May 26, 2020, 2:33 am

শিরোনাম :
হাফিজ আখতারকে অভিনন্দন জানাতে তার বাড়িতে ভাইস চেয়ারম্যান কয়েছ ঈদের দিন ও করোনার ক্লান্তিলগ্নে কাউন্সিলর প্রার্থী রাসেদের সেবা কার্যক্রম অব‍্যাহত আখাউড়া থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক এসআই তাজুল ইসলাম আখাউড়া বাসীসহ বাংলাদেশের সর্বস্তরের মানুষকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ঈদের দিনে করোনায় আক্রান্ত হয়ে দেশে মৃত্যুর সংখ্যা ৫০০ ছাড়াল অভিনেতা আজম খানের আটটি নাটক এবার ঈদে প্রচারিত হচ্ছে ঈদে আনন্দ করুন ঘরে বসেই-প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কক্সবাজারে চার রোহিঙ্গাসহ আরো ৪৯ জনের করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত আখাউড়ায় নিরীহ অসহায় ও ভাসমান মানুষের মাঝে সাধ্যমত ঈদ সামগ্রী পৌঁছে দিচ্ছেন স্বেচ্ছাসেবী সাথী আক্তার পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষে ঈদের শুভেচ্ছা জানান ক্রাইম পেট্রোল বিডি ভৈরব জোনাল অফিস পরিচালক মোঃ সিজান খাঁন সোহাগ
খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার।ফাইল ছবি

খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির অবৈধ কার্ড বাতিলের নির্দেশ খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদারের

Spread the love

মোহাম্মদ ইকবাল হাসান সরকারঃ

খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার।ফাইল ছবি

সরকারি গুদামের মজুদ বাড়াতে ধান-চাল কেনার গতি বাড়াতে কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার।একই সঙ্গে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির অবৈধ কার্ড বাতিলে শক্ত পদক্ষেপ নিতে বলেছেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার।আগামী ৭ দিনের মধ্যে তালিকা হালনাগাদ করতে বলেছেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার।গতকাল ১৭ মে ২০২০ ইং তারিখ রোববার খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদারের সরকারি বাসভবন থেকে রাজশাহী বিভাগের মাঠপর্যায়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে তিনি এসব নির্দেশনা দেন।সভার সমন্বয় করেন খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. মোছাম্মৎ নাজমানারা খানুম।ভিডিও কনফারেন্সে খাদ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক, অতিরিক্ত মহাপরিচালক, রাজশাহী বিভাগের বিভাগীয় কমিশনার, রাজশাহী আঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রকসহ ওই বিভাগের সব জেলার জেলা প্রশাসক (ডিসি) এবং জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক (ডিসি-ফুড) বক্তব্য রাখেন।খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির কথা তুলে ধরে  খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার আরও বলেন, এ কর্মসূচির আওতায় সুবিধাভোগীদের তালিকা নিয়ে কিছু অভিযোগ আসায় প্রতিটি জেলার জেলা প্রশাসক ও জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকদের মার্চ মাসের প্রথম সপ্তাহে চিঠি দেয়া হয়েছিল।অতি দ্রুত যাচাই-বাছাই করে প্রকৃত গরিব ও দুস্থদের নাম তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করে নতুন করে তালিকা পাঠাতে বলা হয়েছিল।কিন্তু এখনও এ সমস্যা রয়েছে বলে গণমাধ্যমে খবর আসছে।যে কোনো প্রকার হুমকি-ধামকি উপেক্ষা করে স্বজনপ্রীতির ঊর্ধ্বে থেকে প্রকৃত গরিব ও দুস্থদের নাম তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করে তালিকা প্রস্তুত করার নির্দেশ দেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার।খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেন, প্রয়োজনে প্রতিটি উপজেলায় অতীতে তালিকা তৈরি করার সময়ে যে ট্যাগ অফিসার ছিলেন তাদেরকে সরিয়ে নতুন করে কোনো ট্যাগ অফিসারকে দায়িত্ব দিয়ে হালনাগাদ করে নতুন তালিকা সাত দিনের মধ্যে প্রণয়ন করার নির্দেশ দেন।খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেন, কৃষক বোরোতে এবার বাম্পার ফলন ও ন্যায্য দাম পাচ্ছে। এই বাজার দর ধরে রাখতে সরকারি সংগ্রহের গতি বাড়াতে হবে।এছাড়া নির্দেশ মোতাবেক খাদ্যশস্যের মান যাচাই করে সংগ্রহ করতে হবে। ধান-চাল কেনায় কেউ অনিয়ম করলে তার বিরুদ্ধে দ্রুত আইনি পদক্ষেপ নেয়ারও হুশিয়ারি দেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার।খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেন, এক ইঞ্চি জমিও যেন পতিত পড়ে না থাকে।এজন্য আউশ মৌসুমে কৃষক যেন আউশ ধানের চাষ করে।যে সমস্ত কৃষক আউশের প্রণোদনা নিয়েছেন; তারা বীজ তলা তৈরি করেছে কিনা- তা যাচাই করে দেখতে স্থানীয় কৃষি প্রশাসনকে নির্দেশ দেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার।কৃষকদের আউশ আবাদে আন্তরিক হবার আহ্বান জানিয়ে খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেন, কৃষকদের আউশ ধানের আবাদে আরও আন্তরিক হতে হবে।অনেক কৃষকই আউশ মৌসুমে প্রণোদনা নিয়ে থাকে।কিন্তু পরে আর আবাদ করে না।এ ধরণের প্রমাণ মিললে প্রণোদনা বাতিলসহ পরবর্তীতে তাদের নাম তালিকা থেকে বাদ দেয়া হবে।ভিডিও কনফারেন্সে রাজশাহী বিভাগের আওতাধীন প্রতিটি জেলার করোনা মোকাবেলা পরিস্থিতি, চলতি বোরো ধান কাটা-মাড়াই, সরকারিভাবে ধান-চাল সংগ্রহসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার।খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেন, এবারের প্রকিউরমেন্ট যেন কৃষকবান্ধব প্রকিউরমেন্ট হয়। চালের মান নিয়ে কোনো আপোষ নেই। ধান-চাল সংগ্রহের ক্ষেত্রে প্রতিটি উপজেলায় সংগ্রহ কমিটি রয়েছে। ইতিমধ্যেই দেশের অনেক জায়গায় লটারি হয়েছে এবং বাকি জেলা-উপজেলায়ও খুব শিগগিরই লটারি সম্পন্ন হবে। লটারি করার সময় সংগ্রহ কমিটির প্রতিটি সদস্য যেন উপস্থিত থাকেন; বিশেষ করে সংগ্রহ কমিটিতে যিনি কৃষক প্রতিনিধি রয়েছেন তিনি যেন লটারির সময় উপস্থিত থাকেন। লটারি করার পর আগে থেকেই ওয়েটিং লিস্ট করে রাখারও নির্দেশ দেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার। পাশাপাশি কোনো কৃষক যেন তার স্লিপ মধ্যস্বত্বভোগী ফরিয়াদের কাছে বিক্রি না করেন এজন্য  খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার সাবধান করে দেন।

প্রাইভেট ডিটেকটিভ/১৮ মে ২০২০/ইকবাল

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ