October 25, 2020, 11:07 pm

শিরোনাম :
রংপুরে ডিপ্লোমা ঐক্য পরিষদ এর মানববন্ধন ও র‍্যালী অনুষ্ঠিত রাজশাহীতে জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবসে পুজামন্ডপে নিসচার মাস্ক ও সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ মহিপুরে নৈশ প্রহরী নিয়োগের নামে উৎকোচ গ্রহণ কলাপাড়ায় ইউপি সদস্য হত্যা মামলায় তিনজনকে গ্রেফতার সুন্দরগঞ্জে শারদীয়োৎসবে দুঃস্থ মহিলাদেরকে বস্ত্র বিতরণ রাজশাহীতে তিন দশক পর ‘ঢলন’ প্রথা আজ বিলুপ্ত বৃষ্টিতে অচল জগন্নাথপুর-সিলেট সড়ক রংপুরে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ধর্ষণের চেষ্টা’ থানায় অভিযোগ আদমদীঘিতে ৬০কেজি গাঁজাসহ গ্রেপ্তার- ৩ মোরেলগঞ্জে সাড়ে ৮ লাখ টাকার অবৈধ জাল আটক ও ভস্মিীভূত করেছে নৌবাহিনী চিলমারীতে কাঁচকোল সামাজিক সংগঠনের উদ্দেগে গরীব ও অসহায়দের মাঝে বস্ত্র বিতরণ করা হয়েছে সরিষাবাড়ীতে পিডিবি‘র একটি খুটির মূল্য ৪ হাজার টাকা ঝড়ো আবহাওয়ায় কুয়াকাটা সৈকতে পর্যটকদের ভীড় যাত্রাবাড়ী ও চকবাজার থানা এলাকা থেকে ইয়াবা ও ফেসিডিলসহ আটক ০২ মধ্যনগরে মসজিদ নির্মাণের টাকা আত্নসাদের অভিযোগ র‌্যাব-৫ এর পৃথক দুটি অভিযানে অবৈধ ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার’ দুই মাদক ব্যাবসায়ী অটক ভারতে পাচার ৩ যুবক-যুবতীকে বেনাপোলে হস্তান্তর র‌্যাব-১০ পৃথক পৃথক অভিযানে ঢাকার কেরানীগঞ্জ এলাকা থেকে ইয়াবা ও বিয়ারসহ আটক ০৩ আদমদীঘিতে ১২০বোতল ফেন্সিডিলসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার রংপুরে পুলিশ কর্মকর্তার বাসায় চুরি ও এক লক্ষ পঞ্চাশ হাজার টাকা খোয়া

তারাগঞ্জে অপরিকল্পিত গুচ্ছ গ্রাম নির্মান নদীগর্ভে বিলিনের আশংকা

Spread the love

এম.এ.শাহীন, তারাগঞ্জ (রংপুর) প্রতিনিধিঃঃ

রংপুরের তারাগঞ্জ উপজেলায় চিকলী নদীর ধারে বালু ভরাট করে অপরিকল্পিত ভাবে নির্মাণ হচ্ছে ভূমি মন্ত্রনালয়ের আশ্রয়ন প্রকল্পের গুচ্ছগ্রাম। অপরিকল্পিতভাবে নির্মান হওয়া এ গুচ্ছগ্রাম যেকোনো মূহুর্তে নদীগর্ভে বিলীনের আশংকা করছে এলাকার সচেতন মহল।   এলাকাবাসীর অভিযোগ ও সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ভূমি মন্ত্রননালয়ের (আশ্রয়ন প্রকল্প-২) এর আওতাধীন  গুচ্ছগ্রামটি নির্মিত হচ্ছে নদীর বালু উত্তোলন করে বালুচরে। ভূমিহীন ৩০ টি পরিবারের জন্য ২কক্ষ বিশিষ্ট মোট ৩০ টি ঘর নির্মানের কাজ চলছে এখানে। এলাকাবাসী অভিযোগ করে বলেন, এলাকায় আরও খাস জমি থাকলেও কেন নদীর চরে ভূমিহীনদের জন্য আশ্রয়ন প্রকল্প নির্মিত হচ্ছে তা আমাদের বোধগম্য নয়।
এলাকার ইউপি সদস্য আব্দুল জলিল বলেন, এ ইউনিয়নে ১ নং খতিয়ানে খাস মোট জমির পরিমান ৫১.৯৭ একর, কিন্তু ২৫৪২-৪৭ দাগের ১.৫৪ একর জমিতে গুচ্ছগ্রাম নির্মিত হচ্ছে। বালুচর ছাড়াও আরও ৫০ একরের বেশী খাস জমি রয়েছে এই এলাকায়। কিন্তু নদী চর বেছে নেয়াটা এলাকাবাসীর মনে প্রশ্নের সৃষ্টি করেছে। কামার পাড়া গ্রামের রাজু মিয়া, হরিলাল, ধীরেন্দ্র, শফিকুল আক্ষেপ করে বলেন, ‘বালুত ভরাট করিয়া বানাছে হামার এলাকার গরীব মানুষের জন্য গুচ্ছগ্রাম, কয়দিন থাকপে কে জানে”।
নদীর চরের কোনো দিকে বাঁধ না থাকায় বড় ধরনের বৃষ্টি, বন্যা বা প্রাকৃতিক দুর্যোগে গুচ্ছগ্রামের ঘর ভেঙ্গে বিলিন হয়ে যেতে পারে আশ্রয়ন প্রকল্পটি এতে সরকারী বরাদ্দের পুরো টাকা বিফলে যাবার আশংকাও রয়েছে। এ ব্যাপারে তারাগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার আমিনুল ইসলাম এর সাথে তার অফিস কক্ষে কথা হলে তিনি বলেন, উপজেলার সয়ার ইউনিয়নে ভূমি মন্ত্রনালয়ের আশ্রয়ন প্রকল্পের গুচ্ছগ্রামের মোট বরাদ্দ কত টাকা তা মনে নেই, তবে প্রতিটি পরিবারের ঘরের বরাদ্দ দেড় লক্ষ টাকা।
নদী গর্ভে বিলীনের আশংকার কথা বললে তিনি বলেন, উদ্ধতন কর্তৃপক্ষ কয়েকবার সার্ভে করেছে ভেঙ্গে গেলেও আমার করার কিছুই নেই। গুচ্ছগ্রাম প্রকল্প চেয়ারম্যান ও ৫নং সয়ার ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন আজমের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, আমি শুধু প্রকল্প চেয়ারম্যান এর বেশী জানিনা।

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ