March 19, 2019, 8:23 am

শিরোনাম :
সালমান শাহ মৃত্যু: মামলার অধিকতর তদন্ত প্রতিবেদন ২৩ এপ্রিল ধার্য হাকিমপুরে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে শান্তিপূর্ণ ভোট অনুষ্ঠিত জগন্নাথপুর থানার ওসিকে সংবর্ধনা প্রদান জগন্নাথপুরে বেড়িবাধের কাজ শেষ, জনমনে স্বস্তি পাইকগাছায় শহর সমন্বয় কমিটির সভা অনুষ্ঠিত সমাজের প্রতিটি ক্ষেত্রে নারীর অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে চাই পাইকগাছায় মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী রূপা’র মতবিনিময় পাইকগাছায় অস্ত্র ও মাদক উদ্ধার আটক-৩ জামালপুর জেলাকে বাল্যবিবাহ মুক্ত ঘোষণা করা হয়েছে-জেলা প্রশাসক আহমেদ কবির চকরিয়া উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার পক্ষপাতদুষ্ট আচরণ, ক্ষুদ্ধ সংবাদ কর্মীরা সিলেটের ১২ উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী যারা
জগন্নাথপুরে এ জায়গা নিয়ে বিরোধ          ছবিঃ মোঃ ফখরুল ইসলাম

জগন্নাথপুরে জায়গা নিয়ে বিরোধ তুঙ্গে

Spread the love

মোঃ ফখরুল ইসলাম,জগন্নাথপুর (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ

জগন্নাথপুরে এ জায়গা নিয়ে বিরোধ                 ছবিঃ মোঃ ফখরুল ইসলাম

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে জায়গার মালিকানা নিয়ে বিরোধ বেড়েই চলেছে। এ নিয়ে সংঘর্ষের আশঙ্কা বিরাজ করছে।১৬ মার্চ শনিবার সরজমিনে স্থানীয়রা জানান, বিগত ২০১৮ সালে উপজেলার রাণীগঞ্জ ইউনিয়নের গন্ধর্র্বপুর মৌজার জে এল নং ২০৪, এসএ দাগ নং ১৯৯৮, ডিপি খতিয়ান নং ৭৫৪ এ সাড়ে ১৯ শতক জমি রাণীগঞ্জ ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মজলুল হকের কাছ থেকে খরিদ করেন শেখ জালাল উদ্দিন (এ রাজ্জাক) নামের এক ব্যক্তি। এ জমির পশ্চিম অংশের জায়গা চেয়ারম্যান মজলুল হক তাঁর ছেলে এনামুল হককে প্রদান করেন। বর্তমানে জায়গা-জমি নিয়ে চেয়ারম্যান মজলুল হক ও তাঁর ছেলে এনামুল হকের মধ্যে বিরোধ ও মামলা-মোকদ্দমা চলছে। এ নিয়ে ১৫ মার্চ শুক্রবার জগন্নাথপুর থানার এএসআই আনোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।এ ব্যাপারে জমির মালিক শেখ জালাল উদ্দিন (এ রাজ্জাক) বলেন, চেয়ারম্যান ও তাঁর ছেলের মধ্যে আমার পাশের জমি নিয়ে বিরোধ থাকলেও পুলিশ আমার জায়গার সীমানা পিলার তুলে ফেলেছে। সাবেক চেয়ারম্যান মজলুল হক বলেন আমার বিশাল জায়গা সম্পত্তি রয়েছে। এসব সম্পত্তি জোরপূর্বক নিতে আমার ছেলে এনামুল হক সহ একটি চক্র আমাদেরকে মিথ্যা অগ্নিকান্ডের মামলা সহ নানাভাবে হয়রানী করছে। তিনি আরো বলেন, শেখ জালাল উদ্দিন (এ রাজ্জাকের) কাছে আমি যে জমি বিক্রি করেছি, তার পশ্চিম দিকের অংশ আমার ছেলে এনামুল হককে দিয়েছে। অথচ আদালতের কোন প্রকার স্থগিতাদেশ না থাকলেও পুলিশ অন্যায় ভাবে শেখ জালাল উদ্দিন (এ রাজ্জাকের) জায়গার সীমানা পিলার তুলে ফেলা হয়েছে।জানতে চাইলে জগন্নাথপুর থানার এএসআই আনোয়ার হোসেন বলেন, এসব জায়গা নিয়ে তাদের মধ্যে আদালতে মামলা চলছে। মামলার নিস্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত উক্ত জায়গায় কেউ কিছু নির্মাণ করতে পারবে না। আদালতের এমন আদেশকে অমান্য করে পিলার বাসানো হয়েছিল। যে কারণে আমি তা অপসারণ করেছি।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

প্রাইভেট ডিটেকটিভ/১৭ মার্চ ২০১৯/ইকবাল

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ