April 17, 2019, 3:29 pm

আহত হানিফ হাওলাদার ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে সার্জারী ওয়ার্ডের বেডে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ছবিঃ রিয়াজুল ইসলাম বাচ্চু

ঝালকাঠিতে চাচার আঘাতে ভাতিজা আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি

Spread the love

রিয়াজুল ইসলাম বাচ্চু,ঝালকাঠি প্রতিনিধিঃ


আহত হানিফ হাওলাদার ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে সার্জারী ওয়ার্ডের বেডে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ছবিঃ রিয়াজুল ইসলাম বাচ্চু

ঝালকাঠিতে বসত ঘরের পাশের সীমানা নিয়ে বিরোধের জের ধরে রাতের আধারে


আহত হানিফ হাওলাদার ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে সার্জারী ওয়ার্ডের বেডে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ছবিঃ রিয়াজুল ইসলাম বাচ্চু

চাচা কর্তৃক ভাতিজার উপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার ১২এপ্রিল দিবাগত রাত আনুমানিক ৭টায় সদর উপজেলার পূর্ব বালিঘোনা গ্রামের হাওলাদার বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় মৃত আব্দুল খালেক হাওলাদারের একমাত্র পুত্র হানিফ হাওলাদার (৩৬) গুরুতর আহত হয়। পরে স্থানীয়দের সহযোগীতায় হানিফকে ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।এ বিষয় সংবাদ পেয়ে ঐ রাতে ঘটনা স্থলে গিয়ে জানা যায়, একই বাড়িতে হানিফের চাচা আব্দুল গনি হাওলাদার ও হানিফ হাওলাদারের পাশাপাশি বসত ঘর থাকায় দুই ঘরের মধ্যবর্তী সীমানা, ঘরের সামনে আঙ্গিনায় সীমানা পিলার থাকা সত্যেও চাচা গনি হাওলাদার তার সীমানা অতিক্রম করে হানিফের আঙ্গিনায় খুটি গেড়ে টিন দিয়ে বেড়া দেয়। এ বেড়া দেয়ার কারণে গতকাল সন্ধ্যায় হানিফের স্ত্রীর সাথে তার চাচা শশুর গনি হাওলাদারের সাথে তর্কবিতর্কের সৃষ্টি হয়।এ বিষয় আহত হানিফ জানায়, তর্ক চলাকালীন সময় হানিফ বাড়ীতে এলে তার চাচার সাথে তর্কে জড়িয়ে পরে। এক পর্যায় হানিফের চাচা ও চাচাতো ভাই রাজু এসে হানিফকে গালাগালি দিয়ে লাঠি দিয়ে মারধর শুরু করে। মারধরের এক পর্যায় হানিফ মাথায় আঘাত পেয়ে তার চাচা ও চাচাতো ভাই রাজু হাত থেকে ছুটে দৌড়ে নিজ ঘরে আশ্রয় নেয়। হানিফের ঘরের পিছন থেকে তার চাচা ও চাচাতো ভাই রাজু হানিফকে লক্ষ্য করে ইট ছুড়তে থাকে। হানিফ ঘরে উঠে ঘরের দরজা বন্ধ করতে গেলে চাচা ও চাচাতো ভাই রাজুর ছুড়ে মারা ইটে সে গুরুতর আহত হয়। হানিফ ঝালকাঠি সদর হাসপাতালের সার্জারী ওয়ার্ডের ১৫ নং বেডে ভর্তি হলে কর্তব্যরত ডাক্তার শনিবার ১১ টায় মাথায় মারাত্মক আঘাত থাকায় সিটি স্ক্যানের জন্য বরিশাল প্রেরণ করা হয়। গনি হাওলাদার এর অপর ছেলে মিন্টু বলেন,মারামারির সময় আমি উপস্থিত ছিলাম না। সুতরাং এ বিষয় আমি কোন মন্তব্য করতে পারব না।অভিযুক্ত গনি হাওলাদার ও রাজু পলাতক এবং তাদের মোবাইল ফোন বন্ধ থাকায় তাদের সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। অপর দিকে আঘাত প্রাপ্ত হানিফ হাওলাদার জানান,আমি একটু সুস্থ হলে এ বিষয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করব।

প্রাইভেট ডিটেকটিভ/ ১৪ এপ্রিল ২০১৯/ইকবাল

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ