November 22, 2019, 7:16 am

শিরোনাম :
দেশ ও জাতির কল্যানার্থে র‌্যাব-৫ এর সফলতা সংবাদ সম্মেলনে অধিনায়ক ডিআইজি মাহ্ফুজুর রহমান পুলিশের পৃথক ৩টি অভিযানে রাজশাহীর তানোরে ওয়ারেন্ট ভুক্ত আসামী ও নারী মাদক ব্যাবসায়ীসহ আটক ৩ র‌্যাব-৫, এর অভিযানে অস্ত্র, বিপুল পরিমান ইয়াবা ও বিভিন্ন সরঞ্জামাদিসহ শীর্ষ অস্ত্র ও মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার লালপুরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান গাইবান্ধায় কৃষি পণ্যের ন্যায্যমূল্য, কৃষক বান্ধব কৃষি ব্যবস্থা ও ভর্তুকি সহায়তা নিশ্চিতকরণে প্রচারাভিযান রাজারহাটে সরকারি খরচে আইনগত সহায়তা প্রদান বিষয়ক প্রাতিষ্ঠানিক গণশুনানি বগুড়ার ধুনটে যুবলীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা বাস্তবায়ন না হলে মৃত্যু থামবে না -নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা)-এর চেয়ারম্যান ইলিয়াস কাঞ্চন দুর্নীতি দমন কমিশন দুদকের তালিকায় ১৫৯ জন পূর্ণা নগরের রাস্তা পরিদর্শনে চেয়ারম্যান ফারুক আহমদ 
আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

একই ঠিকাদার যেন সব কাজ না পায় একনেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ

Spread the love

মোহাম্মদ ইকবাল হাসান সরকারঃ

আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

একই ঠিকাদার যেন ঘুরেফিরে সব কাজ না পায়, সে জন্য পিপিআর (পাবলিক প্রকিউরমেন্ট বিধিমালা) সংশোধন করতে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের বাস্তবায়ন, পরিবীক্ষণ ও বাস্তবায়ন বিভাগকে (আইএমইডি) এ নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।  গতকাল ৫ নভেম্বর ২০১৯ ইং তারিখ মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) বৈঠকের পর এ কথা জানান পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান। ব্রিফিংয়ে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, আইএমইডিকে
পিপিআর সংশোধনের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বর্তমান নিয়মে বড় ঠিকাদাররা কাজ পাচ্ছেন। তাদের পাশাপাশি দেখতে হবে যেন ছোট এবং নতুন ঠিকাদারও কাজ পান, প্রতিযোগিতা বাড়ে।পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ে একনেক চেয়ারপারসন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে বৈঠকে প্রায় ৪ হাজার ৪৪৭ কোটি ৭৬ লাখ টাকা ব্যয়ে ৬টি প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয়। এর মধ্যে সরকারি অর্থায়ন প্রায় ৪ হাজার ৪৩৯ কোটি ৮৬ লাখ টাকা এবং সংস্থার নিজস্ব অর্থায়ন ৭ কোটি ৯০ লাখ টাকা।প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা সম্পর্কে এমএ মান্নান আরও বলেন, প্রায়ই আগ্রহ নিয়ে প্রকল্প পাস করা হয়, দালানকোঠা নির্মাণ করা হয়। তার পর আর বাকি কাজ হয় না। জনবল নেই, না হয় যন্ত্রবল নেই। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, যে আগ্রহ নিয়ে আপনারা প্রকল্পের কাজ শুরু করেন, একই আগ্রহ নিয়ে দয়া করে বাকি কাজগুলোও করবেন।পরিকল্পনামন্ত্রী জানান, দেশের নদীগুলোয় অহেতুক সেতু নির্মাণ না করার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এ ছাড়া এখন থেকে নতুন রাস্তা করার চেয়ে বিদ্যমান রাস্তাগুলো চার লেন এবং প্রশস্ত করা হবে বলেও জানান তিনি।অনুমোদিত প্রকল্পগুলোর মধ্যে রয়েছে প্রায় সাড়ে ৩ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের নিরাপত্তা ও ভৌত কাঠামোর সুরক্ষা ব্যবস্থা। এ সম্পর্কে পরিকল্পনামন্ত্রী জানান, নতুন প্রকল্পের মাধ্যমে রূপপুর বিদ্যুৎকেন্দ্রের জন্য ডিজাইন বেসিস থ্রেট (ডিবিটি) এবং এর বাইরের হুমকি মোকাবিলা করা হবে। সেই সঙ্গে কম্পিউটার বা সাইবার নিরাপত্তা এবং সংবেদনশীল তথ্যের ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করা হবে।সূত্র জানায়, গত ৩ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হয় প্রকল্প মূল্যায়ন কমিটির (পিইসি) সভা। এ সভায় দেওয়া সুপারিশ এবং তার বাস্তবায়ন সম্পর্কে জানা গেছে, বৈদেশিক প্রশিক্ষণ ও প্রতিনিধি খাতে ৮ কোটি ৭ লাখ টাকা প্রস্তাব করা হলেও পরিকল্পনা কমিশনের সুপারিশ অনুযায়ী খরচ কমিয়ে ধরা হয়েছে ৫ কোটি টাকা। তবে অভ্যন্তরীণ প্রশিক্ষণ খাতে ৫০ লাখ টাকার প্রস্তাব করা হলেও সেটি বাড়িয়ে ১ কোটি টাকা করা হয়েছে। শ্রমিক মজুরি খাতে ৪২ লাখ টাকা থেকে কমিয়ে ২১ লাখ টাকা, মুদ্রণ ও বাঁধাই খাতে ২১ লাখ টাকার পরিবর্তে ১৫ লাখ টাকা, জরিপের জন্য ২৫ লাখ টাকার পরিবর্তে ১০ লাখ টাকা এবং অডিও-ভিডিও নির্মাণে ২৫ লাখ টাকার পরিবর্তে ১৫ লাখ টাকাসহ আরও বিভিন্ন খাতের খরচ কমানো হয়েছে।
অনুমোদিত অন্য প্রকল্পগুলো হচ্ছে যশোর-মনিরামপুর-কেশবপুর-চুকনগর আঞ্চলিক মহাসড়ক উন্নয়ন; ফেনী-সোনাগাজী-মুহুরী সড়কে মুহুরী সেতু এবং বক্তারমুন্সী-কাজিরহাট-দাগনভূঞা সড়কে ফাজিলাঘাট সেতু নির্মাণ; কক্সবাজারের একতাবাজার থেকে বানৌজা শেখ হাসিনা ঘাঁটি পর্যন্ত সড়ক উন্নয়ন; আগারগাঁওয়ে পর্যটন ভবন নির্মাণ; সিলেট সদর ও বিশ্বনাথ উপজেলায় দশগ্রাম, মাহতাবপুর ও রাজাপুর পরগনা বাজার এলাকায় সুরমা নদীর উভয় তীরের ভাঙন ঠেকাতে রক্ষা প্রকল্প।মানবকল্যাণে বীমাশিল্পের ব্যবহার করুন,মানবকল্যাণে বীমাশিল্পকে ব্যবহার করার জন্য বীমা কোম্পানিগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, বীমাশিল্পে গ্রাহকদের আস্থার অভাব রয়েছে। কারণ তারা যতগুলো কিস্তি জমা দিয়েছে, সবগুলো কোম্পানির প্রধান কার্যালয়ে আদৌ জমা হয়েছে কিনা, সে ব্যাপারে অন্ধকারেই থেকে যায়। প্রতারণা থেকে বীমা গ্রাহকদের রক্ষা করতে একটি ঐক্যবদ্ধ বার্তা প্রদান প্ল্যাটফর্ম চালু করতে হবে। গতকাল বিকালে সোনারগাঁও হোটেলে বীমাসংক্রান্ত ১৫তম আন্তর্জাতিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির ভাষণে তিনি এ কথা বলেন। জলবায়ু পরিবর্তনজনিত ঝুঁকিতে থাকা মানুষজনের জন্য বিশেষ বীমা স্কিম চালু করা গেলে তারা নিশ্চিন্ত থাকতে পারবেন বলেও মন্তব্য করেন তিনি।
মিউনিক রি ইন্স্যুরেন্স এবং মাইক্রোইন্স্যুরেন্স নেটওয়ার্কের সহযোগিতায় বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স অ্যাসোসিয়েশন তিন দিনব্যাপী এ সম্মেলনের আয়োজন করেছে।

প্রাইভেট ডিটেকটিভ/৬নভেম্বর ২০১৯/ইকবাল

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ