April 2, 2020, 12:17 am

শিরোনাম :
ভৈরবে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে ৮ জন কে আইনের আওতায় আনা হয় ও ১৭৫০০ টাকা জরিমানা করা হয় নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে ব্রহ্মপুত্র নদে হিন্দু সম্প্রদায়ের অষ্টমী পালন কুয়াকাটায় দেয়াল চাপা পরে ৬ষ্ঠ শ্রেনীর শিক্ষার্থী নিহত গভীর রাতে কর্মহীন অসহায় মানুষদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করলেন ভৈরব থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ শাহিন যশোরে কেটলির গরম পানিতে চা-দোকানির হাত ঝলসে দিল পুলিশ বাদাঘাট শ্রী কৃষ্ণ সেবা সংঘের উদ্যোগে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ সাবেক ডিসি,আরডিসি,দুই নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের বিরুদ্ধে মামলা নথিভুক্ত ফুলবাড়ীতে বাজার পরিস্কার করলো রংধণু পাঠাগার ও চাষী ক্লাবের সেচ্ছাসেবীরা ভোলায় সাংবাদিকের উপর হামলা সেই চেয়ারম্যানের ছেলে নাবিল হায়দার গ্রেফতার রাজশাহী মেডিকেলে শুরু হয়েছো করোনা পরীক্ষা’ রিপোর্ট মিলবে ৮ থেকে ১২ ঘণ্টায়

কুমিল্লায় প্রবাস ফেরত ব্যক্তিদের বাড়িতে গিয়ে হোম কোয়ারেন্টাইনের বিষয়ে খোঁজ নিচ্ছেন পুলিশ

Spread the love

রুহুল আমীন খন্দকার, ব্যুরো প্রধান :

কুমিল্লায় পুলিশ প্রশাসনের উদ্যোগে জেলা জুড়ে প্রবাস ফেরত ১৪ হাজার  ১৮৩ জন প্রবাস ফেরত ব্যক্তিদের বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে হোম কোয়ারেন্টাইনের বিষয়ে খোঁজ নিচ্ছে পুলিশ। বিদেশ ফেরত ব্যক্তিরা কোয়ারেন্টাইনে আছে কিনা এ বিষয়টি দেখার জন্য জেলাজুড়ে পুলিশ প্রশাসন একযোগে কাজ করে যাচ্ছে। কুমিল্লার ১৭ উপজেলা ও ১টি থানাসহ ১৮ থানায় পুলিশের কর্মকর্তারা এ কাজে ব্যস্ত সময় পার করছেন। প্রবাস ফেরতরা কোয়ারেন্টাইনে আছে কি না? বাহিরে ঘোরাফেরা করছে কি না? এসব বিষয় গুলো নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন জেলাসহ সকল থানা পুলিশের টিম।এ সময় পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে বাড়ি-বাড়ি গিয়ে প্রবাস ফেরতদের হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার বিষয়টি নিশ্চিত করছেন। নির্দেশনা দিচ্ছেন সঠিক পন্থায় কিভাবে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। যাতে করে পরিবারের অন্য সদস্যরা নিরাপদে থাকতে পারে। এছাড়াও করোনা ভাইরাস বিষয়ে নানা তথ্য জনসাধারণকে অবহিত করা হচ্ছে।এই করোনা প্রতিরোধে বিষয়ে কুমিল্লা জেলা পুলিশের গঠিত কমিটির ফোকাল পয়েন্ট কর্মকর্তা ও কুমিল্লা ডিএসবির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আজিম উল আহসান জানান, কুমিল্লার সুযোগ্য পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম বিপিএম (বার), পিপিএম স্যারের সক্রিয় দিক নির্দেশনায় ও সঠিক তত্ত্বাবধানে এসবি থেকে প্রবাস ফেরতদের প্রাপ্ত তালিকাকে ৫টি গ্রুপে ভাগ করা হয়েছে। অধিক ঝুঁকিপূর্ণ গ্রুপ, পর্যায়ক্রমে বাকিদের অন্য গ্রুপে রাখা হয়েছে। এসব তালিকা উপজেলা অনুযায়ী থানা পুলিশের কর্মকর্তাদের কাছে পাঠানো হয়েছে।এ ব্যাপারে প্রবাস ফেরতদের বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে কমপক্ষে ১৪ দিনের সঠিক উপায়ে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার বিষয়টি নিশ্চিতকরণে কাজ করছে জেলা পুলিশ। যাতে পরিবারের অন্য সদস্যরা সংক্রমণ থেকে নিরাপদে বাচঁতে পারে এবং এ ভাইরাস যাতে ছড়িয়ে পড়তে না পারে। পাশাপাশি জেলার সুযোগ্য পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলামের সঠিক দিক নির্দেশনায় চলছে জনসচেতনতায় করোনা সংক্রমণ সতর্কতায় লিফলেট, মাস্ক ও হ্যান্ডগ্লোভ বিতরণ।

প্রাইভেট ডিটেকটিভ/২২ মার্চ ২০২০/ইকবাল

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ