March 31, 2020, 1:52 pm

শিরোনাম :
কলাপাড়ায় ভিজিএফ’র চাল বিতরনে অনিয়ম,২ কর্মকর্তাকে শোকজ করোনা আতঙ্কে কেউ যায়নি কাছে; পাশে দাঁড়ালেন পুলিশ কলাপাড়ায় স্বাস্থ্যকর্মীদের মাঝে পিপিই বিতরন করলেন এমপি মহিব কলাপাড়ায় সেনাবাহিনীর টহল জোরদার বোয়ালমারীতে ভয়াবহ অগ্নিকান্ড ২০টি দোকান পুড়ে ভষ্মিভূত আড়াই কোটি টাকার ক্ষতির শঙ্কা চৌদ্দগ্রামে বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রবাসীদের সচেতন করছে ব্র্যাক ‘প্রত্যাশা’র কর্মী যশোরে সড়ক দুর্ঘটনায় বন্ধন ক্লিনিকের মালিক নিহত যশোরে ফাঁদে ফেলে দুই সন্তানের জননীকে গণধর্ষণ, আটক ১ সাংবাদিক সাগর চৌধুরীর উপর সন্ত্রাসী হামলা এসএসপি’র নিন্দা হোম কোয়ারান্টাইনে থাকা অসহায়দের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন চেয়ারম্যান ফারুক

কুয়াকাটায় বন্ধ হয়নি এনজিও আশার কিস্তি

Spread the love

আনু আনোয়ার,পটুয়াখালী প্রতিনিধিঃ

নভেল করোনা ভাইরাসকে মোকাবেলা ও সচেতনতায় সারা দেশ যখন অলিখিত লক ডাউন হচ্ছে কুয়াকাটায় তখনও চলছে এনজিও আশার কিস্তি আদায়। করোনা ভাইরাসকে সরকার মহামারী ঘোষণা করে সব ধরনের বানিজ্যিক,আর্থিক,সামাজিক কার্যক্রম বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন। সেনাবাহিনী নিয়োগ করা হয়েছে। সেখানে লক ডাউন হয়নি এনজিও গুলোর মাঠ পর্যায়ের কার্যক্রম। ২৩ মার্চ (সোমবার) পটুয়াখালীর জেলা প্রশাসক এনজিওর কিস্তি বন্ধের ঘোষনা করেন। জেলা প্রশাসনের এমন নির্দেশনা অমান্য করে কিস্তি আদায়ে মাঠে নেমেছে এনজিও কর্মীরা। এনজিও আশা ছাড়াও অন্যদের বিরুদ্ধেও কিস্তি আদায়ে মাঠে নামার অভিযোগ উঠেছে।
মঙ্গলবার সকালে কুয়াকাটা পৌরসভার ৩ ওয়ার্ডে গেলে এমন চিত্র দেখা যায়। এনজিও সংস্থা আশা’র মাঠ কর্মীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে কিস্তি আদায় করছে। অনেকেই কিস্তি না দেওয়ার জন্য অনিহা প্রকাশ করলেও মানছে না আশার মাঠ কর্মীরা। এমন পরিস্থিতিতে অনেকেই এক প্রকার বাধ্য হচ্ছে কিস্তি পরিশোধে।
এনজিও আশা’র মাঠ কর্মী জাহিদ হোসেন বলেন, আমাদের উপরের নির্দেশে মাঠে এসে কিস্তি নিচ্ছি। কিস্তি বন্ধের নির্দেশনা আসলে আমরা কিস্তি আদায়ে আর মাঠে আসবেন না।
এনজিও আশা’র কুয়াকাটা ব্রাঞ্চ ম্যানেজার মোঃ জহির উদ্দিন বলেন, টাকার লোন নিচ্ছেন কিস্তি দিবেন এটাই তো নিয়ম। সময়মত পরিশোধ করলে আবার নতুন করে লোন পাবে। তারা এখনও সরকারী ভাবে কিস্তি বন্ধের নির্দেশ পায়নি।
এবিষয়ে কলাপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু হাসনাত মোঃ শহিদুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, এনজিওর কিস্তি আদায় বন্ধে সরকারী ভাবে সম্পূর্ন নিষেধ আছে। পরর্বতী নির্দেশ না আসা পর্যন্ত কিস্তি বন্ধ থাকবে। কোন এনজিও যদি কিস্তি আদায় করে থাকে অভিযোগ পেলে তাদের বিরুদ্ধে আইনানূগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

প্রাইভেট ডিটেকটিভ/২৪ মার্চ ২০২০/ইকবাল

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ