May 27, 2020, 9:24 pm

শিরোনাম :
সুন্দরগঞ্জে পৃথক বজ্রপাতে ঘরবাড়ি ভষ্মিভ‚ত:৭ গরুর মৃত্যু বরিশালের মুলাদীতে বজ্রপাতে কৃষকের মৃত্যু করোনা আতংকে শিশুসহ অবরুদ্ধ একটি পরিবার শিকারীদের ফাঁদে ধ্বংস হচ্ছে উপকুলের বন্যপ্রানী চিলমারীতে ব্রক্ষপুত্রের ডানতীর রক্ষা প্রকল্পের ভাঙ্গন এলাকাবাসীর মানব বন্ধন করোনায় আক্রান্ত হয়ে দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ২২ জনের মৃত্যু হয়েছে,আক্রান্ত ১৫৪১ রাজশাহীর তানোরে হত্যা মামলায় পলাতক ১ আসামীকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ! পাবনায় বেরোবির এক শিক্ষার্থীর রহস্যজনক মৃত্যু! পটুয়াখালীতে ঘূর্ণিঝড় ‘আম্পান’ এ ক্ষতিগ্রস্ত বাঁধ পরিদর্শনের লক্ষ্যে জেলা প্রশাসক রামপালে আম্পানের তান্ডবে সপ্তাহ ধরে ২ শত পরিবার পানি বন্দি অর্ধশতাধীক মৎস্য ঘের ভেসে কোটি টাকার ক্ষতি

ট্রাম্পকে ইমপিচ করার পক্ষে রায় দিল মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদ

Spread the love

ট্রাম্পকে ইমপিচ করার পক্ষে রায় দিল মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদ

ডিটেকটিভ আন্তর্জাতিক ডেস্ক

মার্কিন কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদের সদস্যরা ইউক্রেনগেট কেলেঙ্কারি নিয়ে দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ইমপিচ করার পক্ষে রায় দিয়েছেন। স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার ডেমোক্র্যাট দল নিয়ন্ত্রিত প্রতিনিধি পরিষদে এ-সংক্রান্ত ভোটাভুটিতে ২৩২ সদস্য ট্রাম্পকে ইমপিচ করার পক্ষে এবং ১৯৬ সদস্য বিপক্ষে ভোট দেন। মার্কিন নিউজ চ্যানেল সিবিএস জানিয়েছে, ভোটাভুটিতে ডেমোক্র্যাট দলের দুই সদস্য ইমপিচমেন্টের বিপক্ষে এবং একজন স্বতন্ত্র সদস্য ইমপিচমেন্টের পক্ষে ভোট দেন। অন্যদিকে রিপাবলিকান দলের সব সদস্য ইমপিচমেন্টের বিপক্ষে ভোট দিয়েছেন। প্রতিনিধি পরিষদে ভোটাভুটির পর ট্রাম্পকে ইমপিচ করার লক্ষ্যে তদন্ত চালানো এবং এ-সংক্রান্ত পরবর্তী প্রক্রিয়ার বিস্তারিত পরিকল্পনা অনুমোদিত হয়। প্রতিনিধি পরিষদের ভোটাভুটির কিছুক্ষণের মধ্যে হোয়াইট হাউজ এ ব্যাপারে তার প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে। হোয়াইট হাউজের মুখপাত্র স্টেফানি গ্রিশাম ইমপিচমেন্ট প্রক্রিয়াকে অন্যায়, সংবিধানের লঙ্ঘন এবং মার্কিন রীতিনীতির বিরোধী বলে উল্লেখ করেন। প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তার প্রতিক্রিয়ায় ইমপিচমেন্ট প্রক্রিয়াকে ‘আমেরিকার ইতিহাসে সবচেয়ে বড় নিপীড়ন’ বলে মন্তব্য করেন। ট্রাম্প তার প্রধান রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করার জন্য একটি বিদেশি রাষ্ট্রের সাহায্য চেয়ে প্রেসিডেন্ট পদে অমর্যাদা করেছেন বলে ডেমোক্র্যাট দল তাকে ইমপিচ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে, ২০২০ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে তিনি যাতে আবার নির্বাচিত হতে পারেন সেজন্য বিদেশি সাহায্য চেয়েছেন। এরই অংশ হিসেবে তিনি ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভোলোদিমিরি জেলিনস্কির ওপর চাপ সৃষ্টি করেন যে, ডেমোক্র্যাট দলের সম্ভাব্য প্রেসিডেন্ট প্রার্থী জো বাইডেন এবং তার ছেলের দুর্নীতির বিরুদ্ধে তদন্ত করতে হবে। তা নাহলে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ইউক্রেনকে সামরিক সহায়তা দেয়া বন্ধ করে দেবেন।

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ