October 10, 2019, 8:46 pm

তাহিরপুরের জাদুকাটা নদীতে ১১ নৌকা পুড়িয়ে ধ্বংস, ৯ শ্রমিককে ১০দিনের কারাদন্ড

Spread the love
তাহিরপুরের জাদুকাটা নদীতে ১১ নৌকা পুড়িয়ে ধ্বংস, ৯ শ্রমিককে ১০দিনের কারাদন্ড
কামাল হোসেন, তাহিরপুর (সুনামগঞ্জ)
সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার সীমান্ত নদী জাাদুকাটায় অবৈধভাবে নদীর তীর থেকে ইঞ্জিন চালিত সেইভ মেশিন (বালি পাথর উত্তোলনের জন্য ব্যবহৃত যন্ত্র) দিয়ে বালি পাথর উত্তোলন করার সময় গতকাল সোমবার বিকেলে থানা পুলিশ সাঁড়াশি অভিযান চালিয়ে ১১ টি নৌকা ও ৯ জন শ্রমিককে আঠক করেছে তাহিরপুর থানা পুলিশ। জানাযায়,জেলা প্রশাসক মো. আব্দুল আহাদ ও পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমানের নির্দেশে তাহিরপুর থানার বাদাঘাট পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এসআই মোহাম্মদ আমির উদ্দিন ও এএসআই জহিরুল হকের নেতৃত্বে সাঁড়াশি অভিযান পরিচালনা করে দশটি নৌকা ও ৯ জন বালি পাথর উত্তোলনাকারী শ্রমিককে আটক করেন। আটককৃত শ্রমিকরা হলো, উপজেলার গুটিলা গ্রামের মৃত মো. আলীর ছেলে বিল্লাল মিয়া (৩৪), ইউনুছপুর গ্রামের ছাদেক মিয়ার ছেলে আকিক মিয়া (২৪), মনা মিয়ার ছেলে কাদির মিয়া (৩২), বড়খলা গ্রামের ফরিদ মিয়ার ছেলে বাদল মিয়া (২৫), সোনাপুর গ্রামের রফিকুলের ছেলে নুর জামাল (২৪), কুকুরকান্দি গ্রামের ফজলুল রহমানের ছেলে আঃ শহিদ (২২), রসুলপুর গ্রামের নুর ইসলামের ছেলে শাহ্ আলম (২৫), পাতারগাও গ্রামের হানিফ মিয়ার ছেলে সাইফুল ইসলাম (২৪), বাবুল মিয়ার ছেলে রকিব মিয়া (২৩)।
পরে বিকালে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) মো. মুনতাসির হসান জাদুকাটা নদীর বড়টেক এলাকায় এসে জনসম্মুখে আটককৃত নৌকা আগুন দিয়ে পুড়িয়ে ধ্বংস করেন। আটককৃতদের সন্ধায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) মো. মুনতাসির হসানের কাছে নিয়ে গেলে তিনি ভ্রামমান আদালত পরিচালনা করে প্রত্যেক শ্রমিককে ১০দিন করে বিনাশ্রম কারাদন্ডাদেশ প্রদান করেন।
তাহিরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ আতিকুর রহমান জানিয়েছেন, দন্ডপ্রাপ্ত শ্রমিকদের আজ মঙ্গলবার জেল হাজতে প্রেরণ করা হবে।
Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ