November 16, 2019, 4:19 am

শিরোনাম :
পেঁয়াজের সিন্ডিকেট চিহ্নিতের চেষ্টা চলছে -সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের মুজিববর্ষের অনুষ্ঠানে মূল বক্তব্য দেবেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আজ যশোর সদর উপজেলা ও শহর আওয়ামীলীগের সম্মেলন খতিয়ে দেখা হচ্ছে ট্রেন দুর্ঘটনায় নাশকতা আছে কিনা – রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন আজ জাতীয় সম্মেলন,স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতৃত্বেও নতুন মুখ র‌্যাব-৫ এর অভিযানে ৫০৫ বোতল ফেন্সিডিল ১টি প্রাইভেট কারসহ ৩ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার রাজশাহী কলেজ অডিটোরিয়ামকে ‘শহীদ দুলাল’ নামে নামকরণের দাবি পেঁয়াজ আমদানিতে এখন কোনও শুল্ক নেই: অর্থমন্ত্রী নিজের ভাতা দরিদ্র মুক্তিযোদ্ধাদের দিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী চট্টগ্রামে আ. লীগে অনুপ্রবেশকারীদের তালিকা যাচাই-বাছাই হচ্ছে: তথ্যমন্ত্রী

একতরফা নির্বাচন করতে কেবল ক্ষমতাসীনরাই প্রচার চালাচ্ছেন: রিজভী

Spread the love

একতরফা নির্বাচন করতে কেবল ক্ষমতাসীনরাই প্রচার চালাচ্ছেন: রিজভী

ডিটেকটিভ নিউজ ডেস্ক

একতরফা নির্বাচন করতে কেবল ক্ষমতাসীনরাই প্রচার চালাচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। অন্যদিকে, বিরোধী পক্ষগুলোকে গায়েবি মামলা দিয়ে দমিয়ে রাখা হচ্ছে বলেও তাঁর অভিযোগ। গতকাল সোমবার দলের নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন এই বিএনপি নেতা। এ সময় নির্বাচনী সিদ্ধান্ত গ্রহণের ব্যাপারে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে. এম. নুরুল হুদা শুধু একজনের কথাই শোনেন বলে অভিযোগ করেন রুহুল কবির রিজভী আহমেদ। তিনি বলেন, প্রধান নির্বাচন কমিশনার, উনি কারো কথা শোনেন না। উনি শুধু শোনেন একজনের কথা। সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য রুহুল কবির রিজভী মানুষের ভোটাধিকার নিশ্চিত করার দাবি জানান। রিজভী আহমেদ বলেন, সব দল অংশগ্রহণ করল, কিন্তু ভোটাররা ভোট দিতে পারল না। তাইলে তো হবে না। এটা স্বচ্ছ হতে হবে। সুষ্ঠু হতে হবে। ভোটাররা যাতে ভোট দিতে পারে, এটাই দায়িত্ব নির্বাচন কমিশনের। এদিকে, গতকাল সোমবার সকাল ১১টা ৭ মিনিটে নির্বাচন কমিশনের সভা চলাকালে ‘নোট অব ডিসেন্ট’ দিয়ে আবারও সভা বর্জন করেছেন নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার। প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে. এম. নুরুল হুদার সভাপতিত্বে এই কমিশন সভা শুরু হয়। সভা শুরুর সাত মিনিট পর ‘নোট অব ডিসেন্ট’ প্রদান করে বের হয়ে আসেন মাহবুব তালুকদার। এ ঘটনার ইঙ্গিত দিয়ে রিজভী আহমেদ বলেন, কিন্তু নির্বাচন কমিশনের কোনো কোনো কর্মকর্তা যদি সেটা না শুনে একতরফা নির্বাচন করার জন্য উৎসাহী হয়ে থাকেন, আর সেইখানে যদি কেউ নোট অব ডিসেন্ট দেন, সেটা অবশ্যই সব মানুষের, প্রত্যেকেরই সেটাতে সমর্থন থাকবে। রিজভী বলেন, আওয়ামী লীগের শাসনামলেই সংখ্যালঘুদের ওপর সবচেয়ে বেশি নির্যাতন হয়। অবৈধ সরকারের শাসনামলে দেবালয়ের পুরোহিত থেকে শুরু করে বিদেশিরাও হত্যার শিকার হয়েছে। আওয়ামী লীগ প্রতিনিয়ত জীবন্ত মানুষকে লাশ করার কাজ করে। এ ছাড়া অবিলম্বে সারা দেশে আটক হওয়া বিএনপি নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবিও জানানো হয় এই সংবাদ সম্মেলন থেকে। ‘হাজার হাজার বিচার-বহির্ভূত হত্যার হিড়িকে দেশব্যাপী আতঙ্ক ও ভীতিকর অবস্থা বিরাজ করছে’- অভিযোগ করে বিএনপির এ মুখপাত্র প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে বলেন, এই অবস্থায় আপনাকে কি বলতে হবে আইনের শাসনের সরকারের প্রধান? ২০০৬ সালের ২৮ অক্টোবর আপনি লগি-বৈঠা দিয়ে মানুষ মেরে লাশের ওপর নৃত্য করালেন। এবার ক্ষমতায় এসে বিএনপির মন্ত্রী-এমপি থেকে শুরু করে ছাত্র-যুবকসহ নানা শ্রেণি-পেশার মানুষের গুম হওয়া-যা প্রত্যক্ষভাবে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর লোকজন দ্বারা সংঘটিত হয়েছে- তারপরেও কি আপনাকে মানবতার জননী বলতে হবে? বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব বলেন, সাধারণ মানুষের মানবাধিকার ও বাকস্বাধীনতা কেড়ে নিয়ে আওয়ামী লীগ নেত্রী নিজেকে একক ভাষ্যকারে পরিণত করে বক্তৃতায় অন্যকে খুনি, দুর্নীতিবাজ বলছেন, অথচ খুন, জখম যে আওয়ামী শাসনের ঐতিহ্য, তা কিন্তু মানুষ ভুলে যায়নি। মানুষ ভুলে যায়নি ’৭২ থেকে ’৭৫ এ হাজার হাজার প্রগতিশীল নেতাকর্মীর হত্যার কথা। ভুলে যায়নি প্রথম বিচার-বহির্ভূত হত্যার শিকার মুক্তিযোদ্ধা সিরাজ শিকদারের হত্যাকাণ্ড এবং এই হত্যাকাণ্ডের পর আস্ফালন-এরপরেও কি আপনাদেরকে শান্তির বার্তাবাহক বলতে হবে? ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের সমালোচনা করে রিজভী বলেন, নানা কালাকানুন করে গণতন্ত্রকেই লকআপ করেছে আওয়ামী লীগ। মানুষ এখন ডিজিটাল আতঙ্কে ভুগছে। বিএনপির এ নেতা বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংকসহ সকল আর্থিক প্রতিষ্ঠান লুটপাট করে লাখ লাখ কোটি টাকা বিদেশে পাচার করা হয়েছে। কুইক রেন্টাল বিদ্যুৎ খাতে ব্যাপক দুর্নীতিতে হাজার হাজার কোটি টাকা লুটপাট করা হচ্ছে। জনগণের এই টাকা নয়-ছয় করেই ক্ষমতাসীন দলের নেতা ও আত্মীয় স্বজনদের কেউ কেউ সিঙ্গাপুরে শ্রেষ্ঠ ধনী হচ্ছেন, মালয়েশিয়া ও কানাডায় সেকেন্ড হোম ও বেগম পল্লী গড়ে তুলছেন। আইটি খাতের লাখ কোটি ডলারের দুর্নীতি মানুষের অজানা নয় মন্তব্য করে রুহুল কবির রিজভী বলেন, ভিওআইপি ব্যবসার সঙ্গে কারা জড়িত সেটিও মানুষ অবগত। একদিন হুড়মুড় করে সব বেরিয়ে পড়বে। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন দিয়েও সেটি আটকানো যাবে না। তিনি সারাদেশে বিএনপি নেতাকর্মীদের গ্রেফতারের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে তাদের নিঃশর্ত মুক্তির দাবি জানান।

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ