February 16, 2019, 9:08 pm

শিরোনাম :
প্রধান অতিথী স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী পীরগঞ্জের ঝাড়বিশলায় প্রয়াত সাধক কবি হেয়াত মামুদ এর মৃত্যু বার্ষিকী পালিত হবে রোববার সুলভ করার চেষ্টা হচ্ছে এলপিজি: জ¦ালানি প্রতিমন্ত্রী ফাঁস সনি’র নতুন ফ্ল্যাগশিপ গার্মেন্টসে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ কমিটিকে দ্রুত রিপোর্ট প্রদানের নির্দেশনা শ্রম প্রতিমন্ত্রীর প্রয়োজনের অতিরিক্ত উৎপাদিত ৩৫ লাখ টন আলু রফতানির চিন্তা: বাণিজ্যমন্ত্রী বাংলাদেশের সমসাময়িক রাজনৈতিক অঙ্গনে শেখ হাসিনার বিকল্প নেই: ওবায়দুল কাদের শহীদ মিনারও এখন দলীয়করণের শিকার: রিজভী নির্ধারিত সময়ের মধ্যে কাজ করার নির্দেশ পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রীর সংরক্ষিত নারী আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী ৪৯ জন

টেলিভিশনের সুরক্ষায় সম্প্রচার নীতিমালা ও আইন হবে: তথ্যমন্ত্রী

Spread the love

টেলিভিশনের সুরক্ষায় সম্প্রচার নীতিমালা ও আইন হবে: তথ্যমন্ত্রী

ডিটেকটিভ নিউজ ডেস্ক

 

টেলিভিশনের সুরক্ষায় সম্প্রচার নীতিমালা ও আইন হবে বলে জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। গতকাল শুক্রবার সকালে সম্প্রচার সাংবাদিক কেন্দ্র বাংলাদেশের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসিতে অনুষ্ঠিত হয় দিনব্যাপী সম্প্রচার সম্মেলন। সম্মেলনের উদ্বোধন করেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। পরে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, টেলিভিশনের সুরক্ষায় সম্প্রচার নীতিমালা ও আইন হবে। দেশ গঠনে টেলিভিশনের মালিক ও সম্প্রচার সাংবাদিকদের ইতিবাচক ভূমিকা রাখতে হবে বলেও জানান তিনি। তথ্যমন্ত্রী আরো বলেন, নবম ওয়েজবোর্ডের যখন প্রজ্ঞাপন জারি হবে, একই সঙ্গে মন্ত্রিসভা যে সম্প্রচার নীতিমালা অনুমোদন করেছে, সেটিকে আইনে রূপান্তর করতে হবে। সেটি করার পর এই মাধ্যমে যাঁরা কাজ করছেন, তাঁদের আইনগতভাবে সুরক্ষা দেওয়াটা আমাদের পক্ষে সম্ভবপর হবে। আমি জানি যে, অনেক টেলিভিশন চ্যানেলে কয়েক মাস ধরে বেতন বাকি। সেখানে সংকট আছে, আবার কোনো কোনো ক্ষেত্রে ইচ্ছারও ঘাটতি আছে। বেতন-ভাতার কারণে তারা যাতে অসুবিধায় না থাকেন, সেদিকে আমরা সবাই সম্মিলিতভাবে দৃষ্টিপাত করব। অনুষ্ঠানে সম্প্রচার সাংবাদিক কেন্দ্রের চেয়ারম্যান রেজোয়ানুল হক সংগঠনের কার্যক্রমসহ নানা দিক তুলে ধরেন। মূলত সদস্যদের কল্যাণমূলক কাজ ও ঝুঁকি মোকাবিলা, পেশাগত সক্ষমতা বাড়ানো, অর্থনৈতিক সক্ষমতা বাড়ানো এবং গবেষণা ও নীতি সহায়তা দেওয়াই হবে এই সংগঠনের কাজ। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ডাউনলিংক করা বিদেশি টিভি চ্যানেলে বিনা অনুমতিতে বিদেশি বিজ্ঞাপন প্রচার আইনত অপরাধ। এটি বন্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেবে সরকার। নতুন সরকার গঠনের পরপরই মন্ত্রিপরিষদের প্রথম সভায় নবম ওয়েজ বোর্ড নিয়ে আলোচনা হয়েছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, প্রথম বৈঠকে নতুন করে কমিটি গঠনের প্রস্তাব করা হয়েছে এবং প্রধানমন্ত্রী সেটির অনুমোদন দিয়েছেন। নবম ওয়েজ বোর্ডের ভেতরে সম্প্রচার সাংবাদিকদের বেতনের ক্ষেত্রে আলাদা নীতিমালা করার কথা বলা আছে। টেলিভিশনগুলোতে যেন সঠিক সময়ে বেতন হয়, সে বিষয়ে মালিকদের নজর দেওয়ার আহ্বান জানান তিনি। তথ্যমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে দেশে বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলের যাত্রা শুরু হয়েছে। ১৯৯৬ সালে যখন তিনি প্রথমবারের মতো প্রধানমন্ত্রী হন তখন প্রথম প্রাইভেট চ্যানেল যাত্রা শুরু করে। বর্তমানে দেশে লাইসেন্সপ্রাপ্ত ৪৪টির মধ্যে ৩০টিরও বেশি বেসরকারি টিভি সম্প্রচারে আছে। এটি পশ্চিমবঙ্গ থেকেও বেশি। গত দশ বছরে বাংলাদেশে গণমাধ্যমের ব্যাপক বিকাশ হয়েছে উল্লেখ করে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, আজ গণমাধ্যম যথেষ্ট স্বাধীনভাবে কাজ করছে। গণমাধ্যমকর্মীদের সুরক্ষায় একাধিক নীতিমালা করা হয়েছে। পরে ‘সম্প্রচার শিল্প: সম্ভাবনা ও সংকট’ প্রতিপাদ্যে আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। সাংবাদিক মুন্নী সাহার সঞ্চালনায় এতে অংশ নেন সাবেক সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, সাংবাদিক সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা, মোজাম্মেল বাবু, রুবানা হক, শাকিল আহমেদসহ অন্যরা। গণমাধ্যমকর্মীদের পেশাগত সক্ষমতা বাড়ানোসহ কর্মক্ষেত্রে নিরাপত্তা ও সংশ্লিষ্ট বিষয়ে কাজ করতে যাত্রা শুরু করেছে ব্রডকাস্ট জার্নালিস্ট সেন্টার। বিভিন্ন গণমাধ্যমে কর্মরত কর্মীদের কাজের নিরাপত্তা, ঝুঁকি মোকাবিলাসহ গবেষণা ও নীতি সহায়তায় কাজ করবে এই কেন্দ্রটি। সম্প্রচার মাধ্যমের সঙ্গে সম্পৃক্ত সাংবাদিকরা তাদের কাক্সিক্ষত লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। গতকাল শুক্রবার সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-ছাত্র কেন্দ্র (টিএসসি) মিলনায়তনে নবগঠিত ব্রডকাস্ট জার্নালিস্ট সেন্টারের প্রথম সম্প্রচার সম্মেলন ও কেন্দ্র উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি এ প্রত্যাশার কথা জানান। তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম, ব্রডকাস্ট জার্নালিস্ট সেন্টারের সভাপতি রেজওয়ানুল হক, সদস্যসচিব শাকিল আহমেদ, সাংবাদিক সৈয়দ ইশতিয়াক রেজাসহ অন্যরা এ সময় উপস্থিত ছিলেন। স্পিকার তার বক্তৃতায় আরও বলেন, কল্যাণমূলক ও ঝুঁকি মোকাবিলা, পেশাগত ও অর্থনৈতিক সক্ষমতা বাড়ানো, গবেষণা ও নীতি সহায়তা লক্ষ্যকে সামনে নিয়ে সম্প্রচার সাংবাদিক কেন্দ্র যেন কার্যকরভাবে এগিয়ে যেতে পারে, সেটিই আমাদের প্রত্যাশা।

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ