November 7, 2019, 5:13 pm

শিরোনাম :
যশোরের শার্শা সীমান্তে পরিত্যক্ত অবস্থায় ফেনসিডিল উদ্ধার ভোলা লালমোহন কালমা ইউনিয়ন এর আওয়ামিলীগ এর ওয়ার্ড মূল লীগ এর কমিটি গঠন সেই শফিকুল,অধরা রনি অবশেষে কারাগারে গাইবান্ধায় ডাকাত দলের সাথে পুলিশের গোলাগুলি : গুলিবিদ্ধ ৩ ডাকাত আটক : ৪ পুলিশ সদস্য আহত সরকারকে কৃতজ্ঞতা জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন বোয়ালমারীতে রাজাকারের মুক্তিযোদ্ধা ভাতা স্থগিত সুনামগঞ্জে জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা সিরাজগঞ্জে রেলওয়ের ৫শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ কৃষক লীগের নতুন নেতৃত্ব,সভাপতি সমীর চন্দ্র ,সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট উম্মে কুলসুম স্মৃতি এমপি মঈন উদ্দীন খান বাদল না ফেরার দেশে চলে গেলেন টাকা ফেরত দিতে হবে সবাইকেই – অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল

জেএসসি/জেডিসি পরীক্ষা পীরগঞ্জে প্রতিবন্ধি হয়েও প্রতিবন্ধির সুযোগ দেয়া হয়নি প্রতিবন্ধি এক পরীক্ষার্থীকে

Spread the love

পীরগঞ্জ,রংপুর মোস্তফা মিয়াঃ

পীরগঞ্জে জে,এস,সি পরীক্ষায় প্রতিবন্ধি হয়েও প্রতিবন্ধির সুযোগ দেয়া হয়নি, এক প্রতিবন্ধি পরীক্ষার্থীকে। এ ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার ভেন্ডাবাড়ী দ্বিমূখী উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় পরীক্ষা কেন্দ্রে। প্রতিবন্ধি ছাত্র উপজেলার বিশলা গ্রামের মন্ডল চন্দ্রের পুত্র, সজল চন্দ্র বর্মন। ভেন্ডাবাড়ী বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র সে, জে,এস,সি পরীক্ষার রোল নং-৮৫৩০৬৫।

উক্ত পরীক্ষা কেন্দ্র সরেজমিনে পরিদর্শনে গিয়ে জানাযায়, উক্ত প্রতিবন্ধি ছাত্র সজল গত বছরেও জে,এস,সি পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করলেও প্রতিবন্ধি পরীক্ষার্থীর সুবিধা দেয়া হয়নি বলে জানান, দরিদ্র পিতা মন্ডল চন্দ্র বর্মন। অথচ প্রতিবন্ধি পরীক্ষার্থী হিসেবে ভেন্ডাবাড়ী বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আজিজুল ইসলামের নিকট আবেদন করেছিলেন।

কিন্তু দুঃখের বিষয় প্রধান শিক্ষক বিষয়টি গুরুত্ব না দেয়ায় গত বছরে বাংলাসহ ৩ টি বিষয়ে সজল ফেল করে বলে জানায় পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা। এবারেও উক্ত প্রতিবন্ধি সজল পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করেছে এবং প্রধান শিক্ষক কে প্রতিবন্ধি পরীক্ষার্থীর সুবিধার জন্য মৌখিক ভাবে অনুরোধ করেছেন। এবারও একই অবস্থা, প্রতিবন্ধি হিসেবে তাকে কোন প্রকার অতিরিক্ত সময দেয় হয়নি। অথচ এ কেন্দ্রের পার্শেই ভেন্ডাবাড়ী বছির উদ্দিন জব্বারিয়া দ্বি-মূখী দাখিল মাদ্রাসায় জে,ডি,সি পরীক্ষা কেন্দ্রে আরাফাত জামান, শাওন মিয়া ও রহিমা খাতুন নামের ৩ প্রতিবন্ধি পরীক্ষার্থীকে নিয়ম মেনে অতিরিক্ত সময় দেয়া হচ্ছে। প্রতিবন্ধি সজল প্রসঙ্গে উক্ত মাদ্রাসা পরিক্ষা কেন্দ্রের সচিব ও সুপার শহিদুল ইসলাম রতন বলেন, “এটি বিদ্যালয়ের প্রধানের গাফিলাতি, বিদ্যালয় কর্তৃক আবেদন করলেই ছেলেটি প্রতিবন্ধি পরীক্ষার্থীর সুযোগ সুবিধা পেত।”

অপর দিকে ভেন্ডাবাড়ী বহুমুখী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় পরীক্ষা কেন্দ্রের প্রধান শিক্ষক ও সচিব সাইফুল ইসলাম বলেন, “আমি প্রতিবন্ধি সজলের বিদ্যালয় কর্তৃক কোন প্রত্যায়ন পত্র না থাকায় প্রতিবন্ধি পরীক্ষার্থীর সুবিধা দিতে পারছিনা, এটা ছেলেটির ব্যাপারে অন্যায় করা হয়েছে।” এ ব্যাপারে উক্ত পরীক্ষা কেন্দ্রের দায়িত্বে নিয়োজিত উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার আবু জাহের মোহাম্মদ সাইফুর রহমান বলেন, আসলে বিষয়টি খুব দুঃখজনক, শিক্ষা বোর্ডে আবেদন করলেই ছেলেটি এই সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত হতনা।”

এব্যাপারে প্রতিবন্ধি সজলের বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান,“সজল কোন প্রতিবন্ধির মধ্যে পরেনা, আমি এব্যাপারে শিক্ষাবোর্ডে আবেদন করেছিলাম কিন্তু শিক্ষাবোর্ড অনুমোদন করেনি।” অথচ প্রতিবন্ধির সজলের নামে প্রতিবন্ধি কার্ডও রয়েছে। পরীক্ষা শেষে প্রতিবন্ধি সজল যখন বেরিয়ে আসে, তখন দেখাযায়, সে শুধু বাক প্রতিবন্ধিই নয়, হাত,পা ও প্রতিবন্ধি।

সে ঠিক ভাবে হাটতেও পারেনা, আবার হাত দুটো থর থর করে কাপছে। অনেকের ধারনা প্রধান শিক্ষক আজিজুল ইসলাম প্রতিবন্ধি সজলের কোন আবেদনই করেননি শিক্ষাবোর্ডে। এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহি অফিসার এর সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, “আমি বিষয়টি দেখতেছি, কেন একজন প্রতিবন্ধি ছাত্র প্রতিবন্ধি পরীক্ষার্থীর সুযোগ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ