নিশ্চিত নয়।

সূত্র জানায়, সংবিধানের ৬৫(৩) অনুচ্ছেদ অনুযায়ী বর্তমানের ৫০টি সংরক্ষিত নারী আসনের  মেয়াদ চলতি সংসদ শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে শেষ হয়ে যাবে। পরবর্তী সংসদে সংরক্ষিত আসনের নারী সদস্য রাখতে হলে নতুন করে আইন করতে হবে।  তাই সংরক্ষিত নারী আসনের মেয়াদ বাড়ানোর জন্য সংবিধান সংশোধনের উদ্যোগ নেয়া হয়।

এর আগে সংসদে সংরক্ষিত নারী আসনের মেয়াদ দুবার বাড়ানো হয়। ১৯৭২ সালের সংবিধানে ১০ বছরের জন্য ১৫টি আসন সংরক্ষণের বিধান করা হয়। ১৯৭৮ সালে সংরক্ষিত আসন সংখ্যা ৩০-এ উন্নীত এবং এর মেয়াদ ১৫ বছর করা হয়। ২০০৪ সালে সংবিধানের চতুর্দশ সংশোধনীর মাধ্যমে সংরক্ষিত আসন ৪৫ এবং এর সময়সীমা ১০ বছর নির্ধারণ করা হয়।

তবে এবার শুধু মেয়াদ বাড়ানোর জন্য সংশোধনী আনা হচ্ছে। নাম প্রকাশ না করার  শর্তে একজন উর্ধ্বতন কর্মকর্তা ঢাকাটাইমসকে জানান, সংরক্ষিত নারী আসন ৫০টিই থাকছে। এর মেয়াদ ১০ বছরের জায়গায় ২০ বছর করার প্রস্তাব করা হয়েছে।’

বিদ্যমান সংবিধানের ৬৫(৩) অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে- ‘সংবিধান (চতুর্দশ সংশোধন) আইন-২০০৪ প্রবর্তনকালে বিদ্যমান সংসদের অব্যবহিত পরবর্তী সংসদের প্রথম বৈঠকের তারিখ হইতে শুরু করিয়া দশ বৎসর কাল অতিবাহিত হইবার অব্যবহিত পরবর্তীকালে সংসদ ভাংগিয়া না যাওয়া পর্যন্ত [পঞ্চাশটি আসন] কেবল মহিলা-সদস্যদের জন্য সংরক্ষিত থাকিবে এবং তাঁহারা আইনানুযায়ী পূর্বোক্ত সদস্যদের দ্বারা সংসদে আনুপাতিক প্রতিনিধিত্ব পদ্ধতির ভিত্তিতে একক হস্তান্তরযোগ্য ভোটের মাধ্যমে নির্বাচিত হইবেন: তবে শর্ত থাকে যে, এই দফার কোন কিছুই এই অনুচ্ছেদের (২) দফার অধীন কোন আসনে কোন মহিলার নির্বাচন নিবৃত্ত করিবে না।’

২০১১ সালের ৩ জুলাই সংবিধানের পঞ্চদশ সংশোধনীর মাধ্যমে সংরক্ষিত নারী আসনসংখ্যা ৪৫ থেকে বাড়িয়ে ৫০টি করা হয়। বর্তমানে ৩৫০ সদস্যবিশিষ্ট সংসদের ৩০০ জন সরাসরি ভোটে নির্বাচিত।  বাকি ৫০ জন সংরক্ষিত আসনে নারী সংসদ সদস্য। সংসদে প্রতিনিধিত্বকারী দলগুলো তাদের আসনসংখ্যার অনুপাতে নারী সংসদ সদস্য মনোনীত করে থাকে।

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ