December 15, 2019, 6:48 am

শিরোনাম :
মোরেলগঞ্জে ৪র্থ শ্রেণির স্কুল ছাত্রের রহস্যজনক মৃত্যু মণ প্রতি ১ হাজার ৪০ টাকা মূল্যে ধান ক্রয় শুরু করেন জেলা প্রশাসক মুক্তি পাচ্ছেন চৌগাছার সেই নিরপরাধ আজিজ আনসার ও ভিডিপি’র ১৫ জন সার্কেল অ্যাডজুট্যান্টের সহকারী জেলা কমান্ড্যান্ট পদে পদোন্নতি বগুড়ার বাঘোপাড়া স্থানীয় যুব সমাজের আয়োজনে তাফসিরুল কোরআন মাহফিল অনুষ্ঠিত থানা পুলিশের অভিযানে রাজশাহীর তানোরে গাঁজাসহ ৪ মাদক ব্যাবসায়ী গ্রেফতার লক্ষ্মীপুরের চন্দ্রগঞ্জ থানা পরিদর্শন করেন চট্টগ্রাম রেঞ্জ এর অতিরিক্ত ডিআইজি মোহাম্মদ আবুল ফয়েজ আমরণ অনশন’র ৬ষ্ঠ দিন অতিবাহিত জমি’র বিরোধে গৃহহারা মশিউর মহানগরবাসীর হৃদয়ে সাড়া জাগালেও নিরব প্রশাসন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক মোহসিনা হোসাইন পেলেন শ্রেষ্ঠ জয়িতা সম্মাননা কলাপাড়ায় শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালিত

কালের সাক্ষী হয়ে আছে পৃত্থিমপাশা জমিদার বাড়ি

Spread the love

আব্দুস সামাদ আজাদ,সিলেট প্রতিনিধিঃ

ব্রিটিশ শাসন নেই, কালের পরিক্রমায় হারিয়ে গেছে জমিদারদের প্রতাপ। ইতিহাসের

সাক্ষী হয়ে শুধু রয়ে গেছে তাদের স্মৃতিবিজড়িত কীর্তি। তেমনি একটি দৃষ্টিনন্দন স্থাপত্য কুলাউড়া উপজেলায় জমিদারী আমলের স্মৃতি বিজড়িত এক ঐতিহাসিক এবং অপূর্ব স্থাপনার নাম পৃত্থিমপাশা জমিদার বাড়ি।জমিদারি প্রথা বিলুপ্ত হলেও যুগের পর যুগ ঠাঁই দাঁড়িয়ে আছে প্রাচীন সভ্যতার এ অনন্য নিদর্শন।
পৃত্থিমপাশায় রয়েছে দু’টি জমিদার বাড়ি। এই জমিদার বাড়ির মতো জীবন্ত জমিদার বাড়ি বাংলাদেশে আর দ্বিতীয়টি নেই।এই জমিদার বাড়িতে পুরোনো কয়েকটি স্থাপনার সঙ্গে রয়েছে জমিদার নির্মিত শিয়া সম্প্রদায়ের একটি চমৎকার নকশা খচিত ইমামবাড়া। প্রত্যেকটি স্থাপনাতে আভিজাত্যের ছাপ স্পষ্ট। পাশেই রয়েছে চমৎকার শান বাঁধানো ঘাটসহ সুবিশাল দীঘি।এই এলাকাটি এক সময় ছিল ত্রিপুরা রাজ্যের অন্তর্ভুক্ত। এখানকার পাহাড়ি এলাকায় নওগা কুকি উপজাতির বেশ প্রতাপ ছিল। শ্রীহট্ট সদরে (বর্তমানে সিলেট) সেই সময় একজন কাজী ছিলেন যার নাম মোহাম্মদ আলী। ১৭৯২ সালে ইংরেজ শাসকদের পক্ষ হয়ে নওগা কুকিদের বিদ্রোহ দমনে মোহাম্মদ আলী আমজাদ খাঁন ভূমিকা রাখেন। ইংরেজ সরকার এতে খুশি হয়ে মোহাম্মদ আলীর পুত্র নবাব আলী আমজাদ খাঁনকে ১২০০ হাল বা ১৪,৪০০ বিঘা জমি দান করেন। তখনকার সময়ে বৃহত্তর সিলেটের মধ্যে সবচেয়ে স্বনামধন্য এবং প্রভাবশালী অন্যতম জমিদার ছিলেন নবাব আলী আমজাদ খাঁন। সিলেটের বিখ্যাত আলী আমজাদের ঘড়ি ও সুরমা নদীর তীরে চাঁদনীঘাটের সিঁড়ি সমাজসেবায় তার একটি অন্যতম দৃষ্টান্ত। ঐ সময় পৃত্থিমপাশা জমিদার বাড়িতে ত্রিপুরার মহারাজা রাধা কিশোর মানিক্য বাহাদুরসহ বহু ইংরেজ ভ্রমণ করে গেছেন। ইরানের রাজাও ভ্রমণ করে গেছেন।এই বাড়ির ভেতর সবকিছু পুরানো আমলের কারুকাজ খচিত হলেও সেগুলো পরিষ্কার ঝকঝকেই আছে এখনো। জমিদারদের ব্যবহার করা অনেক জিনিসপত্র রয়েছে এ বাড়িতে। রক্ষণাবেক্ষণ করার জন্য এখানে লোক জন রয়েছে। নবাব আলী আমজাদ খাঁর উত্তসুরিরাই দেখাশুনা করেন জমিদার বাড়িটি।

প্রাইভেট ডিটেকটিভ/১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯/ইকবাল

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ