October 16, 2019, 5:55 pm

শিরোনাম :
সারিয়াকান্দিতে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত ৪০৭টি পরিবারের মাঝে নগদ অর্থ ও সবজী বীজ বিতরণ করলেন- আব্দুল মান্নান এমপি সারিয়াকান্দিতে অনলাইন পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের পর ফুটপাত দখলমুক্ত করতে অভিযান করলেন- ইউএনও সাংবাদিক রুহুল আমীন খন্দকারের মাতার মৃত্যুতে রাজশাহী প্রেসক্লাবসহ বিভিন্ন মহলের শোক প্রকাশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী: শান্তি-শৃঙ্খলার স্বার্থে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হবে কালো তালিকাভুক্ত হতে পারে পাকিস্তান অযোধ্যা মামলার শুনানি: আইনজীবীর ঔদ্ধত্যে বিরক্ত প্রধান বিচারপতি আইসিসিতে ‘বোল্ড আউট’ ভারত লণ্ডভণ্ড জাপান, মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৭৪ পাকিস্তানকে এক ফোঁটা পানিও দেবেন না মোদি প্রেমের টানে বাংলাদেশে ভারতীয় গৃহবধূ, সীমান্তে উত্তেজনা

কমলাপুরে উপচেপড়া ভিড়, ট্রেন ছাড়তে বিলম্ব

Spread the love

কমলাপুরে উপচেপড়া ভিড়, ট্রেন ছাড়তে বিলম্ব

ডিটেকটিভ নিউজ ডেস্ক

স্বজনদের সঙ্গে ঈদুল আজহা উদযাপন করতে নগর ছাড়তে শুরু করেছে রাজধানীতে বসবাস করা মানুষ। গতকাল শুক্রবার ভোরেই রাজধানীর কমলাপুর রেলস্টেশনে ঘরমুখো মানুষের স্রোত নামে। সেইসঙ্গে ট্রেনের দেরি, অপেক্ষার যেন শেষ নেই যাত্রীদের। গতকাল শুক্রবার সাপ্তাহিক ছুটির দিন হওয়ায় বাড়ি ফেরা মানুষের ভিড় ছিল বেশি। এদিন সব ট্রেনই নির্ধারিত সময়ের চেয়ে ঘণ্টা দু’এক দেরি করে ছাড়ে। কমলাপুর রেলস্টেশনের ম্যানেজার মোহাম্মদ আমিনুল হক বলেন, গতকাল শুক্রবার যাত্রীদের চাপ বেশি। সাপ্তাহিক ছুটির দিন হওয়ায় সবাই বাড়ি ফিরতে চায়। তিনি বলেন, ট্রেনের শিডিউল রাখতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করা হচ্ছে। কিন্ত ঈদযাত্রার তৃতীয় দিনে এসে ট্রেনের বিলম্বের মাত্রা বেড়ে যায়। চার থেকে পাঁচ ঘণ্টা পর্যন্ত বিলম্ব হয় অনেক ট্রেনের। গতকাল শুক্রবার ভোর ৬টায় রাজশাহীগামী ধূমকেতু এক্সপ্রেস ট্রেন ছাড়ার নির্ধারিত সময় ছিল। কিন্তু ট্রেনটি কমলাপুর রেলস্টেশনে পৌঁছার সম্ভাব্য সময় দেওয়া হয় সকাল ৯টা। ছাড়ার সম্ভাব্য সময় সকাল সাড়ে ১০টা। শুধু ধূমকেতুই নয়, এদিন প্রায় সব ট্রেনই ছাড়তে বিলম্ব করে। রংপুর এক্সপ্রেস, নীলসাগর এক্সপ্রেস, সুন্দরবন এক্সপ্রেসসহ বিভিন্ন গন্তব্যে চলাচলকারী ট্রেন ঘণ্টা তিনেক বিলম্ব করেছে। খুলনাগামী সুন্দরবন এক্সপ্রেস ছেড়ে যাওয়ার সময় সকাল ৬টা ২০ মিনিট। কিন্তু ট্রেনটি সকাল পৌনে ৭টা পর্যন্ত কমলাপুর ছেড়ে যায়নি। ফলে ঈদযাত্রায় এতে ঘরমুখো মানুষের ভোগান্তি বেড়েছে। স্টেশনে দীর্ঘ অপেক্ষায় অনেকে ক্লান্ত। যাত্রীরা বলছেন, ট্রেনের বিলম্ব এখন স্বাভাবিক নিয়মে পরিণত হয়েছে। এর অবসান দরকার। এতে মানুষের দুর্ভোগ অনেক। তবে রেল কর্মকর্তারা বলছেন, ঈদযাত্রায় প্রচুর যাত্রীর চাপ থাকায় ট্রেনের গতি যেমন কম থাকে, তেমনি প্রতি স্টেশনে যাত্রী ওঠা-নামা করতে অন্য যেকোনো সময়ের চেয়ে বেশি লাগছে। এজন্য মূলত শিডিউল বিপর্যয় দেখা দেয়। ধূমকেতু এক্সপ্রেসের যাত্রী ওবায়দুল ইসলাম বলেন, ভোর ৫টায় বাসা থেকে বের হয়ে কমলাপুর এসেছি। এখানে এসে দেখি পাঁচ ঘণ্টা বিলম্ব ট্রেনের। এখন অপেক্ষা করছি ট্রেনের। ট্রেনটি এখনো কমলাপুর এসে পৌঁছায়নি। কমলাপুর রেলস্টেশনের ম্যানেজার মোহাম্মদ আমিনুল হক বলেন, ঈদে অতিরিক্ত যাত্রীর কারণে গতি কম ও স্টেশনে যাত্রী বেশি থাকায় যাত্রী ওঠা-নামা করতে সময় বেশি লাগে। এজন্য কিছুটা বিলম্ব হচ্ছে। তবে আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি, যাতে ট্রেনের যাত্রা বিলম্বে না হয়।

ট্রেন লাইনচ্যুত হয়ে যাত্রা বিঘ্নিত: এদিকে, মরার ওপর খাঁড়ার ঘা হয়ে টাঙ্গাইলে একটি ট্রেন লাইনচ্যুত হওয়ায় ঈদের তিনদিন আগে ঢাকার সঙ্গে উত্তরাঞ্চল ও খুলনা অঞ্চলের রেল চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। গতকাল শুক্রবার বেলা ১টা ২০ মিনিটে বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্ব পাশে ঢাকা থেকে খুলনাগামী সুন্দরবন এক্সপ্রেসের একটি বগির দুইটি চাকা লাইচ্যুত হয়। এতে এ রেলপথের ঢাকা থেকে উত্তর বঙ্গগামী ট্রেন চলচল বন্ধ হয়ে যায় বলে বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্বপার রেলস্টেশনের মাস্টার মাসুম আলী খান জানান। বিভাগীয় রেলওয়ে ব্যবস্থাপক (পাকশি) মিজানুর রহমান জানান, ট্রেনটি সকাল ৮ টার পর কমলাপুর স্টেশন থেকে ছেড়ে যায়। দুপুর ১টা ২০ মিনিটে ট্রেনটি লাইনচ্যুত হয়। পরে শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে ঢাকা থেকে রিলিফ ট্রেন এসে সুন্দরবন এক্সপ্রেসের লাইনচ্যুত হওয়া বগিটি অপসারণ করলে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়। এ দুর্ঘটনার কারণে রাজশাহীগামী ধুমকেতু এক্সপ্রেস বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব স্টেশনে, দিনাজপুরগামী একতা এক্সপ্রেস, নীল সাগর এক্সপ্রেসসহ উত্তর ও দক্ষিণবঙ্গগামী সব ট্রেন বিভিন্ন স্টেশনে আটকা পড়ে। এতে চরম দুর্ভোগে পড়ে ঈদে ঘরমুখো মানুষ। বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব রেলস্টেশন মাস্টার মাসুম আলী খান জানান, বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব রেলস্টেশন ছেড়ে যাওয়ার পর বঙ্গবন্ধু সেতুর কাছে সুন্দরবন এক্সপ্রেস ট্রেনটির একটি বগির দুইটি চাকা লাইনচ্যুত হয়। রেলওয়ের প্রকৌশলীরা লাইনচ্যুত বগিটি অপসারণ করলে বিকেলে সাড়ে ৪টায় ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়।

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ