May 26, 2019, 3:36 am

তালায় অভ্যন্তরীন বোরো সংগ্রহের উদ্ধোধন

Spread the love

নজরুল ইসলাম তালা(সাতক্ষীরা) প্রতিনিধিঃ

সাতক্ষীরার তালা উপজেলার পাটকেলঘাটা সরকারী খাদ্য গুদামে বোরা ধান, চাউল ও গম সংগ্রহ ২০১৯এর উদ্ধোধন করা হয়। গতকাল ১১ মে শনিবার সকাল ১০টায় উপজেলা ধান.চাল ও গম সংগ্রহ কমিটির সভাপতি ও নির্বাহী অফিসার সাজিয়া আফরীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠান প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ্উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ঘোষ সনৎ কুমার,বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক আবু হেনা মোস্তফা কামাল ।অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মুরশিদা পারভীন পাপড়ি,উপজেলা চালকল মালিক সমিতির সভাপতি খন্দকার মোয়াজ্জেম হোসেন রনজু ,সাধারণ সম্পাদক প্রণয় পাল , আলহাজ্ব এবাদুল ইসলাম, ব্যবসায়ী আব্দুর রব পলাশ, আমজাদ হোসেন , মুশফিকুর রহমান ,গোপাল রায় , শেখ আবু জাফর প্রমুখ।উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকের অফিস সূত্রে জানা যায় ,চলতি বোরো মৌসুমে ধান, চাউল ও গম সংগ্রহের লক্ষে গত ২৮ মার্চ খাদ্য মন্ত্রনালয়ের পরিকল্পনা ও পরিধারণ কমিটির সভার সিদ্ধাান্ত মোতাবেক এ মৌসুমে তালা উপজেলায় ৩৬ টাকা কেজি মুল্যে ৩,৭৫৩ মেঃটন সিদ্ধ চাউল, ২৬ টাকা কেজি মুল্যে ৫৭৯ মেঃটন ধান,৩৫ টাকা মুল্যে ৩৭৪টন আতপ চাউল ও ২৮ টাকা কেজি মুল্যে ১৩৬ মেঃটন গম সংগ্রহের বরাদ্ধ প্রদান করা হয়। এ সংগ্রহ অভিযান চলতি বছরের ২৫ এপ্রিল হতে শুরু হওয়ার কথা থাকলেও ১৬দিন পর গতকাল এ উদ্ধোধন করা হয়। যা চলতি বছরের ৩১ আগষ্ট পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে।

সরকারকে ফাঁকি দিয়ে জমি বিক্রির টাকা হুন্ডির মাধ্যমে ভারতে পাচার
তালায় ভূয়া ও জাল তথ্য সরবরাহ করে তালায় ভারতীয় নাগরিকের জমি রেজিষ্ট্রির অভিযোগে তদন্ত শুরু।
নজরুল ইসলাম তালা(সাতক্ষীরা) প্রতিনিধিঃ
ভূয়া ওয়ারেশ কায়েম পত্র,আইডি কার্ডসহ তঞ্চকতাপূর্ণ কাগজ পত্র সরবরাহ করে দু’ভারতীয় নাগরিক বাংলাদেশে ওয়ারেশসূত্র প্রাপ্ত সম্পত্তি বিক্রি ও বিক্রির টাকা হুন্ডির মাধ্যমে ভারতে পাচারের অভিযোগের প্রেক্ষিতে তদন্ত শুরু করেছে সাতক্ষীরা জেলা সাব-রেজিষ্ট্রারের কার্যালয়।এর আগে সাবরেজিষ্টারসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের কাছে তঞ্চকতাপূর্ণ কাগজপত্র সরবরাহ ও তথ্য গোপন করে রেজিষ্ট্রি সম্পাদন ও সমুদয় টাকা পাচারের ঘটনায় তদন্তপূর্বক দলিল বাতিল ও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাগ্রহনের জন্য সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক ও জেলা সাব-রেজিষ্ট্রারের বরাবর লিখিত অভিযোগ করেন,ঐসম্পত্তির একাংশের মালিক তালা উপজেলার মোবারকপুর গ্রামের মৃত কালিপদ সাধুর ছেলে তপন সাধু ।অভিযোগের প্রেক্ষিতে সাতক্ষীরা জেলা সাব-রেজিষ্ট্রারের কার্যালয় থেকে বিষয়টির সুষ্ঠু তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন দাখিলের জন্য গত ১৭ এপ্রিল স্মারক নং ৯২৮ এর মাধ্যমে জেলার কালীগঞ্জ সাব-রেজিষ্ট্রার অজয় কুমার সাহাকে দায়িত্ব দেয়া হয়। এর প্রেক্ষিতে আগামী ৮ মে সকাল ১০ টায় তদন্ত কার্যক্রম সম্পন্নের জন্য ইসলামকাটি সাব-রেজিস্ট্রিারের কার্যালয়ে তদন্ত ভেন্যু নির্ধারণ করে স্ব-স্ব কাগজপত্রসহ দলিলের দাতা,গ্রহীতা,সনাক্তকারী,স্বাক্ষীগণ,দলিল লেখকসহ সংশ্লিষ্টদের তদন্তকাজে সহযোগিতার জন্য নোটিশ প্রদান করেছে। যার স্মারক নং-২২০(৯),তাং ২৫/৪/১৯।এব্যাপারে ৮ মে সকালে সরেজমিনে প্রতিবেদনকালে ইসলামকাটি সাব-রেজিস্ট্র অফিসে গেলে দেখা যায় অফিস খোলা,তবে রেজিস্ট্রার সাতক্ষীরা জেলা সদরে জরুরী মিটিংয়ে গেছেন। এসময় স্থানীয় রেজিস্ট্রি অফিসের ঝাড়–দার পরিচয়ে মেকাম আলী নামে এক ব্যক্তি রেজিস্ট্রারের এজলাশ ও খাস কামরার মধ্যবর্তী একটি রুমে চেয়ার-টেবিল পেতে বসে আছেন। রেজিস্ট্রি কাজে সেখানে আগতরা সবাই তার কাছে যাচ্ছেন। কর্মকর্তাকে না পেয়ে সাংবাদিকরা তার কাছে গিয়ে সাব রেজিস্ট্রার ও তদন্ত কর্মকর্তার অবস্থান ও তাদের আগমন সম্পর্কে জানতে চাইলে সহাস্য জবাবে পরিচয় জানতে চান সাংবাদিকদের কাছে। এরপর দলিল ও সংশ্লিষ্ট তদন্ত সম্পর্কে নানা নীতিবাক্য শুনিয়ে বলেন,সাহেবরা মিটিং আছেন,দুপুরের পর আসবেন। তাছাড়া ওসব নিউজ করে কোন কাজ হবেনা বলেও ঔদত্য প্রকাশ করেন,কথিত দায়িত্বে থাকা ঝাড়–দার মোকাম আলী। পরে দুপুর ১ টার দিকে তদন্ত কর্মকর্তা ও ইসলামকাটি সাব-রেজিস্ট্রি অফিসের রেজিস্ট্রার একই সাথে পৃথক দু’টি সাদা প্রাইভেট কার্যালয়ের সামনে পৌছান। এসময় তাদেও বাহী দু’টি প্রাইভেট থাকলেও দু’জসই ছিলেন,একই প্রাইভেটে। অপর গাড়িটি খালি এসে দাঁড়ায় তাদের সাথে। সর্বশেষ তদন্ত কর্মকর্তা অগ্রগতি সম্পর্কে এপ্রতিনিধিকে জানান,বিস্তারিত প্রতিবেদন তিনি জেলা সাব-রেজিস্ট্রারকে দিবেন। সেখান থেকেই আপনার জেনে নিবেন।
তালার মোবারকপুরের মৃত কালিপদ’র ছেলে তপন সাধু তার অভিযোগে উল্লেখ করেন যে, উপজেলার মোবারকপুর মৌজার এস,এ ১২১ খতিয়ানের দাগ নং-২৮,হাল ৯৯ শ্রেণি বাস্তু,সাবেক দাগ নং ২৩,হাল দাগ নং১০১ বাস্তু,সাবেক দাগ ২০,২১,হাল দাগ নং ১০৩ শ্রেণি বাস্তু। উপরোক্ত তপশীল বর্ণিত সম্পত্তির অর্ধাংশের মালিক তপন সাধু।তার অভিযোগ,তপনের কাকা নিরাপদ সাধু সমুদয় সম্পত্তির অর্ধাংশের মালিক। তিনি প্রায় ২০ বছর আগে এদেশে বসবাসকালীণ মৃত্যু বরণ করেন। আর তার দু’ছেলে নিমাই ও গৌতম সাধু ২৫/৩০ বছর পূর্বে স্থায়ীভাবে ভারতে পাড়ি জমান। কাকা নিরাপদ তার জীবদ্দশায় তার প্রাপ্য সম্পত্তি তিনি মৌখিকভাবে তাকে দিয়ে যান। এরআগে নিমাই ও গৌর সাধু ভারতে ভোটাধিকার নিয়ে স্থায়ীভাবে বসবাস শুরু করেন। এমতাবস্থায় তারা গোপনে বাংলাদেশে এসে ৩০ জানুয়ারী তারই প্রতিবেশী হৃদয় সাধুর স্ত্রী বেবী রাণী সাধুর নামে সমুদয় সম্পত্তি ইসলামকাটি সাব-রেজিষ্ট্রি অফিস থেকে কোবলা মূলে রেজিষ্ট্রি করে দিয়ে গেছেন। যার দলিল নং-৩০২। সূত্র জানায়, জমি রেজিষ্ট্রি করতে তারা সংশ্লিষ্ট দলিলের স্বাক্ষী,সনাক্তকারী ও দলিল লেখক মোহরার যোগসাজশে রেজিষ্ট্রারকে মিথ্যা তথ্য সরবরাহ ও ভূল বুঝিয়ে ঐ দলিল সম্পাদন করেছে। যাতে ভূয়া ওয়ারেশ কায়েম সনদ,আইডিকার্ডসহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্রাদির সব কিছুই ভূয়া সরবরাহ করা হয়। এর প্রমান স্বরুপ সূত্র জানায়,সর্বশেষ ভোটার তালিকায় অভিযুক্ত নিমাই ও গৌতম সাধুর নাম নেই। তাই তাদেও নামে বৈধ আইডি কার্ড ইস্যু হওয়ার প্রশ্নই আসেনা। এছাড়া সর্বশেষ গত ৭ মার্চ ৬ নং তালা সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কতৃক সরবরাহকৃত ওয়ারেশকায়েম সনদপত্রে মৃত নিরাপদ সাধুর ৩ ছেলে যথাক্রমে উত্তম সাধু,নিমাই সাধু ও গৌতম সাধুসহ তার তিন মেয়ে যথাক্রমে কাজল,রিনা ও তুলি সাধুর সকলেই ভারতের অধিবাসী বলে উল্লেখ করেছেন। এছাড়া নিমাই সাধু ও গৌতম সাধুর বর্তমান অবস্থান ভারতের পশ্চিমবঙ্গ বলে উল্লেখ করা হয়েছে এবং তাদের নির্বাচক তালিকা ২০১৯ এর অংশ নং ২১৫ এ রাজ্য নাম ও কোড-এস২৫/পশ্চিমবঙ্গ,১২১হাড়োয়া(সাধারণ) বিধানসভা নির্বাচন ক্ষেত্র উল্লেখ রয়েছে। যাতে নিমাই সাধুর ভোটার নং-৯১৫,এলএফএইচ০৩৭৯৮৮৩, পিতার নাম নিরাপদ সাধু বাড়ীর নং এন০১৭৮,তার স্ত্রী অর্চনা সাধুর ভোটার নং-৯১৬,এলএফএইচ০৩৭৯৮৯১,ভাই গৌতম সাধুর ভোটার নং ৯১৮,আরএক্সটি০৯৩৪৬৬১ এবং তার স্ত্রী দিপালী সাধু(ঘোষ) এর ৮১৯,আরএক্সটি১৫৩৪১৯৭ উল্লেখ রয়েছে।সর্বশেষ ভারতীয় নাগরিক হিসেবে তারা কিভাবে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করে মিথ্যা তথ্য সরবরাহপূর্বক বাংলাদেশের সম্পত্তি বিক্রি করে সমুদয় টাকা সরকারকে রাজস্ব বঞ্চিত ও যথাযথ প্রক্রিয়া সম্পন্ন না করে পার পেয়ে গেল? এমন নানা প্রশ্নের মাঝে তিনি ও সচেতন এলাকাবাসী তদন্তপূর্বক উক্ত তঞ্চকতাপূর্ণ দলিল বাতিলের জন্য সরকারের সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

প্রাইভেট ডিটেকটিভ/ ১২ মে ২০১৯/ইকবাল

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ