August 19, 2019, 6:59 am

শিরোনাম :
জামালপুরে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে ২ জনের মৃত্যুর দাবি করেছে পরিবার গুইমারায় প্রাতিষ্ঠানিক জলাশয়ে মাছের পোনা অবমুক্ত করন তাহিরপুরে ইয়াবা ট্যাবলেট সহ ব্যবসায়ী আটক কোম্পানিগঞ্জ যুব জমিয়তের ঈদ পূর্ণমিলনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত চিলমারীতে আন্তঃনগর ট্রেন চালুর দাবিতে মানববন্ধন সুন্দরগঞ্জে বাড়িতেই চিকিৎসাহীনতায় ভুগছেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আঃ ওয়াহেদ একশ পিচস ইয়াবাসহ এক মাদক বিক্রেতা আটক অবৈধ মাটিবাহী ট্রাক্টরের ধাক্কায় আহত সাংবাদিক আলফাডাঙ্গায় লাইন্সবিহীন যানবাহন বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন কাটারাই থেকে দেওয়াননগর ৪ কিলোমিটার রাস্তার বেহাল দশা পীরগঞ্জে হানিফ পরিবহন ও পুলিশের গাড়ি মুখোমুখি সংঘর্ষে আহত ১০

দেশের ৬৩ জেলায় ছড়িয়েছে ডেঙ্গু

Spread the love

দেশের ৬৩ জেলায় ছড়িয়েছে ডেঙ্গু

ডিটেকটিভ নিউজ ডেস্ক

দেশের ৬৪ জেলার মধ্যে ৬৩টিতেই ডেঙ্গু ছড়িয়ে পড়েছে। স্বাস্থ্য অধিদফতরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশনস সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের তথ্য বলছে, শুধু নেত্রকোনা ছাড়া বাকি সব জেলায় ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে। সরকারি এই পরিসংখ্যান সেল বলছে, গত ১ জানুয়ারি থেকে ৩১ জুলাই (গতকাল বুধবার) পর্যন্ত ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১৭ হাজার ১৮৩। আর প্রাণঘাতী এ রোগে এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ১৪ জন। যদিও বেসরকারি হিসাবে এ সংখ্যা তিনগুণের বেশি। হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশনস সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম আরও বলছে, গত বছর (২০১৮ সাল) ডেঙ্গু আক্রান্ত মোট রোগীর সংখ্যা ছিল ১০ হাজার ১৪৮ জন। এরমধ্যে মৃত্যু হয়েছিল ২৬ জনের। গত বছর এই দিনে (৩১ জুলাই) রোগীর সংখ্যা ছিল ৯৪৬ জন। মৃতের সংখ্যা ছিল ৭। কন্ট্রোল রুম থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, ঢাকা শহর ছাড়িয়ে দেশজুড়ে এবার ডেঙ্গু ছড়িয়েছে ৬২ জেলায়। এসব জেলায় মোট ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ২ হাজার ৬৫৪ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালগুলোতে ভর্তি হয়েছেন ৫৪৯ জন। বর্তমানে ভর্তি আছেন ১ হাজার ২২৭ জন। চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১ হাজার ৪২৭ জন। কন্ট্রোল রুম থেকে জানা যায়, ঢাকা শহরের সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত হাসপাতালে গত ২৪ ঘণ্টায় ভর্তি হয়েছেন ৫৬৬ জন। বেসরকারি হাসপাতালগুলোতে এ সংখ্যা ৩৬২। বর্তমানে বেসরকারি হাসপাতালে রোগী ভর্তি আছেন ৪ হাজার ৯০৩ জন। সরকারি হাসপাতালগুলোর মধ্যে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি আছেন ৬৫২ জন, মিটফোর্ড হাসপাতালে ৯৮ জন, ঢাকা শিশু হাসপাতালে ১৩৫ জন, শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে ২৮১ জন, হলি ফ্যামিলি রেডক্রিসেন্ট হাসপাতালে ২৪২ জন, বারডেম হাসপাতালে ৪৪ জন, বিএসএমএমইউতে ১১২ জন, রাজারবাগ পুলিশ হাসপাতালে ১৪৮ জন, মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ২৩১ জন, বিজিবি হাসপাতালে ২৩ জন এবং কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে ২৯২ জন রোগী ভর্তি আছেন। আর বেসরকারি হাসপাতালগুলোর মধ্যে বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজ হসপাতালে ১৪৭ জন, ইবনে সিনা হাসপাতালে ৭৭ জন, স্কয়ার হাসপাতালে ১০০ জন, শমরিতা হাসপাতালে ২৬ জন, ল্যাবএইড হাসপাতালে ২৭ জন, সেন্ট্রাল হাসপাতালে ১০১ জন, ইসলামি ব্যাংক সেন্ট্রাল হাসপাতালে ১০১ জন, সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ১০৭ জন, গ্রিন লাইফ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৩৬ জন, হেলথ অ্যান্ড হোপ হাসপাতালে ৩১ জন, ইউনাইটেড হাসপাতালে ৯০ জন, খিদমা হাসপাতালে ২৮ জন, অ্যাপোলো হাসপাতালে ৭৪ জন, ইউনিভার্সেল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৬৬ জন, বিআরবি হাসপাতালে ৩৪ জন, বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে ৪৫ জন, উত্তরা আধুনিক মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৮৬ জন, সালাউদ্দিন হাসপাতালে ৬২ জন, পপুলার মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৪৮ জন এবং আনোয়ার খান মর্ডান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ২১ জন ভর্তি আছেন। ঢাকা শহরের বাইরে ঢাকা বিভাগের ১৪ জেলায় ২০৫ জন, ময়মনসিংহ বিভাগের ৪ জেলায় ১৮১ জন, চট্টগ্রাম বিভাগের ১১ জেলায় ১৫৭ জন, খুলনা বিভাগের ১০ জেলায় ২৬১ জন, রাজশাহী বিভাগের ৮ জেলায় ১৮৩ জন, রংপুর বিভাগের ৮ জেলায় ১২২ জন, বরিশাল বিভাগের ৬ জেলায় ৬৫ জন এবং সিলেট বিভাগের ৪ জেলায় ৫৩ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী হাসপাতালে ভর্তি আছেন।

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ