May 31, 2020, 2:27 pm

শিরোনাম :
শিক্ষার্থীরা যাতে করোনাভাইরাস কোভিড ১৯-এ আক্রান্ত না হয় সে জন্য এখনই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো খোলা হবে না-প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৬৬ দিনের সাধারণ ছুটির শেষে অফিস খোলার প্রথম দিনেই করোনা মহামারীতে রেকর্ড ৪০ জনের মৃত্যু মাননীয় স্পিকারের নির্দেশও উপেক্ষিত পীরগঞ্জে একটি অসহায় পরিবার উচ্ছেদে দীর্ঘদিন ধরে চলছে জুলুম, নির্যাতন ও ষড়যন্ত্র পটুয়াখালীতে হত্যা চেষ্টা মামলায় ওয়ার্ড আঃলীগের সভাপতি গ্রেফতার! যশোরে আইসোলেশনে রোগীর মৃত্যু রংপুরে করোনায় আক্রান্ত ৪২০, সুস্থ ১৪৯, মৃত ৮ জন আলফাডাঙ্গায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে গরুর মৃত্যু চিলমারীতে ৩শতাধিক মায়ের মুখে হাঁসি ফুটালেন “সিএসআর ইউন্ডো বাংলাদেশ এন্ড আরলা ফুুড ডানো মম” তানোরের প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞাকে অমান্য করে ইলামদহী হাটের জায়গা জবরদখল করে পাকা ঘর নির্মাণ! শিবগঞ্জে যুবলীগ সভাপতির ওপর ছিনতাইকারীদের ন্যাক্কার জনক হামলা আসামীদের গ্রেফতারের দাবি!

করোনা পরিস্থিতিতে সাউদার্ন সিটি কলেজ শিক্ষার্থীদের করণীয়

Spread the love
শাহিন আহম্মেদ,কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) প্রতিনিধিঃ
আমরা এমন একটা সময় পার করছি, যখন আমাদের শিক্ষার্থী-অভিভাবকই নন, সারা বিশ্ব আতঙ্কগ্রস্থ অজানা এক ভাইরাস নিয়ে। আমরা ছোট বেলায় পড়েছিলাম সাধারণ বিজ্ঞান বইতে T2 dvh ভাইরাস। করোনাভাইরাস অবশ্য এখনো অজানা। করোনা ভাইরাস ৩৮০ বার তার জিনের গঠন বদলেছে। যায় হোক আমাদের শিক্ষার্থীরা এই সময় কী করতে পারে,সাউদার্ন সিটি কলেজে অধ্যক্ষ জিয়াউর রহমান  বলেন, করোনাকালে তোমরা যারা দৈনন্দিন রুটিন ঠিকঠাক পালন না করার জন্য অন্য বন্ধুদের থেকে বিভিন্নভাবে পিছিয়ে আছো। এই সময়টিই হতে পারে এই বিষয়ভিত্তিক দূর্বলতা কাটিয়ে উঠার সময়। তোমাদের  প্রথম কাজ হতে পারে, আমি কোন কোন বিষয়ে কোন কোন টপিকে দূর্বল আছি, তার একটি তালিকা তৈরি করা। শুরু করতে হবে এখান থেকেই। প্রিয় শিক্ষার্থী খেয়াল করো, এখন তোমার হাতে অনেক সময়। কলেজ  নাই, নাই কোন টিচারের কাছে অতিরিক্ত সময় দেয়ার ঝামেলা। তুমি একটি তালিকা তৈরি করে পাঠ্যবই নিয়ে ডুবে যাও বইয়ের মধ্যে। অভ্যাসে পরিণত করো, পাঠ্য বইয়ের প্রতিটি লাইন পড়ার। বুঝে পড়ার চেষ্টা করো। যা বুঝলে তা খায় লিখে ফেলো। ভালো করার গোপন কৌশল হলো, পড়ার সাথেই তা লিখে রাখা। একটি বিষয় একবার লিখলে তা আর লিখতে হবে না, এমন নয়। বারবার লিখতে হবে। মজার বিষয় হলো, তুমি এই কাজটি তিনদিন করার পর দেখবে, নিজের কাছে অন্যরকম শান্তি অনুভব করছো।
তিনি আরও বলেন, এই বন্ধের পর যখন  কলেজে যাবে, তোমার বন্ধুরা তোমাকে একেবারেই অন্যরকম (যাকে সুপারম্যান বলে) ভাবে আবিষ্কার করবে। আরো কিছু কাজ তুমি একা একাই করতে পারো। তাহলো, পর্যায় সারণির প্রথম ৪০টি মৌলের নাম মুখস্থ করে রাখতে পারো। তুমি যে ক্লাসেই পড়ো না কেন- যে বিভাগেই (কলা, ব্যবসায় শিক্ষা, মাদ্রাসা, বিজ্ঞান)পড়ো না কেন, মৌলের পারমাণবিক সংখ্যা, ভর সংখ্যা- এটি তোমার চাকরির সময়ও লাগবে। মাইকেল মধুসূদন দত্ত, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, বেগম রোকেয়া, কাজী নজরুল ইসলাম, জীবনানন্দ দাশ, জসীম উদদীন, শামসুর রাহমান, সৈয়দ শামসুল হক, হাসান হাফিজুর রহমানের জীবনী মুখস্ত করে রাখতে পারো। কলেজ তো বটেই চাকরির পরীক্ষায়ও তুমিই এগিয়ে থাকবে। কে না চাই- নিজেকে এগিয়ে রাখতে? তোমরা কী মুহম্মদ জাফর ইকবাল স্যারের “আমি তপু” বইটি পড়েছ? না পড়ে থাকলে খুব ভুল করেছ। যারা পড়েছ, তারা নিশ্চয়ই বিজয়ের হাসি দিচ্ছো। সত্যিই তাই। তোমরা কী হুমায়ুন আহমেদ -এর প্রথম উপন্যাস “নন্দিত নরকে” পড়েছ? ক্লাস সেভেন বা তার আগেই অধ্যয়নরত প্রতিটি মেয়েরই এই বইটি পড়া দরকার।সাউদার্ন সিটি কলেজে ICT  বিভাগের প্রফেসর নেকবর হোসাইন শিক্ষার্থীদের কিছু দিকনির্দেশনা দেন,সংকটময় এই মুহূর্তে শিক্ষার্থীরা নিজেকে এগিয়ে রাখতে কিছু কাজ  অবশ্যই পালন করতে হব যেমন:-১.রুটিন: প্রতিটি শিক্ষার্থীর একটা রুটিন থাকবে।এই রুটিন অনুযায়ী সে প্রতিদিনের কাজ সম্পন্ন করবে। রুটিন হলো আকাশের ঐ ধ্রুব তারার মতো যা দেখে একজন নাবিক সমুদ্র যাত্রা করে।
২.একাডেমিক পূর্ব প্রস্তুতি:
বর্তমান সময়টা শিক্ষার্থীদের জন্য একটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। তখন এসএসসি/দাখিল/সমমান শিক্ষার্থীরা অপেক্ষা করছে তাদের কাঙ্ক্ষিত ফলাফল। এইচএসসি/আলিম শিক্ষার্থীরা প্রস্তুতি নেওয়ার পরও পরিক্ষার সময় এখন অনিশ্চিত। আর এইচএসসি পরিক্ষার পর বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি প্রস্তুতি ও বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি তো আরো অনিশ্চিত। আর বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের সেশনজট তো থাকছেই যদিও কিছু বিশ্ববিদ্যালয় বা কিছু ডিপার্টমেন্টে সেশনজট ছিল না বললেই চলে।
সুতরাং এসএসসি/দাখিল/সমমান শিক্ষার্থীরা রেজাল্টের অপেক্ষা না করে উচ্চ মাধ্যমিকের পড়াশোনা করতে হবে। এইচএসসি/আলিম শিক্ষার্থীরা তাদের পরিক্ষার প্রস্তুতি চালিয়ে যাবে পরিক্ষারপূর্ব পর্যন্ত। তবে এর পাশাপাশি এর পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষা সম্পর্কিত বিভিন্ন বিষয়ে তথ্য  সংগ্রহ বা ধারণা নিয়ে রাখতে  পারে।
সবাই বাসায় থেকো, পরিবারের সকলকে নিয়ে নিরাপদ থেকো।এবং নিয়মিত পড়াশোনা করো,,,ইনশাআল্লাহ সুস্থ পৃথিবীর আবার দেখা হবে।
প্রাইভেট ডিটেকটিভ/১৮ মে ২০২০/ইকবাল
Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ