September 22, 2019, 11:08 pm

কুলাউড়ায় ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ও প্রভাষকের যোগদানপত্র গ্রহন করতে ইউএনও’র নির্দেশ

Spread the love

কুলাউড়ায় ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ও প্রভাষকের যোগদানপত্র গ্রহন করতে ইউএনও’র নির্দেশ
মশাহিদ আহমদ, মৌলভীবাজার
মৌলভীবাজারের একটি কলেজে জৈষ্ট্যতা লংঘন করে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসাবে প্রভাষক শাহ আলম সরকারের নিয়োগ অবৈধ হিসাবে উল্লেখ করে তার স্থলে  কলেজের সিনিয়র সহকারী অধ্যাপক মো:আব্দুর নূরকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দায়িত্ব দেওয়ার জন্য সিলেট মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান এক লিখিত আদেশে কলেজের গভর্নিং কমিটির সভাপতিকে নির্দেশ প্রদান করেছেন।

এদিকে বোর্ড চেয়ারম্যানের লিখিত আদেশের প্রেক্ষিতে গত ২১ অক্টোবর বৃহস্পতিবার কুলাউড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার চৌধুরী মো: গোলাম রাব্বি অপর এক আদেশে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসাবে মো: আব্দুর নুরকে এবং হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক হিসাবে মোহাম্মদ মোতাহের হোসেনের যোগদানপত্র গ্রহনপূর্বক ইউএনওকে অবহিত করার জন্য কলেজের গভর্নিং বডির সভাপতিকে নির্দেশ প্রদান করেছেন।

জানা যায়, কলেজের গভর্নি বডি জৈষ্ট্যতা লংঘন করে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসাবে প্রভাষক শাহ আলম সরকারকে নিয়োগ প্রদান করায় মহামান্য হাইকোর্টে রিট পিটিশন দায়ের করেন কলেজের সহকারী অধ্যাপক মো:আব্দুর নুর।

রিটের প্রেক্ষিতে মহামান্য হাইকোর্ট ৬০ কার্য দিবসের ভিতরে জৈষ্ট্যতার ভিত্তিতে কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ নিয়োগের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য সিলেট মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানকে নির্দেশ প্রদান করেন। উচ্চ আদালতের নির্দেশের প্রেক্ষিতে বোর্ডের চেয়ারম্যান বোর্ডের কলেজ পরিদর্শককে দিয়ে গত ৬ সেপ্টেম্বর কলেজে এসে জৈষ্ট্যতার বিষয়টি তদন্ত করান এবং হাইকোর্টের নির্দেশের আলোকে রিটকারী কলেজের সিনিয়র সহকারী অধ্যাপক মো: আব্দুর নূরকে ২০ কার্যদিবসের ভিতরে কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দায়িত্ব প্রদানের জন্য কলেজ গভর্নি বডিকে নির্দেশ প্রদান করেন।

এদিকে রিটকারী কলেজের সহকারী অধ্যাপক মো:আব্দুর নুর জানান, গত ১০ সেপ্টেম্বর সিলেট শিক্ষা বোর্ড থেকে চিটি দিয়ে তাকে কলেজে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দায়িত্ব গ্রহনের জন্য আদেশ দেওয়া হয়। তিনি বোর্ডের আদেশ নিয়ে কলেজে গেলে কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষকে পাননি ।

পর পর ৫ দিন যাওয়ার পরও সভাপতি কিংবা সাবেক ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষকে না পেয়ে তিনি বিষয়টির প্রতিকার সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে লিখিতভাবে জানিয়েছেন। অপরদিকে অত্র কলেজের হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক মোতাহের হোসেনকে চাকরী থেকে অবৈধভাবে অব্যাহতি প্রদান করা হয়েছে মর্মে এক আদেশে  সিলেট শিক্ষা বোর্ড কর্তৃপক্ষ মোতাহের হোসেনকে হিসাব বিজ্ঞানের প্রভাষক হিসাবে যোগদানের আদেশ দিয়েছিলেন।

বোর্ডের আদেশ নিয়ে মোতাহের হোসেন কলেজে গেলে কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ শাহ আলম সরকার বোর্ডের নির্দেশ অমান্য করে মোতাহের হোসেনের যোগদানপত্র গ্রহন করেননি। ফলে গত কয়েকমাস থেকে বোর্ডের আদেশ থাকা সত্ত্বেও মোতাহের হোসেন কলেজে যোগদান করতে পারেননি।

তিনি প্রতিকার চেয়ে কুলাউড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে আবেদন করলে গত ২১ অক্টোবর বৃহস্পতিবার ইউএনও চৌধুরী গোলাম রাব্বি এক আদেশে বোর্ডের সিদ্বান্ত মোতাবেক মোতাহের হোসেনের হিসাব বিজ্ঞান বিভাগে যোগদানপত্র গ্রহন পূর্বক ইউএনওকে অবহিত করার জন্য কলেজের গভর্নিং বডির সভাপতিকে নির্দেশ প্রদান করেছেন।

এব্যাপারে কলেজের গভনিং বডির সভাপতি গোলাম সরোয়ার খান জানান, ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসাবে মো:আব্দুর নূরকে এবং হিসাবে বিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক হিসাবে মোহাম্মদ মোতাহের হোসেনকে যোগদানপত্র গ্রহনের জন্য ইতিপূর্বে বোর্ডের একটি চিটি পেয়েছি এবং গত বৃহস্পতিবার কুলাউড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার স্বাক্ষরিত একটি পত্র পেয়েছি।

তাই তাদের আদেশ নির্দেশ আমরা কলেজে আলাপ আলোচনা করে গ্রহন করব।  এব্যাপারে কুলাউড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার চৌধুরী মো:গোলাম রাব্বি জানান- উচ্চ আদালতের রায়ের প্রেক্ষিতে এবং সিলেট শিক্ষা বোর্ডের আদেশ বাস্তবায়ন করতে আমি কলেজের সভাপতিকে গত বৃহস্পতিবার চিটি দিয়েছি। এর ব্যতয় ঘটলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে তিনি জানান।

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ