November 10, 2019, 2:21 pm

শিরোনাম :
রাজারহাটে লোড-আনলোড শ্রমিক ইউনিয়নের ত্রি-বার্ষিক নির্বাচন সম্পন্ন আজ পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) জগন্নাথপুর রাধারমণ উৎসবকে মাতিয়ে তুলতে আসছেন সেরা কণ্ঠ সালমা ও শারমিন গাইবান্ধায় দরিদ্র মেধাবী শিক্ষার্থীকে আর্থিক সহায়তা দিলো জেলা প্রশাসক গাইবান্ধায় পবিত্র ঈদ-এ-মিলাদুন্নবী পালিত চট্টগ্রামে আল্লামা তাহের শাহের নেতৃত্বে জুলুশে লাখো নবী প্রেমিকের ঢল কেশবপুরে পৌর বিএনপির উদ্দ্যোগে বিপ্লব ও সংহতি দিবস পালিত তালায় ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের তান্ডবে প্রায় ৪ হাজার বাড়িঘর বিধ্বস্ত, উপড়ে পড়েছে হাজার হাজার গাছ আদালতের নির্দেশ অমান্য করে গাছ কেটে নিয়ে গেলো মহাস্থান জাদুঘরের কর্মচারীরা অর্থাভাবে বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি হতে পাচ্ছেন না চিলমারীর মেধাবী শিক্ষার্থী আবু হাসান

আগের চেয়ে ‘এখন শিল্পীরা বেশি স্বাধীন’

Spread the love

আগের চেয়ে ‘এখন শিল্পীরা বেশি স্বাধীন’

ডিটেকটিভ বিনোদন ডেস্ক

ক্লোজআপ ওয়ান প্রতিযোগিতার চ্যাম্পিয়ন সানিয়া সুলতানা লিজা বর্তমানে গান নিয়ে বেশ ব্যস্ত সময় পার করছেন। স্টেজ শো, অডিও গান, মিউজিক ভিডিও এবং সিনেমার গান নিয়ে চলছে তার ব্যস্ততা। তবে সবচেয়ে বেশি ব্যস্ত শো নিয়ে। এদিকে কদিন আগেই ব্যাংকক ঘুরে এলেন তিনি। শো করতে নয়, ঘোরাঘুরি ও ডাক্তারি চেকআপের জন্যই ছিল তার এ সফর। সফর শেষে দেশে ফিরেই নতুন উদ্যম নিয়ে কাজ শুরু করেছেন লিজা। বর্তমানে দেশের বিভিন্ন স্থানে শো করছেন। সব মিলিয়ে কেমন চলছে দিনকাল? লিজা বলেন, বেশ ভালো।

কারণ, ব্যাংকক সফরটা ছোট হলেও ভালো সময় কেটেছে। সেখান থেকে ফিরে এখন কাজ শুরু করেছি। শো-এর টানা ব্যস্ততা চলছে। আর রেকর্ডিংয়ের ব্যস্ততাও রয়েছে। সম্প্রতি নতুন একটি গান প্রকাশ হয়েছে। এর সাড়া কেমন মিলছে? লিজা উত্তরে বলেন, কয়েকদিন হলো গানটি প্রকাশ হয়েছে। এখনই এর ফলাফল কিংবা সাড়া নিয়ে কথা বলাটা ঠিক হবে না। তবে আমি চেষ্টা করেছি ভালো একটি গান করার। বাণিজ্যিক কোনো উদ্দেশ্য ছিল না এখানে। যে গানটি প্রকাশ করেছি তার নাম ‘প্রাণ জুড়ে’। জাহিদ আকবরের কথায় গানটির সুর ও সংগীতায়োজন করেছেন আরফিন রুমি। আবিদ হাসান এটির ভিডিও নির্মাণ করেছেন। খুব সাধারণভাবে এ গানটির ভিডিও করা হয়েছে। আমার ইউটিউব চ্যানেলেই এটি প্রকাশ করেছি। গানটিতে বরাবরের মতো আমি পারফর্মও করেছি। আমার বিশ্বাস গানটি সময়ের সঙ্গে সঙ্গে ভালোর দিকে যাবে। এর বাইরে সামনে কি আসছে? লিজা বলেন, বেশ কিছু গানের কাজ হয়ে আছে। এর মধ্যে বিভিন্ন কোম্পানির বেশ কয়েকটি কাজ করেছি। নিজের উদ্যোগেও গান করা আছে। তবে আমি সম্পূর্ণ বাণিজ্যিক উদ্দেশ্য নিয়ে গান করছি না। আমি চাই ভালো মানের কিছু গান করতে। এমন গান করতে চাই যা রাতারাতি জনপ্রিয় হওয়ার দরকার নেই। বরং, ধীরে ধীরে মানুষের হৃদয়ে জায়গা করে নিক। দীর্ঘদিন যেন গানগুলো টিকে থাকে। মূলত এই লক্ষ্য নিয়েই নিজের উদ্যোগে কয়েকটি গান করেছি। গানের সঙ্গে ভিডিও কতটুকু জরুরি মনে হয় এই সময়ে? লিজা উত্তরে বলেন, একটা সময়ে অটোগ্রাফের যুগ ছিল। তারকাদের অটোগ্রাফের জন্য লাইন লেগে থাকতো। এখন কিন্তু অটোগ্রাফের চেয়ে ফটোগ্রাফ বেশি চায় সবাই। অবস্থার পরিবর্তন হয়েছে। গান এখন শোনার পাশাপাশি মানুষ দেখতেও চায়। কিন্তু আমি এটা বলছি না যে, অডিওর চেয়ে ভিডিওর প্রতি বেশি গুরুত্ব দিতে হবে। তবে অবশ্যই ভিডিও সময়ের দাবি। আর গানের কথা, সুর ও গাওয়ার ধরনের ওপরই বেশি গুরুত্ব দিতে হবে। এরপর ভিডিও নিয়ে ভাবা যায়। অডিওকে গুরুত্ব না দিয়ে শুধু ভিডিওকে গুরুত্ব দিলে সেটার মান থাকবে না, এটাই স্বাভাবিক। এখন মিউজিক ইন্ডাস্ট্রির অবস্থা কেমন মনে হচ্ছে? লিজা বলেন, এখন খারাপও না। খুব ভালোও না। ডিজিটালি গান প্রকাশ হচ্ছে। কোম্পানিগুলোও শিল্পীদের ভালো গান প্রকাশ করছে। আবার শিল্পী নিজেও তার গান প্রকাশ করতে পারছে। আমি তো মনে করি এখন শিল্পীরা আগের চেয়ে বেশি স্বাধীন। কারণ, কারো ওপর নির্ভর হয়ে থাকতে হচ্ছে না। স্বত্ব রেখে নিজের গান নিজেই প্রকাশ করতে পারছে। তাই ইন্ডাস্ট্রি সামনে আরো ভালোর দিকে যাবে বলেই আমার বিশ্বাস। এবার ভিন্ন প্রসঙ্গে আসি। বিয়ে করা হচ্ছে কবে? লিজা বলেন, বিয়ে নিয়ে কোনো চিন্তা নেই এখন। যখন হবে তখন দেখা যাবে। এখন আমার  সব ধ্যান জ্ঞান হলো গান।

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ