September 20, 2019, 1:47 am

শিরোনাম :
ভোলা লালমোহনে নাতনীর সাথে অসামাজিক কাজের চেষ্টা,এবং দাদা আটক কেশবপুরে অধ্যক্ষের দূর্ণীতির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করায় মাদ্রাসা প্রভাষককে মারপিট নগদ অর্থ ও মোবাইল ছিনতাই সুন্দরগঞ্জে পোনা মাছ অবমুক্ত করণ ২০ হাজার মেট্রিকটন কয়লা নিয়ে পায়রা বন্দরে নোঙর করেছে জাহাজ এমভি ঝিং হাই টং-৮ আলফাডাঙ্গায় আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভা লালপুরে ডাকাতির নাটক সাজাতে গিয়ে বিকাশ কর্মীসহ আটক ২ লতিফিয়া ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের প্রশিক্ষণ কর্মশালা ও সংবর্ধনা সম্পন্ন সহকারী শিক্ষকদের ১১ তম ও প্রধান শিক্ষকদের ১০ তম গ্রেডের দাবিতে আলফাডাঙ্গায় প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির মানব বন্ধন শৈলকুপা পৌর ভবন থেকে বিপুল পরিমান ভিজিএফ’র চাউল জব্দ শৈলকুপায় প্রাথমিক সহকারী শিক্ষকদের বেতন স্কেল ১১তম গ্রেড ও প্রধান শিক্ষকদের ১০ম গ্রেডের দাবিতে মানববন্ধন

আকায়েদ জঙ্গি হয়েছেন আমেরিকায়: মনিরুল

Spread the love

আকায়েদ জঙ্গি হয়েছেন আমেরিকায়: মনিরুল

ডিটেকটিভ নিউজ ডেস্ক

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের বাস টার্মিনালে বোমা বিস্ফোরণের ঘটনায় অভিযোগের মুখে থাকা বাংলাদেশি যুবক আকায়েদ উল্লাহর বাংলাদেশে অবস্থানের সময় কোনো ধরনের অপরাধ পায়নি পুলিশ।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর দাবি, আকায়েদ আমেরিকায় গিয়ে জঙ্গিবাদে জড়িয়ে থাকতে পারেন। আকায়েদের স্ত্রী, শ্বশুর-শাশুড়িকে রাজধানীর বাসা থেকে নিয়ে এসে জিজ্ঞাসাবাদের একদিন বাদে গতকাল বুধবার দুপুরে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া সেন্টারে এসব কথা জানান কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের (সিটিটিসির) প্রধান মনিরুল ইসলাম।

আকায়েদ বাংলাদেশে থাকার সময় তাঁর সম্পর্কে পুলিশের কাছে কোনো ক্রিমিনাল রেকর্ড নেই। তাই ধারণা করা হচ্ছে, সে হয়তো আমেরিকায় গিয়ে ইন্টারনেটের মাধ্যমে জঙ্গিবাদে জড়িয়ে পড়েছেন, যোগ করেন সিটিটিসির প্রধান। পুলিশের এই কর্মকর্তা আরো বলেন, জিরো টলারেন্সের বাংলাদেশের একজন নাগরিকের এমন কর্মকা- দুশ্চিন্তার বিষয়। তাই এই ঘটনা অধিক গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে। মার্কিন প্রসিকিউশনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, গত সোমবার সকালে ম্যানহাটন পোর্ট অথরিটি বাস টার্মিনালে শরীরে বাঁধা বোমার বিস্ফোরণ ঘটান আকায়েদ উল্লাহ। এতে তিনি নিজে এবং আরো তিনজন আহত হন। গত মঙ্গলবার প্রসিকিউশন আকায়েদের বিরুদ্ধে ফেডারেল আদালতে অভিযোগ দায়ের করে। এর মধ্যে রয়েছে বিদেশি সন্ত্রাসী গোষ্ঠীকে সহায়তা দেওয়া এবং জনবহুল এলাকায় অস্ত্র ও বোমার ব্যবহার। আকায়েদ বাংলাদেশি।

২০১১ সালে অভিবাসী ভিসায় যুক্তরাষ্ট্রে যান তিনি। নিউইয়র্কের ব্রুকলিন এলাকায় স্থায়ীভাবে বসবাস শুরু করেন আকায়েদ। নিউইয়র্কে ভাড়ায় গাড়ি চালাতেন তিনি। তবে সম্প্রতি তাঁর লাইসেন্সের মেয়াদোত্তীর্ণ হয়। এর মধ্যেই গত মঙ্গলবার রাজধানীর জিগাতলায় মনেশ্বর রোডের একটি বাসা থেকে আকায়েদের স্ত্রী জান্নাতুল ফেরদৌস জুঁই, শ্বশুর জুলফিকার হায়দার ও শাশুড়ি মাহফুজা আক্তারকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিয়ে আসেন সিটিটিসি সদস্যরা। এ ব্যাপারে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সিটিটিসির প্রধান মনিরুল ইসলাম বলেন, আকায়েদের স্ত্রী ও শ্বশুর-শাশুড়িকে ডেকে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। তাঁদের কাছে থেকে জানা গেছে, আকায়েদ ২০১১ সালে পরিবারের সঙ্গে আমেরিকায় গিয়েছে। তখন তিনি ঢাকা সিটি কলেজের বিবিএর ছাত্র ছিলেন।

বাংলাদেশে আসার পর আকায়েদ কাদের সঙ্গে মিশেছিলেন, এ দেশে তাঁর কোনো সহযোগী আছে কি না বা জঙ্গিবাদে জড়িত এমন কারোর সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলেন কি না, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলেও জানান মনিরুল। নিউ ইয়র্কে আত্মঘাতী হামলার চেষ্টার ঘটনায় গ্রেফতার বাংলাদেশি তরুণ আকায়েদ উল্লাহ তার স্ত্রী জান্নাতুল ফেরদৌসকে নিষিদ্ধ জঙ্গী সংগঠন আনসারউল্লাহ বাংলা টিমের প্রধান সংগঠক মুফতি জসীমউদ্দীন রাহমানীর বই পড়ার পরামর্শ দিতেন বলে জানিয়েছেন মনিরুল ইসলাম। তিনি বলেন, সাত বছর আগে যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার আগে আকায়েদের কোনো রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সংশ্লিষ্টতা ছিল কি না- সে বিষয়ে নিশ্চিত কোনো তথ্য এখনো পুলিশ পায়নি। এই তদন্তে যুক্তরাষ্ট্র সরকারকে সব ধরনের সহযোগিতা করতে বাংলাদেশের পুলিশ প্রস্তুত বলেও মন্তব্য করেন মনিরুল। নিউ ইয়ার্কের ম্যানহাটনে বাস টার্মিনালের ব্যস্ত এলাকায় সোমবার সকালে বিস্ফোরণের পর আকায়েদকে আহত অবস্থায় গ্রেফতার করে হাসপাতালে ভর্তি করে পুলিশ। যুক্তরাষ্ট্রের পুলিশ কর্মকর্তারা বলছেন, আকায়েদ তার দেহের সঙ্গে বাঁধা বিস্ফোরকে বিস্ফোরণ ঘটিয়েছিলেন। তাদের ধারণা, আইএসের মত কোনো জঙ্গি গোষ্ঠীর মাধ্যমে অনুপ্রাণিত হয়ে আকায়েদ ওই ঘটনা ঘটিয়েছেন। চট্টগ্রামের আকায়েদ বড় হয়েছেন ঢাকার হাজারীবাগে।

সাত বছর আগে যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার পর প্রথমে ট্যাক্সিক্যাব চালালেও পরে একটি আবাসন নির্মাতা কোম্পানিতে বিদ্যুৎ মিস্ত্রির কাজ নেন। ২৭ বছর বয়সী ওই তরুণের বিরুদ্ধে গত মঙ্গলবার নিউ ইয়র্কের আদালতে বিদেশি সন্ত্রাসী সংগঠনকে সহায়তা, জনসমাগমস্থলে বোমা হামলা, ধ্বংসাত্মক ডিভাইস ও বিস্ফোরক ব্যবহার করে সম্পদের ক্ষয়ক্ষতির অভিযোগ দায়ের করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের তদন্তকারীরা। ম্যানহাটন ফেডারেল আদালতে ওই লিখিত অভিযোগে বলা হয়েছে, হামলার কিছুক্ষণ আগে ফেইসবুকে এক পোস্ট দিয়ে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন আকায়েদ। এসব অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত হলে বাকি জীবন কারাগারেই কাটতে হতে পারে আকায়েদকে। ম্যানহাটনে বিস্ফোরণের ঘটনার পর আকায়েদ সম্পর্কে খোঁজ নিতে গিয়ে পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের সদস্যরা জিগাতলার মনেশ্বর রোডে তার শ্বশুড়বাড়ির ঠিকানা পান। পরে আকায়েদের স্ত্রী জান্নাতুল ফেরদৌস, শ্বশুর জুলফিকার হায়দার ও শাশুড়ি মাহফুজা আকতারকে ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। মনিরুল বলেন, আকায়েদ সর্বশেষ দেশে এসেছিলেন গত সেপ্টেম্বরে তার সন্তানের জন্মের সময়। জিজ্ঞাসাবাদে তারা বলেছেন, দেশে অবস্থানকালে অধিকাংশ সময় আকায়েদ তার স্ত্রী-সন্তানের সঙ্গে কাটিয়েছে। সে তার স্ত্রীকে নিয়মিত জসীমউদ্দীন রাহমানীর বই পড়ার পরামর্শ দিত। তবে তার বাসায় রাহমানীর বইপত্র পাওয়া যায়নি। ২০১৩ সালে ব্লগার আহমেদ রাজীব হায়দার হত্যাকা-ের পর আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের তৎপরতার খবর আলোচনায় আসে। সংগঠনটির আমির রাহমানী ওই মামলার রায়ে দোষি সাব্যস্ত হয়ে কারাভোগ করছেন। ২০১৫ সালের মে মাসে আনসারুল্লাহ বাংলা টিম নিষিদ্ধ হওয়ার পর এর সদস্যরা আনসার আল ইসলাম নামে তৎপরতা শুরু করলে চলতি বছর মে মাসে এ সংগঠনকেও নিষিদ্ধ করা হয়। লেখক অভিজিৎ রায় হত্যাসহ বেশ কয়েকটি জঙ্গি হামলা ও হত্যার ঘটনায় আনসারুল্লাহ ও আনসার আল ইসলাম জড়িত বলে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর ভাষ্য। ২০১১ সালে ফ্যামিলি ভিসায় পরিবারের সবার সঙ্গে নিউ ইয়র্কে যাওয়ার পর আকায়েদ তার বাবা, মা ও ভাই-বোনদের সঙ্গে ব্রুকলিনে বসবাস করে আসছিলেন। ওই পরিবারের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ একজন বলেছেন, বাংলাদেশে থাকার সময় ইসলামি ছাত্র শিবিরের সাংগঠনিক তৎপরতায় জড়িত ছিলেন আকায়েদ। তবে যুক্তরাষ্ট্রে জামায়াত-শিবিরের সমর্থকদের নিয়ে গঠিত সংগঠনগুলোর সঙ্গে আকায়েদকে তেমনভাবে দেখা যায়নি। এ বিষয়ে প্রশ্ন করলে মনিরুল ব্রিফিংয়ে বলেন, আকায়েদের রাজনৈতিক সংশ্লিষ্টতা নিয়ে এখনো নিশ্চিত কোনো তথ্য হওয়া যায়নি। সে কীভাবে উগ্রবাদে জড়িয়েছে, তা দেখা হচ্ছে। এর আগে বাংলাদেশের পুলিশ প্রধান এ কে এম শহীদুল হক বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেছিলেন, দেশে আকায়েদের অপরাধমূলক কর্মকা-ে জড়িত থাকার কোনো রেকর্ড নেই। ওই তরুণের স্ত্রী জান্নাতুল ফেরদৌস এবং শাশুড়ি মাহফুজা আকতারও দাবি করেছেন, আকায়েদের মধ্যে জঙ্গিবাদি কোনো লক্ষণ তারা আগে দেখেননি। আহত আকায়েদকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে ম্যানহাটনের বেলভিউ হাসপাতালে। সেখানে তার বক্তব্য থেকে উদ্ধৃত করে নিউ ইয়র্ক পুলিশের কমিশনার জেমস ও’নিল সাংবাদিকদের বলেছিলেন, যুক্তরাষ্ট্র ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে জেরুজালেমকে স্বীকৃতি দেওয়ায় ক্ষোভ থেকে সে ওই ঘটনা ঘটায়। অক্টোবর নিউ ইয়র্কের রাস্তায় পথচারীদের ওপর ট্রাক উঠিয়ে আটজন হত্যার ঘটনায় যে উজবেক অভিবাসীকে দায়ী করা হয়, আকায়েদও তার মত জিহাদি কোনো গোষ্ঠীর প্রভাবে একাকী হামলা চালানোর পথ বেছে নিয়ে থাকতে পারেন বলে মনে করেন নিউ ইয়র্কের মেয়র অ্যান্ড্রু কুমো। তিনি বলেন, তারা দুজনেই ইন্টারনেট থেকে তথ্য নিয়েছে। আকায়েদ ওইভাবেই বোমা বানানো শিখেছে। তারা বিদেশ থেকে আসেনি, তারা এখানেই বসবাস করত। এদিকে, আকায়েদ উল্লাহর বিরুদ্ধে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির উদ্দেশ্যে জনসমাগমস্থলে বোমা হামলার অভিযোগ আনা হয়েছে, যা আদালতে প্রমাণিত হলে তার বাকি জীবন কারাগারেই কাটবে। লিখিত অভিযোগপত্রে বলা হয়েছে, বিস্ফোরণের পর আকায়েদ পুলিশকে বলেছে, আমি এটা ইসলামিক স্টেটের জন্য করেছি। ২৭ বছর বয়সী আকায়েদ নিজের সঙ্গে রাখা বিস্ফোরকের বিস্ফোরণে আহত হয়ে এখন যুক্তরাষ্ট্রে পুলিশি হেফাজতে চিকিৎসাধীন। তিনি আত্মঘাতী হামলার চেষ্টা চালিয়েছিলেন বলে পুলিশ বলছে। প্রসিকিউটররা বলছেন, ২০১৪ সালে ইন্টারনেটে জঙ্গি গোষ্ঠী আইএসের বিভিন্ন জিনিসপত্র দেখে উগ্রপন্থার দিকে ঝুঁকতে থাকে আকায়েদ। এখন তিনি এ হামলা করেছেন মধ্যপ্রাচ্য নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সিদ্ধান্তে ক্ষোভ থেকে। তাদের বাইরে নিউ ইয়র্ক পুলিশ ডিপার্টমেন্টও আকায়েদের বিরুদ্ধে অবৈধ অস্ত্র রাখা, পাইপ বোমার বিস্ফোরণ এবং সন্ত্রাসবাদী হুমকির অভিযোগ এনেছে। বার্তা সংস্থা রয়টার্স বলছে, আকায়েদের বিচারে ফেডারেল প্রসিকিউটরদের অভিযোগগুলোই বিবেচ্য হবে। আর তাতে তার সর্বোচ্চ যাবজ্জীবন কারাদ- হতে পারে। ২০১৬ সালের জানুয়ারিতে বাংলাদেশে এসে বিয়ে করেন আকায়েদ। এরপর যুক্তরাষ্ট্রে চলে যান। চলতি বছর ১০ জুন সন্তানের জন্ম দেন জুঁই। সন্তানকে দেখতে গত ২২ সেপ্টেম্বর আকায়েদ বাংলাদেশে এসেছিলেন। এরপর তিনি আবার যুক্তরাষ্ট্রে চলে যান। নিউইয়র্কে ব্রুকলিনে পরিবারের সঙ্গে থাকেন মার্কিন গ্রিনকার্ডধারী আকায়েদ। তাঁর বাড়ি চট্টগ্রাম জেলার সন্দ্বীপে।

Facebook Comments
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ