April 2, 2020, 8:41 pm

শিরোনাম :
আগামী ৫ এপ্রিল রবিবার করোনা পরিস্থিতি নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সৌদি আরবের দুই পবিত্র নগরী মক্কা ও মদিনায় ২৪ ঘণ্টার কারফিউ জারি করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের দিক নির্দেশনামূলক সভা অনুষ্ঠিত প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সচেতনতায় রাজশাহী পুলিশ সুপারের কার্যক্রম অব্যাহত করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে দ্বিগুণ বন্দি নিয়ে দুশ্চিন্তায় রাজশাহী কারা কর্তৃপক্ষ রাজশাহীতে গোপন বৈঠকের সময় র‌্যাব-৫ এর অভিযানে জঙ্গি সংগঠনের ৩ সদস্য গ্রেফতার তাহিরপুরে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের বাজার মনিটরিং,সচেতনামূলক পরামর্শ কেশবপুরে চারুপীট আর্ট স্কুলের উদ্যোগে হতদরিদ্র ৬০টি পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ সারিয়াকান্দিতে নিজস্ব অর্থায়নে ১০০ চা দোকানদার পেলেন খাদ্য সহায়তা লক্ষ্মীপুরের দালাল বাজারে করোনা উপসর্গে ৭০বছরের বৃদ্ধের মৃত্যু,বাড়ি লকডাউন

গোলবন কেটে সরকারী জমি বিক্রি করছে প্রভাবশালীরা

Spread the love

আনু আনোয়ার,পটুয়াখালী প্রতিনিধিঃ

পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় বন কর্মকর্তাদের যোগ-সাজোশে গোলপাতার বন কেটে উজাড় করছে বন।গোলপাতার বন কেটে সরকারী সম্পত্তি বিক্রির অভিযোগ উঠেছে প্রভাবশালী একটি চক্রের বিরুদ্ধে। ম্যানগ্রোভ প্রজাতির গাছ উপরে ফেলে প্রকাশ্যে ভেকু দিয়ে মাটি কেটে করা হচ্ছে ঘের, পুকুর এবং নির্মান করা হচ্ছে বাড়ি ঘর। এসব দখলে ভাড়াটিয়া হিসেবে কাজ করছে একাধিক মামলার আসামী সহ একটি শক্তিশালী সন্ত্রাসী চক্র। যাদের ভয়ে মুখ খুলতে পারছেন না এলাকার সাধারণ মানুষ। এসব বন উজাড়ে বাধা দিলেই তার ওপর নেমে আসে মাদকাসক্ত সন্ত্রাসীদের নির্যাতনের নির্মমতা। দীর্ঘ বছর ধরে স্থানীয় এ সন্ত্রাসী চক্রটি সরকারী সম্পত্তি দখল, মাদক ব্যবসাসহ একাধিক অসাজিক কর্মকান্ডের সাথে যুক্ত থেকেও ক্ষমতাসীন দলের সাইনবোর্ড ব্যবহার করে সহজেই রেহাই পেয়ে যাচ্ছেন বলেও অভিযোগ স্থানীয়দের।
সরেজমিনে দেখা যায়, বালিয়াতলী ইউনিয়নের চরনজির এলাকার গোলপাতার বন উজাড় করে কয়েক’শো একর সরকারী সম্পত্তি দখল করে ঘর, বাড়ি, পুকুর এবং মাছের ঘের নির্মানের র্দৃশ্য। আর এসব জমির অনেকাংশ রেকর্ডীয় মালিক দাবী করে শতাশং ৫০হাজার টাকা দরে বিক্রি করেছেন স্থানীয় ব্যবসায়ী হাজী মোঃ রুহুল আমিন এমন দাবী জমির ক্রেতাদের।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্যক্তি জানান, বর্তমানে লালুয়া ইউনিয়নের ভুমি অধিগ্রহনে গৃহহীন হয়ে পড়া মানুষ গুলোকে মূল টার্গেট করে তাদের বালিয়াতলীতে সরকারী সম্পত্তিতে বসতবাড়ির জায়গা দখল করে দিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে এ ভুমিদস্যু চক্রটি। আর এতে সহযোগী হিসেবে কাজ করছেন স্থানীয় বন কর্মকর্তারা। হাতিয়ে নিচ্ছে মোটা অঙ্কের টাকা এমন অভিযোগ উঠেছে বালীয়াতলী জোনের বনবিভাগ শাখার নৌ-চালক মাহামুদসহ আরো অনেকের বিরুদ্ধে।
স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, আন্ধারমানিক নদী তীরবর্তী চরনজির এলাকায় সরকারী জমিসহ রেকর্ডীয় জমি ক্রয় করেন লালুয়া ইউনিয়নের সজু ফকির, কামাল তালুকদার, আনিচ হাওলাদার এবং ইউনুচ মুন্সি। আর এসব জমি ভরাট করতে চুক্তির মাধ্যমে ভেকু দিয়ে মাটি কেটে দখল করে দিচ্ছেন স্থানীয় ১নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ’র সাধারণ সম্পাদক সোলায়মান মৃধা, ইউনিয়ন শ্রমিক লীগ’র সাংগঠনিক সম্পাদক বাচ্চু শিকদার, সাবেক ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি জাকির সরদার ও চিহ্নিত মাদকসেবী হাকিম।
এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে ক্রয়কৃত জমির মালিক কামাল তালুকদার সাংবাদিকদের জানান, আমি যখন জমি কিনেছি তখন হাজী মোঃ রুহুল আমিন আমাকে গোলবনসহ বুঝিয়ে দিয়েছে। আর সলেমান ভেকু দিয়ে মাটি কেটে দখল করে দিয়েছে। তাদের অভিযোগ বন কর্মকর্তাদের চোখের সামনেই গোলগাছ ধ্বংস করে এমন দখলবাজি সম্পন্ন হয়েছে। তারা দেখেও না দেখার ভান করছেন।
এদিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে বন কর্মকর্তাদের এমন দুর্নীতির চিত্র দেখে সংশ্লিষ্ট পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্মকর্তা সহ স্থাণীয়রা হতবাক। তারা বলেন, দখলদারদের সাথে বন কর্মকর্তাদের কতটা সখ্যতা হলে এসব অবৈধ কর্মকান্ড হতে পারে! তা ভেবে তারা কূল পাচ্ছেন না।
পানি উন্নয়ন বোর্ড কলাপাড়া সার্কেলের নির্বাহী প্রকৌশলী খান মো.ওয়ালিউজ্জামান বলেন, স্বাভাবিক ভাবেই বন উজাড় করে কেউ জমি দখল করলে বনবিভাগ কর্তৃপক্ষকে জানানোর কথা। অথচ সংশ্লিস্ট বিট কর্মকর্তাসহ তাদের ডাকা হলেও ঐ বিভাগের কোনো সদস্যরা ফোন পর্যন্ত রিছিভ করে না। তিনি আরো জানান, এসকল অবৈধ কর্মকান্ডের ব্যাপারে ৮জনের নাম উল্লেখ করে মামলা দায়ের করা হয়েছে। বন ধ্বংস রুখতে প্রশাসনিক চেষ্টা অব্যহত আছে।

প্রাইভেট ডিটেকটিভ/২৩ মার্চ ২০২০/ইকবাল

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ